logo
  • Sat, 17 Nov, 2018

  মাহবুবুর রহমান   ২০ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০  

তাজিকিস্তান গেল অনূধ্বর্-১৯ নারী দল

আন্তজাির্তক ব্যস্ততা মেয়েদের লিগে বাধা!

আন্তজাির্তক ফুটবলে এখন বাংলাদেশের বড় বিজ্ঞাপন নারী দল। বিভিন্ন টুনাের্মন্ট এবং বয়সভিত্তিক আসরে বিগত কয়েক বছর ধরেই ধারাবাহিক সাফল্য পাচ্ছে মেয়েরা। দিনকে দিন আন্তজাির্তক অঙ্গনে ব্যস্ততা বাড়ছে তাদের। এই ব্যস্ততার প্রভাব পড়ছে মেয়েদের ঘরোয়া ফুটবলে! এ বছরও হচ্ছে না লিগ। তবে মেয়েরা যাতে আথির্কভাবে একটু সহযোগিতা পায় সে লক্ষ্যে বছরের শেষে কপোের্রট লিগ আয়োজন করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। সংস্থার নারী ফুটবল কমিটির চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরণ জানালেন, আগামী বছর থেকে আবারও নিয়মিত হবে নারী ফুটবল লিগ।

শুরুর পর থেকেই অনিয়মিত মহিলা ক্লাব ফুটবল লিগ। সামগ্রিকভাবেই দেশে এই লিগ অনুষ্ঠিত হয়েছে মাত্র দু’বার। ২০১১ এবং ২০১৩ সালে। চার বছর ধরে লিগ হয়নি। এবার বাফুফে যে কপোের্রট লিগ আয়োজন করতে যাচ্ছে তাতে সব মিলে চার থেকে পঁাচটি দল খেলবে। তাই এই লিগে সব নারী ফুটবলারের খেলার সুযোগ হবে না। যদি ক্লাব ফুটবল লিগ হতো তাহলে বেশিরভাগ ফুটবলারই বিভিন্ন ক্লাবের হয়ে খেলতে পারতেন। আথির্কভাবেও লাভবান হতেন। তাছাড়া নতুন নতুন প্রতিভাও বেরিয়ে আসত। তাতে আরও শক্তিধর হতো মেয়েদের দল।

২০১৩ সালের পর দীঘর্ চার বছরেও মাঠে লিগ না থাকার কারণ কি এবং কবে আবার আয়োজন করা হবে লিগÑ এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে মহিলা ফুটবল কমিটির চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরণ বলেছেন, ‘আন্তজাির্তক ফুটবলে মেয়েদের ব্যস্ত সিডিউল। এএফসি অনূধ্বর্-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাইপবর্ শেষ করে দেশে ফিরেই তারা মিয়ানমারে খেলতে যাবে। এরপর ডিসেম্বরে সিনিয়রদের সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ। তাই এ বছর আর লিগ করা সম্ভব না। তবে মেয়েরা যাতে অথৈর্নতিক সহযোগিতা পায় তাই বছরের শেষদিকে আমরা কপোের্রট লিগ আয়োজন করব।’

শীষর্ পযাের্য় এখন যেসব মেয়ে খেলছেন তারা যথেষ্টই সামথর্বান। আথির্কভাবেও তারা লাভবান হচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান পৃষ্ঠপোষকতা দিচ্ছে তাদের। কিন্তু ঘরোয়া লিগ না হওয়াতে অন্যরা তো আথির্কভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন, অনেকেই নিজেদের সামথর্্য প্রমাণের সুযোগ পাচ্ছেন না। তাছাড়া যারা শীষর্ পযাের্য় খেলছেন তারাও খুব করে চাচ্ছেন, নারী ফুটবল লিগ নিয়মিত মাঠে থাকুক। ফরোয়াডর্ তহুরা খাতুন যেমন বলেছেন, ‘লিগ আবার যদি শুরু হয় তাহলে অনেক ভালো হবে। আমরা আরও বেশি ম্যাচ খেলার সুযোগ পাব। ক্লাব থেকে অনেক টাকা পারিশ্রমিক পাব। এতে করে আমাদের পরিবারের অনেক উপকার হবে।’

বছরজুড়েই বিভিন্ন আন্তজাির্তক টুনাের্মন্ট নিয়ে ব্যস্ত ছিল দেশের নারী ফুটবলাররা। এখন তাদের ব্যস্ততা এএফসি অনূধ্বর্-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাই পবের্। ওই আসরে অংশ নিতে বৃহস্পতিবার ভোর রাতে তাজিকিস্তানের দোসানবের উদ্দ্যেশ্যে দেশ ছেড়েছে দল। সেখানে তারা খেলবে শক্তিধর দক্ষিণ কোরিয়া, চাইনিজ তাইপে এবং স্বাগতিক তাজিকিস্তানের বিপক্ষে। ফিরে এসে বাংলাদেশের মেয়েরা যাবে (৮ নভেম্বর) মিয়ানমারে, ২০২০ অলিম্পিক বাছাইয়ে অংশ নিতে। এরপর ডিসেম্বরে শ্রীলংকায় সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ। ১৭ থেকে ২৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় সাফে বাংলাদেশ খেলবে ‘এ’ গ্রæপে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
অাইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে