শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০ ১৫ কার্তিক ১৪২৭

উপনির্বাচন ঢাকা-৫ ও নওগাঁ-৬

মনু ও হেলাল জয়ী

ফল প্রত্যাখ্যান বিএনপির দুই প্রার্থীর
মনু ও হেলাল জয়ী

ঢাকা-৫ ও নওগাঁ-৬ আসনের উপনির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের দুই প্রার্থীই বিজয়ী হয়েছেন। ঢাকা-৫ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী কাজী মনিরুল ইসলাম মনু নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৪৫ হাজার ৬৪২ ভোট। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী সালাহউদ্দিন আহমেদ পেয়েছেন ২ হাজার ৯২৬ ভোট। নওগাঁ-৬ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে আনোয়ার হোসেন হেলাল ১ লাখ ৫ হাজার ৫২১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির শেখ রেজাউল ইসলাম রেজু ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ৪ হাজার ৬০৫ ভোট। অন্যদিকে, এ দুই উপনির্বাচন নিয়ে নানা অভিযোগ ও পাল্টা অভিযোগ লক্ষ করা গেছে।

প্রচারণা চলাকালে ঢাকা-৫ আসনে পাল্টাপাল্টি হামলার ঘটনাও ঘটেছে। এসব ঘটনায় দুই পক্ষের প্রায় ২৫ জন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। তবে নির্বাচনের দিনও ঢাকা-৫ আসনের সরকারদলীয় প্রার্থী কাজী মনিরুল ইসলাম মনুর ভোট দেওয়া নিয়ে বিতর্ক দেখা দেয়।

তবে নানা অনিয়মের অভিযোগ এনে নওগাঁ-৬ আসনের দুটি উপজেলা আত্রাই ও রানীনগরে আজ রোববার অর্ধদিবস হরতাল ডেকেছে বিএনপি। আর ঢাকায় বিএনপি প্রার্থী সালাহউদ্দিন আহমেদ সিইসির পদত্যাগ দাবি করে মানববন্ধন কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন। তবে আওয়ামী লীগের দুই প্রার্থী ভোটের পরিবেশে সন্তুষ্ট।

শনিবার সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) বিরতিহীন ভোট গ্রহণ করা হয়। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। তবে নওগাঁর তুলনায় ঢাকা-৫ আসনে ভোটার উপস্থিতি ছিল কম।

ঢাকা-৫ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী কাজী মনিরুল ইসলাম মনু বলেছেন, নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে, এতে কোনো সন্দেহ নেই। কোথাও কোনো সমস্যা হয়নি। এই করোনার মধ্যেও স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভোট দিতে আসায় এলাকাবাসীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।

তবে নানা অনিয়মের অভিযোগ তুলে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের পদত্যাগ দাবি করেছেন ঢাকা-৫ আসনের বিএনপির প্রার্থী সালাহউদ্দিন আহমেদ। পাশাপাশি অনিয়মের প্রতিবাদে আগামীকাল (রোববার) দুপুর ২টায় নির্বাচনী এলাকায় মানববন্ধন কর্মসূচির ঘোষণা দেন তিনি। শনিবার সন্ধ্যায় যাত্রাবাড়ীতে ধানের প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন সালাহউদ্দিন আহমেদ।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আপনারা দেখেছেন দনিয়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে আমাদের দুই এজেন্ট বোনকে অপদস্ত করে বের করে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া আর কে মিশন চৌধুরী স্কুলে আমাদের আরেক নারী এজেন্টের ওপর হামলা করে তাকে বের করে দেওয়া হয়েছে। এমনকি তার গায়ে হাতও দেওয়া হয়েছে। প্রায় সব কেন্দ্রেই আমাদের এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে। যেসব কেন্দ্রে এজেন্ট ঢুকেছে তাদেরও বের করে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু প্রিসাইডিং কর্মকর্তারা কোনো পদক্ষেপ নেননি। আমরা রিটার্নিং কর্মকর্তাকে বারবার অবহিত করলেও তিনি কোনো পদক্ষেপ নেননি। আপনাদের মাধ্যমে আমরা এ অনিয়মে জর্জরিত অবৈধ নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করছি এবং পুনর্র্নির্বাচনের দাবি জানাচ্ছি।

এর আগে দুপুরে ঢাকা-৫ আসনের বিভিন্ন কেন্দ্র ঘুরে বিএনপি প্রার্থী সালাহউদ্দিন আহমেদ বলেন, ৯৫ ভাগ কেন্দ্র থেকে বিএনপি এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে। বর্তমান নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠুভাবে আজ পর্যন্ত কোনো নির্বাচন করতে পারেনি। বেশিরভাগ কেন্দ্র থেকে আমাদের এজেন্টদের বের করে দিয়েছে। এজন্য ৯০ থেকে ৯৫ ভাগ কেন্দ্রে আমাদের এজেন্ট নেই।

নওগাঁ-৬ (রানীনগর-আত্রাই) আসনে উপনির্বাচনে প্রহসনের নির্বাচনের অভিযোগ এনে শনিবার বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে জেলা বিএনপি। সেই সঙ্গে এ আসনে অর্ধদিবস হরতালের ডাক দেওয়া হয়েছে। শনিবার রাত ৮টায় জেলা বিএনপির উদ্যোগে নওগাঁ শহরের কেডির মোড় বিএনপির দলীয় কার্যালয় থেকে এক বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

নওগাঁ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক হাফিজুর রহমান হাফিজ মাস্টারের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি নজমুল হক সনি, সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম ধলু, সাংগঠনিক সম্পাদক মামুনুর রহমান রিপন ও শফিউল আজম ভিপি রানা, বিএনপি নেতা নাছির উদ্দিন ও আব্দুস শুকুর, ভিপি খোকন, জেলা যুবদলের সভাপতি বায়েজিদ হোসেন পলাশ, সাধারণ সম্পাদক খায়রুল আলম গোল্ডেন, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শামীম আহম্মেদ, ছাত্রদলের সভাপতি রুবেল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মামুনুর বিন দোহা, প্রচার সম্পাদক ফরহাদ হোসেন প্রমুখ।

নওগাঁ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক হাফিজুর রহমান হাফিজ মাস্টার বলেন, নওগাঁ-৬ আসনের উপনির্বাচন প্রত্যাখ্যান করে রানীনগর-আত্রাই উপজেলায় আজ (রোববার) অর্ধদিবস হরতালের আহ্বান করা হয়েছে। পরে দলীয়ভাবে আবারও সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

এর আগে শনিবার সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত প্রতিটি কেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোটাররা ভোট দিয়েছে। নির্বাচন সুষ্ঠু হয়নি অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করে ভোট বর্জন করেছেন বিএনপির প্রার্থী শেখ রেজাউল ইসলাম রেজু।

আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আনোয়ার হোসেন হেলাল বলেন, সুষ্ঠুভাবে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত ভোটারদের উপস্থিতি ভালো ছিল। ভোটাররা উৎসবমুখর পরিবেশে এসে ভোট দিয়েছে। আমার বিশ্বাস এ দুই উপজেলার মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আমাকে বিজয়ী করবে ইনশালস্নাহ।

বিএনপি প্রার্থী শেখ রেজাউল ইসলাম রেজু বলেন, সব কেন্দ্র থেকে আমার এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে। সকাল থেকে ভোটের কোনো পরিবেশ ছিল না। এ নিয়ে নির্বাচন কমিশনারকে কয়েকবার বিষয়টি অবগত করা হয়েছে। কিন্তু তিনি দৃশ্যমান কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি।

তিনি আরও বলেন, এখানে সরকার, নির্বাচন কমিশন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এক ও অভিন্ন। এটি প্রহসনের নির্বাচন, সাজানো নির্বাচন। এই নির্বাচন আমরা মানি না। এজন্য নির্বাচন বর্জন করছি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

Copyright JaiJaiDin ©2020

Design and developed by Orangebd

close

উপরে