logo
মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ২৬ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০  

সংবাদ সংক্ষেপ

হতাশার এক গল্প রস টেলরের

ক্রীড়া ডেস্ক

লর্ডসের বিশ্বকাপ ফাইনাল হেরে যাওয়ার পর নিউজিল্যান্ডের খেলোয়াড়রা যে যার মতো করে নিজেদের কষ্টের কথাগুলো প্রকাশ করেছিলেন। চুপ করে ছিলেন কেবল রস টেলর। অবশেষে ক্রিকইনফোর কাছে মুখ খুলেছেন কিউই সাবেক অধিনায়ক। বিশ্বকাপ হতাশার কথা বলতে গিয়ে সামনে এনেছেন দীর্ঘশ্বাসে মোড়ানো এক হতাশার গল্পই।

শ্রীলংকার কাছে গল টেস্টে হেরে এখন কলম্বোতে সিরিজ বাঁচানোর লড়াইয়ে ব্যস্ত নিউজিল্যান্ড। এই হারে উইলিয়ামসনরা এখন যেমনটা কষ্টে আছেন, সাত বছর আগে তার চেয়েও বেশি বুক ভরা বেদনায় ভারাক্রান্ত ছিলেন টেলর। কারণ ২০১২ সালে এই গল থেকেই কেড়ে নেয়া হয়েছিল তার অধিনায়কত্ব।

অধিনায়কত্ব যে কেড়ে নেয়া হচ্ছে সেটা নাকি বুঝতে পেরেছিলেন টেলর। তারপরও পাহাড়সম বোঝা মাথায় নিয়ে খেলেছিলেন ১৪০ ও ৭০ রানের দুই ইনিংস। জিতিয়েছিলেন ম্যাচও। এরপরও তাকে আর নেতৃত্বে রাখেনি নিউজিল্যান্ড।

কষ্টে দুই সপ্তাহ ঘুমাতেই ভুলে গিয়েছিলেন টেলর। যে দুঃখের সঙ্গে সাত বছর পর বিশ্বকাপের ফাইনালের হারেরই কেবল তুলনা চলে বলছেন, 'প্রায় না ঘুমিয়ে দুটো সপ্তাহ পার হয়েছে আমার। সর্বোচ্চ ২ ঘণ্টার মতো ঘুমাতে পারতাম। সেই অবস্থাতেও আমি ১৪০ ও ৭০ রানের ইনিংস খেলেছি। মজার বিষয় হচ্ছে, অধিনায়কত্ব চলে যাওয়ার পর কেমন যেন হালকা হালকা লাগছিল। কোনো কোনো সময় পরিস্থিতি আপনার আওতার বাইরে চলে যাবে। তখন সেটাই হয়েছে।'

'যখন লর্ডসে আমরা হারলাম, তখন মনে গলের সঙ্গে সেই ম্যাচটার কোনো পার্থক্য ছিল না। জীবনে উত্থান-পতন থাকবেই। লর্ডসে যেটা হয়েছে ক্রিকেটে এমনটা থাকবেই।'

টেলর মুখ খুলেছেন তার জটিল কিছু চোট বিষয়েও। জানিয়েছেন, চোখের এক প্রদাহে হারিয়ে যেতে বসেছিল দৃষ্টিশক্তিই। এমনকি ক্রিকেট মাঠে নাকি বলও ঠিকমতো দেখতে পেতেন না সে সময়, 'আমার চোখের অস্ত্রোপচারের দুই সপ্তাহ পর ট্রেইনারের সঙ্গে অনুশীলনের সময় প্রথম পরিষ্কারভাবে বল দেখলাম। ক্যারিয়ারের শুরুর অনেক পর মনে হলো আমার যেন নতুন করে শুরু হলো!'

রান পাহাড়ে নিউজিল্যান্ড

ক্রীড়া ডেস্ক

আগের দিন সেঞ্চুরি তুলে নেয়া টম লাথাম থেমেছেন ১৫৪ রানে। দুই মেজাজের ব্যাটিংয়ে ফিফটি তুলে নিয়েছেন বিজে ওয়াটলিং ও কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম। ব্যাটসম্যানদের দৃঢ়তায় শ্রীলংকার বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে রানের পাহাড় গড়ছে নিউজিল্যান্ড। বৃষ্টিবিঘ্নিত চতুর্থ দিনের খেলা শেষে সফরকারীদের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৩৮২ রান। ওয়াটলিং ৮১ ও ডি গ্র্যান্ডহোম ৮৩ রানে ব্যাট করছেন। ৫ উইকেট হাতে নিয়ে ১৩৮ রানে এগিয়ে আছে কেন উইলিয়ামসনের দল।

বৃষ্টিতে ভেসে গেছে কলম্বো টেস্টে রোববারের প্রায় অর্ধেক দিনের খেলা। ৪৮ ওভারে এদিন লাথামকে হারিয়ে ১৮৬ রান যোগ করেছে নিউজিল্যান্ড। পি সারা ওভালে ৪ উইকেটে ১৯৬ রান নিয়ে দিন শুরু করা নিউজিল্যান্ড এগিয়ে যায় লাথাম ও ওয়াটলিংয়ের ব্যাটে। আগের দিন সেঞ্চুরি তুলে নেয়া ওপেনার লাথামকে এলবিডবিস্নউ করে ১৪৩ রানের জুটি ভাঙেন দিলরুয়ান পেরেরা। ১১১ রান নিয়ে দিন শুরু করা লাথাম ২৫১ বলে ১৫ চারে ফেরেন ১৫৪ রান করে।

ক্রিজে গিয়েই শট খেলতে শুরু করেন ডি গ্র্যান্ডহোম। এই অলরাউন্ডারের ব্যাটে বাড়ে রানের গতি। নিজের মতো করে খেলে এগিয়ে যান কিপার-ব্যাটসম্যান ওয়াটলিং। ষষ্ঠ উইকেটে ১৪৭ বলে দুই ব্যাটসম্যান গড়েছেন ১১৩ রানের জুটি। ৪৫ বলে ফিফটি করেন ডি গ্র্যান্ডহোম। আর ১৩২ বলে অর্ধশতক স্পর্শ করেন ওয়াটলিং। গুরুত্বপূর্ণ এই জুটিতে ৭৫ বলে পাঁচটি করে ছক্কা ও চারে ডি গ্র্যান্ডহোমের অবদান ৮৩ রান।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে