logo
রোববার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১১ আশ্বিন ১৪২৭

  ক্রীড়া প্রতিবেদক   ১০ আগস্ট ২০২০, ০০:০০  

অনুশীলনে সাব্বির, আসেননি সৌম্য

প্রায় চার মাস পর এই হোম অফ ক্রিকেটে এসেছি। অনুভূতি প্রকাশ করতে পারব না, খুব ভালো লাগছে। অনেকদিন পর অনুশীলন শুরু করলাম মিরপুর স্টেডিয়ামে। ব্যাটিং করলাম, বিসিবি যেসব নির্দেশনা দিয়েছে তিন ফুট দূরত্ব বজায় রাখা ও অন্যান্য সুন্দর সুন্দর নিয়ম সেসব মেনে চলছি। খুব ভালো সুযোগ-সুবিধা অনুশীলনের জন্য। সবাই টাইম মেন্টেইন করছে। খুব ভালো লাগছে সাব্বির

অনুশীলনে সাব্বির, আসেননি সৌম্য
চার মাস পর মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে সাব্বির রহমান। মার্চের শেষ সপ্তাহে রাজধানী ছেড়ে রাজশাহীতে যান। ঢাকায় ফিরে রোববার দুপুরে শুরু করেন বিসিবির অধীনে একক অনুশীলন -ওয়েবসাইট
ঈদের আগেই অনুশীলনে ফিরে বেশ ভালো সময়ই কেটেছে ক্রিকেটারদের। মুশফিকুর রহিম, ইমরুল কায়েস, মোহাম্মদ মিঠুনদের পর এনামুল হক বিজয়ও শেষদিকে যোগ দিয়েছিলেন। তিন পেসার শফিউল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ আর মেহেদি হাসান রানাও নিজেকে ঝালিয়ে নিয়েছেন। ঈদের ছুটির পর শনিবার থেকে শুরু হওয়া ব্যক্তিগত অনুশীলনের প্রথমদিনও যথারীতি উপস্থিত মুশফিক, ইমরুল ও মিঠুন। সূচি অনুযায়ী এনামুল হক বিজয়ের রোববার অনুশীলনে যোগ দেওয়ার কথা ছিল। তার সঙ্গে একদম নতুন করে যোগ হওয়ার কথা ছিল আরও চারজনের।

বিসিবির দেওয়া প্রাকটিস সূচি অনুযায়ী রোববার প্রথমবার অনুশীলনে নামার কথা ছিল সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, আল আমিন হোসেন ও আমিনুল ইসলাম বিপস্নবের। এর মধ্যে সৌম্য ছাড়া বাকি সবাই যথাসময়েই মাঠে হাজির। কিন্তু দেখা মেলেনি সৌম্যর।

করোনার দীর্ঘ বিরতিতে অর্থাৎ গত চার মাস ধরে সাব্বির রহমান ছিলেন রাজশাহীতে। ঢাকায় ফিরেই যোগ দিয়েছেন একক অনুশীলনে। রোববার প্রথমদিনের মতো অনুশীলন করেছেন মিরপুরের হোম অব ক্রিকেটে। নিয়ম অনুযায়ী রানিং, জিম সেশন শেষে খানিকক্ষণ ব্যাটিংও করেছেন ইনডোরে। সবই করছেন, তবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের দেওয়া নিয়ম মেনে মেনে।

অনুশীলনে এসে সাব্বির বলেন, 'প্রায় চার মাস পর এই হোম অফ ক্রিকেটে এসেছি। অনুভূতি প্রকাশ করতে পারব না, খুব ভালো লাগছে। অনেকদিন পর অনুশীলন শুরু করলাম মিরপুর স্টেডিয়ামে। ব্যাটিং করলাম, বিসিবি যেসব নির্দেশনা দিয়েছে তিন ফুট দূরত্ব বজায় রাখা ও অন্যান্য সুন্দর সুন্দর নিয়ম সেসব মেনে চলছি। খুব ভালো সুযোগ-সুবিধা অনুশীলনের জন্য। সবাই টাইম মেন্টেইন করছে। খুব ভালো লাগছে।'

অনুশীলনে ফিরলেও সাব্বির মুখিয়ে আছেন ক্রিকেটে ফিরতে। দীর্ঘ সময় অবসরে থেকেও সাব্বির জানিয়েছেন খেলায় ফেরার জন্য তৈরি আছেন। তবে মাঠে ফেরার দ্রম্নত আশা দেখছেন ইংল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, পাকিস্তানের খেলায় ফেরা দেখে।

'ইংল্যান্ড-পাকিস্তান যখন খেলছে বা ওয়েস্ট ইন্ডিজ যখন খেলেছে তখন খুব ভালো লেগেছে। অন্তত খেলা তো শুরু হয়েছে। আমাদের দেশে যদি সব ঠিকঠাক থাকে ইনশালস্নাহ আমরা খুব তাড়াতাড়ি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলব। মুখিয়ে আছি আমরা খেলার জন্য। এর জন্য আমরা অনুশীলন করছি। নিজেদের ফিট রাখার জন্য এবং ভালো কিছু করার জন্য। আশা করি খেলা শুরু হবে ভালো কিছু করব।'

এক রাউন্ড হয়েই ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ স্থগিত হয়ে যাওয়ার পর গত ২ মার্চ রাজশাহী ফিরে যান সাব্বির। শুরুতে কিছু দিন সব বন্ধ ছিল। পরে ধীরে ধীরে ফেরেন অনুশীলনে।

'বাসায় কিছু কাজ ছিল ফিটনেসের, সেগুলো করেছি। এরপর রাজশাহীতে ইনডোরের সুবিধা নিয়েছি একা একা। ক্লেমনের জিমনেসিয়াম ব্যবহার করতে পেরেছি। ওখানে আমি সন্ধ্যা বা রাতে একা একা কাজ করেছি। আর রানিংয়ের জন্য বাসার সিঁড়িকে কাজে লাগিয়েছি। পাশে হর্টিকালচার সেন্টার ছিল, ওখানের মাঠ ব্যবহার করেছি। লোকজন খুব একটা থাকত না সেখানে। ক্লেমন ইনডোরে ব্যাটিং, বোলিং অনুশীলন করেছি।'

সবাই সূচি মেনে অনুশীলনে, শুধু নেই সৌম্য। কিন্তু কেন, কী হলো বাঁহাতি এ ব্যাটসম্যানের? বিসিবি থেকে দুপুর ১২টা নাগাদ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, সৌম্য এদিন আর অনুশীলন করবেন না। তিনি সোমবার যোগ দেবেন।

রোববার কী কারণে সৌম্য আসতে পারেননি অনুশীলনে? গণমাধ্যমকে সৌম্য নিজেই জানিয়েছেন, 'শারীরিক বা অন্য কোনো সমস্যা নয়। আমার আজ প্রাকটিসে যোগ দিতে না পারার কারণ অন্য।'

সৌম্য জানান, 'আসলে অনুশীলনে যোগ দেব কী করে? আমি তো ঢাকায়ই পৌঁছতে পারিনি। করোনার ভেতরে ভিড় এড়িয়ে ঢাকা পৌঁছতেই আমি একদিন দেরি করে রোববার সকালে ঢাকার পথে যাত্রা শুরু করেছি। আমি তো সেই সাতক্ষীরা থেকে আসব। ঈদের ছুটির পর শুক্র ও শনিবার প্রচন্ড ভিড় ছিল রাস্তায়। নিজের গাড়িতে করে এলেও আমার ফেরি পার হয়ে আসা ছাড়া উপায় নেই। সেখানে প্রচন্ড জ্যাম। বহু মানুষের সমাগম। বলতে পারেন, আমি ওই ফেরির ভিড় এড়াতেই একদিন পর বাড়ি থেকে বের হয়েছি।'

রোববার দুপুরে সাতক্ষীরা থেকে ঢাকা আসার পথে গাড়িতে বসে সৌম্য জানান, 'আমার এক নিকট আত্মীয় আমাকে জানালেন, সেই শুক্রবার থেকে ঢাকা ফেরা শুরু হয়েছে। এর ভেতরে শুক্র ও শনিবার ছিল সর্বোচ্চ ভিড়। হাজার হাজার মানুষ ফেরিঘাটে। কাজেই আমি ওই ফেরির জ্যাম এড়াতে একদিন দেরি করে বাড়ি থেকে যাত্রা করেছি। আশা করছি বিকালের মধ্যে ঢাকার বাসায় পৌঁছে যাব। রাতটুকু বিশ্রাম নিয়ে সোমবার আশা করছি অনুশীলনে যোগ দেব।'
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে