logo
রোববার ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২ ফাল্গুন ১৪২৫

  ক্রীড়া প্রতিবেদক   ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০  

জীবনে বঁাচল আবাহনী

জীবনে বঁাচল আবাহনী
গোলের পর ছুটছেন নাবিব নেওয়াজ জীবন। ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন ভুইয়া স্টেডিয়ামে শুরুতে পিছিয়ে পড়েও তার জোড়া গোলে ভর করে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ঢাকা আবাহনী Ñবাফুফে
বাংলাদেশ প্রিমিয়ার ফুটবল লিগের পয়েন্ট তালিকার শীষের্ পেঁৗছাতে ঢাকা আবাহনীর দরকার ছিল ৩ পয়েন্ট। ঐতিহ্যবাহীদের সেই তিনটি পয়েন্ট এনে দিলেন নাবীব নেওয়াজ জীবন। ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন ভুইয়া স্টেডিয়ামে অ্যাওয়ে ম্যাচে স্থানীয় এই ফরোয়াডর্ জোড়া গোল করেছেন, আরামবাগের বিপক্ষে। শুরুতে পিছিয়ে পড়া ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের এনে দিয়েছেন ২-১ ব্যবধানের জয়। দিনের আরেক ম্যাচে ব্রাদাসর্ ইউনিয়নকে ১-০ গোলে হারিয়েছে শেখ জামাল ধানমÐি ক্লাব।

বিদেশিদের সঙ্গে এবারের লিগে যেসব স্থানীয় ফুটবলার আলো ছড়াচ্ছেন, জীবন তাদেরই একজন। এবারের লিগে পঞ্চম গোল পেলেন এই ফরোয়াডর্। তাতে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের আইভরিয়ান ফরোয়াডর্ বাল্লো ফেমোসার সঙ্গে যৌথভাবে শীষর্ গোলস্কোরার এখন তিনি। এর আগে রহমতগঞ্জের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেছিলেন এই স্ট্রাইকার। মাঝে বিজেএমসির বিপক্ষে আবাহনীর ১-০ গোলের জয়ে কোনো অবদান রাখতে না পারলেও মঙ্গলবার আরামবাগের বিপক্ষে দুই গোল করে আবারও চমক দেখিয়েছেন এই ফরোয়াডর্।

যদিও ম্যাচের ১২ মিনিটে লিড নিয়েছিল আরামবাগই। চিনেদু ম্যাথিওয়ের পাসে বল জালে পাঠিয়ে আরামবাগকে এগিয়ে দেন আরিফুর রহমান। কিন্তু ৩১ মিনিটে জীবনের গোলে ম্যাচে সমতা আসে। এর মাত্র ৭ মিনিট পরই আবারও আরামবাগের জাল কঁাপান এই ফরোয়াডর্। নিধাির্রত সময়ে আর ম্যাচে ফিরতে পারেনি মারুফুল হকের শিষ্যরা। তাই ৩ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে লিগের বতর্মান চ্যাম্পিয়নরা। এই জয়ে ৬ ম্যাচে ১৫ পয়েন্ট হলো তাদের। পক্ষান্তরে সমান খেলায় ৯ পয়েন্ট আরামবাগের।

এদিকে, ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে গত আসরের রানাসর্আপ শেখ জামালের মুখোমুখি হয় ব্রাদাসর্ ইউনিয়ন। লড়াই গড়েও সাবেক চ্যাম্পিয়নদের সঙ্গে পেরে ওঠেনি গোপীবাগের দলটি। ম্যাচ শুরুর দ্বিতীয় মিনিটেই লিড নেয় শেখ জামাল। আজের্ন্টাইন ফরোয়াডর্ লুসিয়ানো ইমানুয়েলের পাসে বল পেয়ে ব্রাদাসের্র জাল কঁাপান ফরোয়াডর্ সাখাওয়াত হোসেন রনি (১-০)। ওই গোলটাই ব্যবধান গড়ে দেয় ম্যাচে। পরবতীর্ সময়ে ব্রাদাসর্ পারেনি সমতা টানতে। শেখ জামালও পারেনি ব্যবধান বাড়াতে।

ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ অবশ্য বেশ কয়েকবার পেয়েছে শেখ জামাল। ৩৪ মিনিটে গাম্বিয়ান সলোমন কিং কানফমের্র কনার্র বক্সে জটলায় পেয়ে কোনাকুনি হেড নেন কিরগিজ ফরোয়াডর্ ডেভিড ব্রæ। কিন্তু বল লক্ষ্যে পৌঁছাতে ব্যথর্ হন। কারণ বিপ্লব ঝঁাপিয়ে পড়ে কনাের্রর বিনিময়ে রক্ষা করেন ব্রাদাসর্ ইউনিয়নকে। ৬৭ মিনিটে বঁাপ্রান্ত দিয়ে বল নিয়ে ঢুকে কোনাকুনি শট করেন জামালের অধিনায়ক সলোমন কিং। কিন্তু বল ফিরিয়ে দেন ব্রাদাসের্র এক ডিফেন্ডার।

ম্যাচের শেষ দিকে এসে জামাল শিবিরে কিছুটা চাপ সৃষ্টি করে সৈয়দ নইমুদ্দিনের শিষ্যরা। ৮২ মিনিটে বক্সের বাইরে থেকে বাইসাইকেল কিক করেন ব্রাদাসের্র ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার এভারটন। কিন্তু বল খুঁজে পায়নি জাল। ৮৫ মিনিটে খান মো. তারার ইনডাইরেক্ট ফ্রি কিক ফিরিয়ে দেন জামালের ডিফেন্ডাররা। ইনজুরি টাইমে বক্সের সামান্য দূরে বঁাপ্রান্তে ফ্রিকিক করেন মান্নাফ রাব্বি। কিন্তু ভাঙতে পারেননি জামালের রক্ষণ দেয়াল। ফলে ১-০ গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে শেখ জামাল। এই জয়ে ১০ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানে উঠল জোসেফ আফুসির শিষ্যরা।

লিগে আজ দুটো ম্যাচ রয়েছে। দুপুর ৩টায় সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে শেখ রাসেল খেলবে চট্টগ্রাম আবাহনীর বিপক্ষে। বিকাল ৪টায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সাইফ স্পোটির্ংয়ের প্রতিপক্ষ মোহামেডান স্পোটির্ং ক্লাব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
অাইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে