logo
বুধবার ১৭ জুলাই, ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ২১ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০  

মিরপুরে বিশ্বকাপের হাওয়া

শনিবার টাইগারদের আগমনে মুখর হয়ে ওঠে হোম অব ক্রিকেট। সবাই এসেই সমবেত হন বিসিবির জিমনেশিয়ামে। তামিম ইকবাল, রুবেল হোসেন, সৌম্য সরকার, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, মোহাম্মদ মিঠুনরা ফিটনেসে সময় কাটান

মিরপুরে বিশ্বকাপের হাওয়া
সোমবার থেকেই শুরু হবে টাইগারদের বিশ্বকাপ প্রস্তুতি ক্যাম্প। কিন্তু তার আগেই মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপের হাওয়া বইতে শুরু করেছে। নিজ উদ্যোগেই অনুশীলন শুরু করেছেন ক্রিকেটাররা। শনিবার তামিম ইকবাল, রুবেল, সাইফউদ্দিন, মিরাজসহ অন্যারা জিমে সময় কাটিয়েছেন -বিসিবি
ক্রীড়া প্রতিবেদক

দল ঘোষণা হয়ে গেছে আগেই, আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশ বিশ্বকাপের অনুশীলন শুরু করবে ২২ এপ্রিল থেকে। তবে সেই আনুষ্ঠানিকতা পর্যন্ত বসে নেই লাল সবুজের যোদ্ধারা। শুরু করে দিয়েছেন বিশ্বযুদ্ধের প্রস্তুতি। হোম অব ক্রিকেট মিরপুরে এই মুহূর্তে বইছে বিশ্বকাপের জোর হাওয়া। ক্রিকেটের মেগা আসর সামনে রেখে নিজেদের সেরা প্রস্তুতিতে ঘাম ঝরাচ্ছেন স্টিভ রোডস শিষ্যরা।

বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ক্যাম্প সামনে রেখে পরিবারের সঙ্গে ছুটি শেষে এরই মধ্যে বিসিবিতে যোগ দিয়েছেন হেড কোচ স্টিভ রোডস, পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ, ট্রেনার মারিও ভিলস্নাভারায়ন। মারিও যোগ দিয়েছেন গত ১৪ এপ্রিল। ১৮ এপ্রিল কোর্টনি। আর স্টিভ রোডস যোগ দিয়েছেন শুক্রবার। তবে ব্যাটিং কোচ নেইল ম্যাকেঞ্জি ও ফিজিও তিহান চন্দমোহন এখনো কাজে যোগ দেননি। ২৪ এপ্রিল ম্যাকেঞ্জির ঢাকা আসার কথা রয়েছে। আর তিহান আসছেন আগামীকাল। কিন্তু স্পিন কোচ সুনিল যোশি কবে আসছেন সেটি জানা যায়নি।

শনিবার টাইগারদের আগমনে মুখর হয়ে ওঠে হোম অব ক্রিকেট। সবাই এসেই সমবেত হন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের জিমনেশিয়ামে। তামিম ইকবাল, রুবেল হোসেন, সৌম্য সরকার, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, মোহাম্মদ মিঠুনরা ফিটনেসে সময় কাটান। সেখানে তাদের পথ প্রদর্শক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ট্রেনার মারিও ভিলস্নাভারায়ন।

জিমনেশিয়ামে ফিটনেস ট্রেনিং শেষ করে বিসিবি একাডেমির নেটে ব্যাটিং অনুশীলনে ঘাম ঝরিয়েছেন তামিম ইকবাল। অবশ্য মিরাজ, সৌম্য, রুবেল, সাইফউদ্দিন ও মিঠুনকে প্রস্তুতি নিতে হয়েছে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের জন্যও।

রোববার ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের চলতি আসরের হাইভোল্টেজ ম্যাচে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের মুখোমুখি আবাহনী। যেখানে রূপগঞ্জের কাছে কোনোরকম পা হড়কালেই শিরোপা হাতছাড়া হয়ে যাবে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের।

ডিপিএল শুরুর আগে কিছুটা আলোচনায় ছিল রূপগঞ্জ। কিন্তু কোচ আফতাব আহমেদ ছিলেন একপ্রকার প্রসঙ্গের বাইরে। অথচ সেই তিনিই টুর্নামেন্টের মাঝপথে, লিগ পর্বের শেষে এবং এখন সুপার লিগ শেষে দুই ম্যাচের আগেও কোচ হিসেবে আলোচনার শীর্ষে!

পারফরম্যান্সই বদলে দেয় সবকিছু। কোচ আফতাব আহমেদের দল লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ এবারের আসরে চমক দেখানো পারফরমেন্স করে চলেছে। আবাহনী লিমিটেডের বিপক্ষে রোববারের ম্যাচ জিতলেই শিরোপা উৎসব করবে রূপগঞ্জ। পয়েন্ট তালিকায় আবাহনীর চেয়ে দুই পয়েন্ট বেশি নিয়ে রূপগঞ্জ এখনো শীর্ষে। নিজ দলের এমন মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে কোচ আফতাব আহমেদকে বেশ নির্ভার দেখাল।

দলগত শক্তি, তারকার সমাহার, প্রশাসনিক খবরদারি সবকিছু মিলিয়ে আবাহনী ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগে এবারও যথারীতি বেশ প্রভাবি দল। শিরোপা নির্ধারণের এমন ম্যাচে আবাহনী প্রতিপক্ষ- এমন চিন্তায় তো প্রতিপক্ষের কোচের একটু অস্থিরই থাকার কথা।

কিন্তু আফতাব এখানেও নিঃশঙ্ক চিত্ত! বললেন- 'আবাহনী তো নিঃসন্দেহ ভালো দল। তবে আমাদের দলও অনেক ভালো ক্রিকেট খেলছে। আমরা অন্য কাউকে নিয়ে চিন্তা করছি না। শুধু একটাই চিন্তা আমাদের রোববারের ম্যাচে ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে।'

ভনিতা করে কথা বলা পছন্দ নয় রূপগঞ্জ কোচের। লিগ শুরুর আগে তাকে এবং তার দলকে কেউ তেমন ফেভারিটের তালিকায় রাখেনি, সেটাও তার ভালোই জানা ছিল। তবে সব বোদ্ধাদের হিসেব বদলে দিয়ে রূপগঞ্জ এখন লিগ শিরোপা জয় থেকে মাত্র একম্যাচ দূরে দাঁড়িয়ে! সেই প্রসঙ্গে আফতাব বলছিলেন- 'সত্যি বলতে কি শুরুতে যখন এই দল গড়েছিলাম তখনো এত আশা করিনি। কিন্তু আমি সবসময় আমার দলের মধ্যে একটা বিশ্বাস ছড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করেছি। জেতা সম্ভব। পারা সম্ভব- এই বিশ্বাস পুরোদলের মধ্যে গেঁথে গেছে।'

মাঠের ক্রিকেটে সাফল্যের জন্য পুরো দলের মধ্যে একটা শৃঙ্খলার গুরুত্ব অনেক বড় বিষয়। ভীষণ ধর্মপ্রাণ আফতাব তার দলের এই সাফল্যের জন্য শৃঙ্খলাকেও বড় উপাত্ত মানছেন- 'আমাদের এই দলে জাতীয় দলের অনেক খেলোয়াড় আছে। তবে কেউ কখনো নিজেকে আলাদা কোনোকিছু ভাবেনি। পুরো দলের নিয়ম শৃঙ্খলার সঙ্গে সবাই বেশ ভালোভাবে মানিয়ে নিয়েছে।'

রূপগঞ্জ ভালোই জানে, আবাহনী রোববারে ম্যাচ জেতার জন্য মরিয়া হয়ে উঠবে। এমনিতেই পিছিয়ে আছে আবাহনী দুই পয়েন্ট। তাছাড়া লিগ পর্যায়েও রূপগঞ্জের কাছে হেরেছিল তারা। শিরোপা ধরে রাখতে হলে এই ম্যাচে আবাহনীকে জিততেই হবে। এই সমীকরণের সূত্র ধরেই রূপগঞ্জের কোচ আফতাব জানালেন- 'বড় দলের বিপক্ষে খেলা থাকলে চাপ তো থাকবেই। তবে আমরা চেষ্টা করছি যাতে ক্রিকেটারদের ওপর কোনো চাপ তৈরি না হয়। আমাদের লক্ষ্য এই ম্যাচ থেকে দুই পয়েন্ট তুলে নেয়া। আশা করছি এই ম্যাচটিও আমরা ভালোভাবেই শেষ করতে পারব।'
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে