logo
শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ ৩ আশ্বিন ১৪২৭

  যাযাদি ডেস্ক   ২২ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০  

ভাঙন শুরু বিজেপি জোটে দুশ্চিন্তায় মোদি-অমিত

দুই পুরানো সঙ্গী আকালি দল ও জেজেপি জোট থেকে বেরিয়ে গেছে সিএএ ও এনআরসি ইসু্যতে মতের মিল না হওয়াতেই জোট ছেড়েছে তারা

ভাঙন শুরু বিজেপি জোটে দুশ্চিন্তায় মোদি-অমিত
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ
ভারতের রাজধানী দিলিস্নর বিধানসভা নির্বাচনের আগে বেশ বড় ধরনের ধাক্কা খেল দেশটির ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)। তাদের জোট ভেঙে বেরিয়ে গেছে দুই পুরানো সঙ্গী শিরোমণি আকালি দল ও জননায়ক জনতা পার্টি (জেজেপি)। বলা হচ্ছে, নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ) আর জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) ইসু্যতে মতের মিল না হওয়াতেই জোট ছেড়েছে আকালি দল। আর জেজেপি সরাসরি কিছু না বললেও ধারণা করা হচ্ছে, বিজেপির সঙ্গে আসন ভাগাভাগিতে সমঝোতা না হওয়াতেই বিজেপির সঙ্গ ছেড়েছে তারা। সংবাদসূত্র : এবিপি নিউজ

দুই পুরানো সঙ্গীর জোট ছেড়ে যাওয়ায় ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকারের দুই কান্ডারি নরেন্দ্র মোদি ও অমিত শাহের দুশ্চিন্তা আরও বাড়বে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। দেশটির গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সিএএ নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই বিজেপির সঙ্গে মতবিরোধ চলছিল আকালি নেতাদের। দলটির অন্যতম নেতা মনজিন্দর সিং শীর্ষা বলেন, 'সিএএ নিয়ে আমাদের অবস্থান পর্যালোচনা করতে বলা হয়েছিল, কিন্তু তাতে রাজি হইনি। আমাদের অবস্থান স্পষ্ট, নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন থেকে মুসলমানদের বাদ দেওয়া যাবে না।

আকালি নেতারা সিএএ-এনআরসি নিয়ে দ্বন্দ্বের কথা বললেও সংবাদমাধ্যমের দাবি, বিজেপির সঙ্গ ছাড়ার মূল কারণ আসন সমঝোতা। ২০১৫ সালের দিলিস্ন নির্বাচনে তিনটি আসনে প্রার্থী দিয়েছিল আকালি। তবে তাদের প্রার্থীদের লড়তে হয়েছিল বিজেপির পদ্ম প্রতীক নিয়ে। কিন্তু, এবারের নির্বাচনে নিজেদের দলীয় প্রতীক দাঁড়িপালস্নাতেই লড়তে চান আকালি নেতারা। আর তা নিয়েই যত দ্বন্দ্ব।

এদিকে, জননায়ক জনতা পার্টির সঙ্গেও আসন নিয়ে ঝামেলায় জড়িয়েছে বিজেপি। হরিয়ানা সীমান্তে অন্তত ১২টি আসন দাবি করেছিল জেজেপি। কিন্তু এতগুলো দিতে নারাজ গেরুয়া শিবির। আর তাতেই ভেঙে যায় দীর্ঘদিনের জোট।

দুর্দিনের দুই বিশ্বস্ত সঙ্গী জোট ছাড়ায় দিলিস্ন নির্বাচনে চাপ বেড়ে গেল ক্ষমতাসীন বিজেপির। তবে এমন দুঃসময়ে তাদের জন্য কিছুটা হলেও স্বস্তি যে, জোট ছেড়ে আলাদাভাবে নির্বাচনে লড়বে না আকালি। তারা পুরো নির্বাচনই বয়কট করছে। এ ছাড়া জনতা দল ইউনাইটেড (জেডিইউ) ও লোক জনশক্তি পার্টির (এলজেপি) সঙ্গে জোট পাকা হয়েছে গেরুয়া শিবিরের। দিলিস্নতে জেডিইউ দুটি ও এলজেপি একটি আসনে লড়বে।

এদিকে, আসন ভাগাভাগি নিয়ে বিজেপি ঝামেলায় পড়লেও সেদিক থেকে স্বস্তিতে আছে কংগ্রেস। এরই মধ্যে রাষ্ট্রীয় জনতা দলের (আরজেডি) সঙ্গে সমঝোতা হয়ে গেছে। জানা গেছে, দিলিস্ন বিধানসভার ৭০ আসনের নির্বাচনে চারটিতে প্রার্থী দেবে আরজেডি, বাকিগুলো কংগ্রেসের।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে