logo
মঙ্গলবার ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮, ৪ পৌষ ১৪২৫

  ক্রীড়া প্রতিবেদক   ১১ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০  

মিরপুরে খেলার সুযোগ হচ্ছে না সালমাদের!

২০১২ সালের পর মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে খেলার সুযোগ পায়নি বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। কয়েক বছর ধরে মেয়েদের হোম সিরিজ হচ্ছে কক্সবাজার ও সিলেটে। সালমা-রুমানাদের ইচ্ছা আবার তারা খেলবেন হোম অব ক্রিকেটে। কিন্তু তাদের ইচ্ছার প্রতিফলন আদৌ দেখা যাবে কিনা; সেটি নিয়ে থাকছে যথেষ্ট সন্দেহ।

গত ৬ বছরে মিরপুরে খেলার সুযোগ হয়নি সালমা-রুমানাদের। ২০১২ সালের সেপ্টেম্বরে সাউথ আফ্রিকার বিপক্ষে সবশেষ ওয়ানডে ও টি২০ সিরিজ খেলেছিল টিম টাইগ্রেস।

এশিয়ার সেরা হওয়ার পর মেয়েদের সুযোগ-সুবিধা বাড়িয়ে নতুন কাঠামো তৈরির কাজে হাত দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোডর্ (বিসিবি)। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ জয় ও বিশ্বকাপ বাছাইপবের্ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সে দাবি জোরালো করেছে সালমা খাতুনের দল।

টানা সাফল্যের পর সুখবর পাচ্ছে নারী ক্রিকেট দল। এবার ঘরোয়া ক্রিকেটে লাগতে যাচ্ছে উন্নয়নের ছেঁায়া। জাতীয় লিগের পরেই, বিসিএলের আদলে আয়োজন করা হবে দুই দনের ম্যাচ। বাড়ানো হচ্ছে রুমানা-জাহানারাদের বেতনও। এদিকে পাইপলাইন শক্ত করতে শুরু হচ্ছে অনূধ্বর্ ১৮ নারী চ্যাম্পিয়নশিপ।

টানা দুটি আসরে সাফল্যের ধারাবাহিকতা রাখতে চায় ম্যানেজমেন্ট। বিশ্বকাপ টি২০তে ভালো ফল পেতে আগেভাগে ক্যাম্প শুরু হয়েছে। মিরপুরের একাডেমি মাঠে আট সপ্তাহের ক্যাম্পে মেয়েদের টি২০ ফরম্যাটের সাথে মানিয়ে নেয়ার দীক্ষা দেয়া হচ্ছে। আয়েশা-ফারহানাদের বিগ হিটে অভ্যস্ততা বাড়ানো হচ্ছে। নতুন ট্রেনার কবিতা পান্ডের অধীনে ফিটনেস ও ফিল্ডিং অনুশীলন করেছেন সালমা-রুমানারা। ঈদের আগেই নিজেদের ফিট করে তোলাই এখন প্রধান লক্ষ্য।

পারফরম্যান্সের গ্রাফ ক্রমেই ঊধ্বর্মুখী হওয়ায় বাংলাদেশের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে আগ্রহ বাড়ছে অন্য দলগুলোর। নভেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে অনুষ্ঠিতব্য বিশ্বকাপের আগে অক্টোবরে পাঁচ ম্যাচের টি২০ সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে আসতে পারে পাকিস্তান।

আসন্ন সিরিজে মিরপুরে মেয়েদের কোনো ম্যাচ দেয়া যায় কিনা; সে বিষয়টি এবার সামনে এসেছে। বিসিবির ওমেন্স উইংয়ের দেখভালের দায়িত্বে থাকা নাজমুল আবেদিন ফাহিম অবশ্য এখনই মিরপুরে খেলার সুযোগ দেখছেন না।

‘মিরপুরে মেয়েদের ম্যাচ নিভর্র করে আমাদের মাঠ ও সময়সূচির ওপর। মেয়েরা অনেক ভালো খেলছে তার মানে এই না, সবকিছুই মেয়েদের জন্য দিয়ে দিতে হবে। প্রাধান্য থাকবেই এবং থাকা উচিত। আমার মনে হয় মেয়েরা ভালো খেলছে এই জন্য ওরা সবার দৃষ্টি আকষর্ণ করছে এবং সবাই ওদের গুরুত্ব দিচ্ছে। ওরা ধারাবাহিকভাবে আরও ভালো করতে থাকলে আরও প্রাধান্য পাবে। যদি সেটা হয় তাহলে ভালো ভালো জায়গায় (মিরপুর) খেলবে।’

‘অবশ্যই ওরা ভালো জায়গায় খেলবে এতে কোন সন্দেহ নেই। ওই সময়টায় হয়তো আরও ছেলেদের আন্তজাির্তক ম্যাচ খেলার সম্ভাবনা রয়েছে। অনূধ্বর্-১৯ এশিয়া কাপ আছে। সব কিছু বিবেচনা করেই কে কোথায় খেলবে এই সিদ্ধান্ত নেবে।’ -বলেন নাজমুল আবেদিন।

মেয়েদের সিরিজ হবে অক্টোবরে। ওই সময় সাকিব-তামিমদের সঙ্গে ওয়ানডে ও টেস্ট সিরিজ খেলতে আসবে জিম্বাবুয়ে। মিরপুরে হবে একটি করে ওয়ানডে ও টেস্ট। এছাড়া যুবাদের এশিয়া কাপের কয়েকটি ম্যাচও হতে পারে হোম অব ক্রিকেটে।

ভেন্যু নিয়ে যতই ব্যস্ততা থাক পৃথিবীর অন্যান্য দেশ ছেলেদের পাশাপাশি মেয়েদের ম্যাচও রাখে প্রসিদ্ধ স্টেডিয়ামগুলোতে। মেয়েদের ম্যাচকে সমান গুরুত্ব দিয়েই তৈরি করা হয় সূচি। বাংলাদেশ নারী দলের বেলায় সেটি ঘটছে না। কারা কোন মাঠে খেলবে সে ব্যাপারটি নিধার্রণ করে থাকে বিসিবির গ্রাউন্ডস কমিটি। তাদের কাছ থেকে ভেন্যু আদায় করে নেয়ার কাজটি ওমেন্স উইংয়ের। অথচ এ ব্যাপারে তারাই নিবির্কার।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
অাইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে