logo
শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

ফুটবল উন্নয়নে পরামর্শ জেমির

ফুটবল উন্নয়নে পরামর্শ জেমির
বাংলাদেশের মানুষের এ একটা সমস্যা। তারা জয় এবং সাফল্য প্রত্যাশা করে। কিন্তু জয়ের উৎসটা কি তা জানে না। সমস্যাগুলোও তারা বোঝার চেষ্টাও করে না। গত ১৪ মাসে দলের পারফরম্যান্স চমৎকার। এই গেমসে দল খারাপ খেলেনি। তবে আমাদের আরও অপেক্ষা করতে হবে। এখনো অনেক কাজ বাকি আছে। যদি আমরা চেষ্টা করতে থাকি, তাহলে একসময় ইতিবাচক ফল সম্ভব।
ক্রীড়া প্রতিবেদক

আন্তর্জাতিক ফুটবলের মিশনটা আপাতত শেষ। এসএ গেমস থেকে ব্রোঞ্জ নিয়ে বুধবার দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব ২৩ ফুটবল দল। ১৮ ডিসেম্বর থেকে ফেডারেশন কাপ। তাই ফুটবলাররা ব্যস্ত হয়ে যাচ্ছেন নিজেদের ক্লাবের প্রস্তুতিতে। কোচ জেমি ডে'র হাতে আপাতত কাজ নেই, তাই ছুটি কাটাতে ফিরে গেছেন নিজ দেশে। তবে এসএ গেমসে শিষ্যদের পারফরম্যান্স নিয়ে কথা বলেছেন। জানিয়েছেন দেশের ফুটবলের উন্নয়নে তার পরামর্শগুলো।

কোচ জেমি ডে জাতীয় দলের দায়িত্ব নেয়ার আগের কয়েকটা বছর দারুণ খারাপ সময় পার করেছে দেশের ফুটবল।র্ যাংকিংয়ে ইতিহাসের সর্বনিম্ন স্থানে নেমে যাওয়া বাংলাদেশকে আবারো উপরের দিকে টেনে তুলছেন এই ইংলিশ কোচ। গতানুগতিক জাতীয় দলটাকে ভেঙ্গে চুড়ে একটা নতুন দল গড়ে তোলেন জেমি। যে দলের হাত ধরে আহামরি কোনো সাফল্য না আসলেও অন্তত নতুন করে স্বপ্ন দেখার সাহস মিলেছিল। কিন্তু প্রায় সেই দলটিকে নিয়েই স্বর্ণ জয়ের আশায় নেপালে পাড়ি জমিয়ে শেষ পর্যন্ত ঘরে ফিরতে হয়েছে ব্রোঞ্জ হাতে। তবে কোচ জেমি ডে সবসময়ই শিষ্যদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। এই ফলাফলের জন্য দীর্ঘদিন ধরে বিশ্রাম না পাওয়ার ক্লান্তিকে দায়ী করেছেন।

এসএ গেমসে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার শেষ নেই। তবে কোচ জেমির চোখে ভালোই খেলেছে বাংলাদেশ দল। এই প্রসঙ্গে কোচ বলেন, 'আমরা চার ম্যাচের তিনটিতে ভালো খেলেছি। আমি মনে করি না ছেলেরা খারাপ খেলেছে। তারা নিজেদের সেরাটা দিতে চেষ্টা করেছে। কিন্তু আমাদের কোয়ালিটি স্ট্রাইকারের অভাব আছে। আর যতক্ষণ পর্যন্ত না এই অভাব ঘোচবে। গোল পাওয়া সহজ হবে না।'

আপনার চোখে দল ভালো খেলেছে। কিন্তু বাংলাদেশের মানুষ তো এই ফলাফলে খুশি নয়। এ প্রসঙ্গে আপনার ব্যাখ্যা কি? কোচ জেমি ডে'র উত্তর, 'বাংলাদেশের মানুষের এ একটা সমস্যা। তারা জয় এবং সাফল্য প্রত্যাশা করে। কিন্তু জয়ের উৎসটা কি তা জানে না। সমস্যাগুলোও তারা বোঝার চেষ্টাও করে না। গত ১৪ মাসে দলের পারফরম্যান্স চমৎকার। এই গেমসে দল খারাপ খেলেনি। তবে আমাদের আরও অপেক্ষা করতে হবে। এখনো অনেক কাজ বাকি আছে। যদি আমরা চেষ্টা করতে থাকি, তাহলে একসময় ইতিবাচক ফল সম্ভব।'

এসএ গেমসে আশানুরূপ ফলাফল না হবার কারণ হিসেবে কোচ জেমি ডে পর্যাপ্ত প্রস্তুতির অভাব আর ফুটবলারদের ক্লান্তিটাকেই দায়ী করেছেন। এ প্রসঙ্গে ইংলিশ এই কোচ বলেছেন, 'গত ১৪ মাসে খেলোয়াড়রা কোনো বিশ্রাম পাননি। যে কারণে তারা পারফরম্যান্সের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে পারে নাই। এই দেখুন, আমাদের পরবর্তী লক্ষ্য হলো বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ। অথচ এর আগে খেলোয়াড়রা ঘরোয়া ফুটবলে ব্যস্ত হয়ে পড়বে। আমি আবারও ক্লান্ত একটি দল পাব।'

এই অবস্থা থেকে পরিত্রাণের উপায় কি? জানতে চাইলে জেমি বলেছেন, 'বিশ্ব ফুটবল কিন্তু এভাবে চলে না। সেখানে ৬ সপ্তাহের বিশ্রাম আছে। ফিফার নির্দিষ্ট সূচিতেই আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলে থাকে। এর বাইরে কেউ খেলে না। এছাড়া খেলোয়াড়দের সেখানে ক্লান্তি কিংবা অবসাদ কাটানোর জন্য ব্যবস্থা থাকে। যা এখানে নেই। যদি এসব ঠিক না থাকে তাহলে উন্নতি করা কঠিন। পৃথিবীর অনেক দুর্বল দেশই পরিকল্পনা করে এগিয়ে গেছে। এই যেমন ভিয়েতনামে একাডেমি ও বিদেশি কোচ এনে নিজেদের উন্নতি করে যাচ্ছে। জাতীয় দলও সাফল্য পাচ্ছে। আসলে বড় ধরনের বিনিয়োগ ছাড়া উপায় নেই।'
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে