logo
রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ৪ কার্তিক ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ১০ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০  

বিশ্বকাপ বাছাই দ্বিতীয় পর্ব

কাতারের বিপক্ষে ভালো করার প্রত্যাশা

কাতারের বিপক্ষে ভালো করার প্রত্যাশা
বাংলাদেশ ও কাতার ফুটবল দলের অধিনায়কের শুভেচ্ছা বিনিময় -বাফুফে
ক্রীড়া প্রতিবেদক

বিশ্বকাপ বাছাইয়ের দ্বিতীয় পর্বে আজ এশিয়ার অন্যতম শক্তিধর দল কাতারকে মোকাবেলা করবে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। ঢাকার বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা ৭টায় অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচটি। কাতারের কোচ ফেলিক্স সানচেজ পয়েন্ট নিয়ে ঘরে ফিরতে চাইলেও বাংলাদেশকে খাটো করে দেখছেন না। অন্যদিকে বাংলাদেশ দলের লক্ষ্য নিজেদের ঘরে শক্তিধর দলটির বিপক্ষে ভালো ফুটবল উপহার দেয়া।

বিশ্বকাপ বাছাইয়ের দ্বিতীয় পর্বে গ্রম্নপে সব থেকে দুর্বল দল বাংলাদেশ। নিরপেক্ষ ভেনু্য তাজিকিস্তানে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ঠিক এক মাস আগে আফগানিস্তানের কাছে ১-০ গোলে হেরে এসেছে বাংলাদেশ। নিজেদের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে নিতে কাতার ম্যাচের আগে ভুটানের বিপক্ষে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে জেমি ডের শিষ্যরা। প্রথম ম্যাচে ৪-১ এবং পরের ম্যাচে ২-০ গোলে জিতে আত্মবিশ্বাস বেড়েছে জেমি ডে'র শিষ্যদের। কাতারের বিপক্ষে মাঠে নামার আগের দিন কোচ জেমি ডেও সেটিই জানিয়েছেন। এ প্রসঙ্গে কোচ বলেছেন, 'আমরা আগামীকালের (আজ) ম্যাচটার জন্য অপেক্ষা করছি। ভুটানের বিপক্ষে ম্যাচ খেলে ছেলেরা আত্মবিশ্বাসী হয়েছে। প্রস্তুতি খুবই ভালো হয়েছে। দলের সবাই খুব ভালো অবস্থাতেই আছে।'

'আমাদের আত্মবিশ্বাসের সঙ্গেই ম্যাচটা খেলতে হবে। এবং আমাদের মনোভব ঠিক রাখতে হবে।' যোগ করেন জেমি।

শুধু তাই নয়, ম্যাচে নামার আগে আরও একটি সুখবরও দিয়েছেন জেমি ডে। সেটি হলো দলের নির্ভরযোগ্য ফুটবলার টুটুল হোসেন বাদশা ইনজুরি কাটিয়ে ফিরছেন এই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটিতে।

কোচ জেমি ডে বলেন, 'বাদশা ইনজুরি কাটিয়ে দলে ফিরেছে এটি আমাদের জন্য সুখবর। আমরা ভুটানের বিপক্ষে ভালো খেলেছি। গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটির (কাতার ম্যাচ) আগে এটি দরকার ছিল। দুই ম্যাচে ভালো করার অনুপ্রেরণা নিয়ে এই ম্যাচে দুর্দান্ত খেলা উপহার দেবার জন্য অপেক্ষায় আছে ছেলেরা।'

বাংলাদেশ দলের অন্যতম ফুটবলার এবং দলীয় অধিনায়ক মিডফিল্ডার জামাল ভুইয়া বলেন, 'আমাদের প্রতিপক্ষরা বর্তমানে এশিয়ার এক নম্বর দল। আমাদের তাদের বিপক্ষে অবশ্যই নিজেদের সেরা পারফরম্যান্সটা করতে হবে। ম্যাচটা আমাদের জন্য মোটেই সহজ হবে না। সে জন্য শতভাগ দিতে হবে। তবেই ভালো কিছু করার সুযোগ থাকবে। আপনারা জানেন যে ভারত ইতোমধ্যে কাতারের সঙ্গে একটি ম্যাচ খেলেছে এবং সেটিতে তারা ড্র করেছে। ভারত যদি ড্র করতে পারে। তাহলে আমাদেরও তাদের বিপক্ষে ভালো করার সুযোগ রয়েছে।'

অন্যদিকে কাতারের কোচ ফেলিক্স সানচেজ জানালেন তারার্ যাংকিং নিয়ে ততটা মাথা ঘামাচ্ছেন না। তিনি বলেন, 'আমরা এখন শুধু আগামীকালের (আজ) ম্যাচটা নিয়ে ভাবছি। এছাড়া অন্য কিছু নিয়ে ভাবছি না। বর্তমানে এশিয়ার সকল দলই ভালো করছে।'

বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক জামাল ভুইয়া সম্পর্কে কোচ ফেলিক্স বলেছেন, 'আমি তাকে দীর্ঘদিন ধরে চিনি। সে দলের অন্যতম ফুটবলার এবং দলকে সে ভালোভাবেই প্রভাবিত করতে পারে।'

এবার দেখে নেয়া যাক ফিফার্ যাংকিং ও অতীত পরিসংখ্যান কি বলে।র্ যাংকিংয়ে প্রতিপক্ষ দলটি বাংলাদেশ থেকে ১২৫ ধাপ এগিয়ে। যেখানে বাংলাদেশেরর্ যাংকিং ১৮৭তম। কাতার আছে ৬২তম অবস্থানে।

পরিসংখ্যান বলছের্ যাংকিংয়ের মতোই বাংলাদেশের বিপক্ষে জয়ের পালস্নাটা ভারী কাতারেরই। সর্বপ্রথম দু'দলের দেখা হয় ১৯৭৯ সালে। এএফসি এশিয়ান কাপের ঐ ম্যাচটিতে দুই দল গোলশূন্য ড্র করে। এখন পর্যন্ত এটিই কাতারের বিপক্ষে বাংলাদেশের সব থেকে বড় সাফল্য। এর দীর্ঘ ২৭ বছর পর আবারো এশিয়ান কাপেই দেখা হয় দুই দলের। ২০০৬ সালের ১৬ আগস্ট অনুষ্ঠিত ঐ ম্যাচে কাতার ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিল বাংলাদেশকে। একই বছর ৬ সেপ্টেম্বর একই আসরে আবারো কাতারের কাছে ৩-০ গোলে হেরে যায় লাল-সবুজরা।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে