logo
শুক্রবার, ২৯ মে ২০২০, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

  যাযাদি রিপোর্ট   ২৪ মার্চ ২০২০, ০০:০০  

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দর অপরিবর্তিত

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দর অপরিবর্তিত
শেয়ারবাজারের পতন থামাতে চালু করা নতুন সার্কিট ব্রেকারের কারণে সোমবার বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দর অপরিবর্তিত রয়েছে। তবে স্বল্পসংখ্যক প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দর বাড়ার কারণে বেড়েছে মূল্য সূচক। সেই সঙ্গে লেনদেনও বেঙেছে।

এদিন প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেনে অংশ নেওয়া ৯৭টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দর বেঙেছে। বিপরীতে দাম কমেছে ৪৭টির। আর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ২০৮টির।

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের দাম অপরিবর্তিত থাকলেও দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ২৪ পয়েন্ট বেড়ে ৩ হাজার ৯৮৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই-৩০ বেড়েছে ২ পয়েন্ট। আর ডিএসই শরিয়াহ বেড়েছে ২ পয়েন্ট।

সূচক বাঙার পাশাপাশি ডিএসইতে বেড়েছে লেনদেনের পরিমাণ। দিনভর লেনদেন হয়েছে ২৫৪ কোটি ৩০ লাখ টাকা। আগের দিন লেনদেন হয় ১৪৫ কোটি ৮৩ লাখ টাকা। এ হিসাবে লেনদেন বেড়েছে ১০৮ কোটি ৪৭ লাখ টাকা।

অব্যাহত দরপতনের হাত থেকে শেয়ারবাজার রক্ষা করতে গত বৃহস্পতিবার নতুন সার্কিট ব্রেকার চালু করা হয়। নতুন নিয়ম অনুযায়ী, কোম্পানির শেয়ারের লেনদেন শুরু হবে শেষ পাঁচ কার্যদিবসের ক্লোজিং প্রাইসের গড় মূল্য দিয়ে। এর নিচে কোনো কোম্পানির শেয়ার দর নামতে পারবে না। তবে দাম বাড়ার সীমা আগের মতোই থাকবে।

নতুন এই নিয়মে বৃহস্পতিবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেন হলেও বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের গড় দাম নির্ধারণে ভুল হয়। এ কারণে রোববার শেয়ারের গড় দর নির্ধারণে কিছুটা সংশোধনী আনা হয়। এতে মূল্য সূচকের কিছুটা পতন হয়। সেই সঙ্গে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ারদর সার্কিট ব্রেকারের কাছে চলে আসে। এতে নতুন করে দরপতন হয়নি। ফলে ডিএসইতে দাম অপরিবর্তিত থাকার তালিকায় থেকে গেছে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠান।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক মূল্য সূচক সিএএসপিআই আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে ৮৪ পয়েন্ট। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৫ কোটি ৯০ লাখ টাকা। লেনদেন অংশ নেওয়া ২০৩টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৫৩টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১২টির। আর ১৩৮টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে