শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০ ১৫ কার্তিক ১৪২৭

নিউজিল্যান্ডে নির্বাচন

করোনা মোকাবিলার পুরস্কার সহজ জয় জেসিন্ডার

ফল ঘোষণার পর আবেগে সমর্থকদের জড়িয়ে ধরেন দ্বিতীয় মেয়াদের প্রধানমন্ত্রী পরাজয় স্বীকার করে নিয়েছেন বিরোধী নেতা জুডিথ কলিন্স
করোনা মোকাবিলার পুরস্কার সহজ জয় জেসিন্ডার
সমর্থকদের সামনে উৎফুলস্ন জেসিন্ডা আরডার্ন

নিউজিল্যান্ডের সাধারণ নির্বাচনে সহজ জয় পেয়েছে প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্নের নেতৃত্বাধীন মধ্য বামপন্থী লেবার পার্টি। শনিবারের ভোটগ্রহণ শেষে ঘোষিত ফলে দেখা গেছে, দেশটির ১২০ আসনের পার্লামেন্টে ৬৪টিতেই জয় পেয়েছেন লেবার পার্টির প্রার্থীরা। ফলে বিগত কয়েক দশকের মধ্যে এই প্রথম দেশটিতে একক দলের সরকার গঠন হতে যাচ্ছে। নির্বাচনে করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবিলায় আরডার্নের ভূমিকাকে ভোটাররা পুরস্কৃত করেছেন বলে মনে করা হচ্ছে। সংবাদসূত্র :আল-জাজিরা, বিবিসি, রয়টার্স

নভেল করোনাভাইরাসের কারণে বিলম্বিত হয় এবারের নিউজিল্যান্ডের সাধারণ নির্বাচন। দীর্ঘ বিলম্বের পর শনিবার স্থানীয় সময় সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত এই ভোটগ্রহণ চলে। মোট ১৭ জন প্রার্থীর অংশগ্রহণ থাকলেও মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয় ক্ষমতাসীন লেবার পার্টির নেতা জেসিন্ডা আরডার্ন ও ন্যাশনাল পার্টির প্রধান জুডিথ কলিন্সের মধ্যে।

ভোটগ্রহণ শেষে ঘোষিত ফলে দেখা গেছে, ১৯৯৬ সালে নিউজিল্যান্ডে আনুপাতিক ভোট ব্যবস্থা চালুর পর থেকে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক আসন পাওয়া দলে পরিণত হয়েছে ৪০ বছর বয়সি জেসিন্ডার লেবার পার্টি। ফলে এবারই প্রথম একক দলের সরকার গঠন করতে পারবেন তিনি। প্রথম মেয়াদে জেসিন্ডা আরডার্নকে জাতীয়তাবাদী একটি দলের সঙ্গে ক্ষমতা ভাগাভাগি করতে হয়। সে কারণে এই মেয়াদে তার প্রতিশ্রম্নতি মোতাবেক বেশ কয়েকটি প্রগতিশীল পরিবর্তন আনতে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হয় তাকে। তবে এবারের নির্বাচনে একক দলের সরকার গঠনের মতো সমর্থন পাওয়ায় তা অতিক্রম করতে পারবেন বলে মনে করা হচ্ছে।

নির্বাচনের ফল ঘোষণার পর অকল্যান্ডের নিজ বাড়ির বাইরে বেরিয়ে আসেন জেসিন্ডা আরডার্ন। সমবেত সমর্থকদের উদ্দেশে হাত নাড়ানোর পাশাপাশি অনেককে জড়িয়ে ধরেন তিনি।

অন্যদিকে, এরই মধ্যে পরাজয় স্বীকার করে নিয়েছেন বিরোধী ন্যাশনাল পার্টির নেতা জুডিথ কলিন্স। এক টেলিভিশন ভাষণে তিনি বলেন, 'প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্নকে ফোন করে আমি অভিনন্দন জানিয়েছি, কারণ আমার বিশ্বাস, এটা লেবার পার্টির অসামান্য সাফল্য।'

নিউজিল্যান্ডের নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, এরই মধ্যে গণনা শেষ হওয়া ৭৭ শতাংশ ব্যালটের মধ্যে লেবার পার্টি পেয়েছে ৪৯ শতাংশ ভোট। অপরদিকে, ন্যাশনাল পার্টি পেয়েছে ২৭ শতাংশ ভোট। লেবার পার্টির নেতা ও অর্থমন্ত্রী গ্রান্ট রবার্টসন বলেন, 'আমরা যেভাবে কোভিড মোকাবিলা করেছি, তাতে জনগণ খুবই খুশি এবং কৃতজ্ঞ। এখান থেকে অর্থনীতিকে এগিয়ে নেওয়ার যে পরিকল্পনা আমরা করেছি তার ধরন তারা পছন্দ করেছে।'

নির্বাচনের আগে লেবার পার্টি সুবিধাবঞ্চিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আরও অর্থ প্রদান, জলবায়ুবান্ধব নীতি বাস্তবায়নের প্রতি জোর দিয়েছে। অন্যদিকে, অবকাঠামোগত বিনিয়োগ বৃদ্ধি, ঋণ মওকুফ এবং সাময়িক সময়ের জন্য কর হ্রাসের প্রতিশ্রম্নতি দিয়েছিল ন্যাশনাল পার্টি।

জেসিন্ডার বর্তমান জোট সহযোগী জাতীয়তাবাদী ফার্স্ট পার্টি পেয়েছে ২.৬ শতাংশ এবং গ্রিন পার্টি ৭.৬ শতাংশ ভোট। কোনো কারণে জেসিন্ডা যদি কেবল লেবার পার্টির সরকার গঠনে ব্যর্থ হন, তাহলে তিনি গ্রিন পার্টির ওপর ভরসা করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

উলেস্নখ্য, ১৯৯৬ সালে 'মিক্সড মেম্বার প্রোপোরশনাল রিপ্রেজেন্টশন' ধারার পার্লামেন্টারি ব্যবস্থা চালুর পর থেকে এখন পর্যন্ত কেউ এই ধারার সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি। গত মাসে এই ভোট হওয়ার কথা থাকলেও করোনার কারণে নির্বাচন পিছিয়ে যায়। অর্ধকোটির কিছু বেশি বাসিন্দার দেশ নিউজিল্যান্ডে গত ৩ অক্টোবর থেকে চলা আগাম ভোটে অংশ নিয়েছেন ১০ লাখের বেশি ভোটার।

ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলাসহ বিভিন্ন সংকটে নেতৃত্বের জন্য বিশ্বজুড়েই আলোচিত নাম জেসিন্ডা। কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণে সাফল্য নির্বাচনী মাঠে বহুগুণ এগিয়ে দিয়েছে তাকে। নির্বাচনের আগে সবগুলো জরিপেই একচ্ছত্র শ্রেষ্ঠত্ব ছিল ৪০ বছর বয়সি কিউই প্রধানমন্ত্রীর।

মিশ্র সদস্য আনুপাতিক প্রতিনিধিত্ব (এমএমপি) ব্যবস্থায় ভোটারদের মোট দুটো ভোট দিতে হয়। একটি দিতে হয় পছন্দের দলকে, অন্যটি নির্বাচনী আসনের পছন্দের প্রার্থীকে। পার্লামেন্টে যেতে হলে একটি দলকে হয় কোনো নির্বাচনী আসনে জিততে হবে, নতুবা পাঁচ শতাংশের বেশি ভোট পেতে হবে।

নিউজিল্যান্ডের পার্লামেন্টে মাউরি প্রার্থীদের জন্য নির্দিষ্ট কিছু আসন সংরক্ষিত আছে। এমএমপি ব্যবস্থায় জোট সরকার গঠনের সম্ভাবনা বেশি থাকায় শরিক দলগুলোর ফলের ওপরও অনেক কিছু নির্ভর করে। ২০১৭ সালের সাধারণ নির্বাচনে মধ্য ডানপন্থি ন্যাশনাল পার্টি সবচেয়ে বেশি আসন জিতলেও গ্রিন পার্টি ও নিউজিল্যান্ড ফার্স্ট পার্টিকে নিয়ে আরডার্নের লেবার পার্টিই বাজিমাত করেছিল।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

Copyright JaiJaiDin ©2020

Design and developed by Orangebd

close

উপরে