রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

পাষন্ড পিতার কান্ড!

পাষন্ড পিতার কান্ড!

কামাল হোসেন। আড়াইহাজার উপজেলার ছনপাড়া এলাকায় একটি হোটেলে কাজ করেন। তার ইচ্ছা পুত্রসন্তান হলে সেখানকার এক ব্যক্তির কাছে বিক্রি করে দেবেন। কিন্তু বিয়ের পর স্ত্রী কন্যা সন্তান প্রসব করেন। রাগে-ক্ষোভে সেই সন্তানকে ২৬ দিনের মাথায় আছড়ে মেরে ফেলেছেন পাষন্ড পিতা! নিহত শিশুটির নাম মিম আক্তার। শনিবার ভোরে জেলার নারায়ণগঞ্জ উপজেলার ভুলতা ইউনিয়নের পাড়াগাঁও দক্ষিণপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

মিমের মা খাদিজা আক্তার জানান, তিনি দক্ষিণপাড়াগাঁও এলাকার হারুন অর রশিদের মেয়ে। দুই বছর আগে পারিবারিকভাবে একই উপজেলার মাছিমপুর হাউলিপাড়া এলাকার মৃত বাবুলের ছেলে কামালের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে কামাল হোসেন পরিবার নিয়ে হ পৃষ্ঠা ১৫ কলাম ৪

পাড়াগাঁও শ্বশুর বাড়িতে বসবাস করে আসছিলেন। তিনি গর্ভবতী হলে কামাল হোসেন পুত্র সন্তান কামনা করেন। কিন্তু তিনি একটি কন্যা সন্তান জন্ম দেন। শিশুটির নাম রাখা হয় মীম আক্তার। এরপর থেকেই খাদিজার সঙ্গে অশোভন আচরণ করতে শুরু করেন স্বামী কামাল। এমনকি ১০ দিন আগে শিশু মীমকে মেরে ফেলার চেষ্টা চালান পাষন্ড পিতা। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি সন্তানের। শনিবার ভোরে হঠাৎ মীম কান্না শুরু করলে ক্ষিপ্ত হয়ে কোলে তুলে ঘরের ভেতর মাটিতে আছড়ে ফেলে দেন কামাল। ঘটনাস্থলেই মারা যায় শিশুটি।

খাদিজা জানান, তার স্বামী আড়াইহাজার উপজেলার ছনপাড়া এলাকায় একটি হোটেলে চাকরি করে। পুত্র সন্তান হলে সেখানে এক ব্যক্তির কাছে বিক্রি করে দেয়ার কথা ছিল। তার সেই স্বপ্ন পূরণ না হওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে শিশু মীমকে হত্যা করেছে।

রূপগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মাহমুদুল হাসান বলেন, শিশুটিকে হত্যাকারী পাষন্ড পিতাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2020

Design and developed by Orangebd


উপরে