logo
শনিবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

  যাযাদি ডেস্ক   ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

মাদক ও অনিয়মের বিরুদ্ধে অভিযান চলবে: তথ্যমন্ত্রী

মাদক ও অনিয়মের বিরুদ্ধে অভিযান চলবে: তথ্যমন্ত্রী
শুক্রবার চট্টগ্রামের থিয়েটার ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ -যাযাদি

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, দেশে মাদক ও অনিয়মের বিরুদ্ধে অভিযান হচ্ছে। ঢাকায় অভিযান চলছে, চট্টগ্রামেও শুরু হবে। এটি অব্যাহত থাকবে। এক্ষেত্রে দলমত দেখা হচ্ছে না। কারণ অনিয়ম দেশকে পিছিয়ে দেয়। শুক্রবার বিকাল চারটায় থিয়েটার ইনস্টিটিউট চট্টগ্রাম (টিআইসি) মিলনায়তনে আন্তঃস্কুল জাতীয় টেলিভিশন বিতর্ক প্রতিযোগিতা উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্র দেশের ৪৮টি বিদ্যালয়ের বিতর্ক দল নিয়ে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। মন্ত্রী বলেন, এ প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্র বড়ো কাজ হাতে নিয়েছে। প্রতিযোগিতা যেন চট্টগ্রামে সীমাবদ্ধ না থাকে। এটি জাতীয় টেলিভিশন কেন্দ্র। দেশে অনেক টেলিভিশন থাকলেও সবাই বিতর্ক প্রতিযোগিতা করে না। যুক্তিভিত্তিক সমাজ গঠনে বিশ্বাস করি। বিতর্ক ছাড়া সেটি সম্ভব নয়। স্কুল বিতর্ক প্রতিযোগিতা এক্ষেত্রে সহায়ক। তাদের পরিশীলিত করতে ভূমিকা রাখবে। আমি মনে করি শুধু মেধা বিকাশে ভালো মানুষ গড়া সম্ভব নয়। শিক্ষক ও অভিভাবকদের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আমি শিক্ষকদের অনুরোধ জানাব, আমরা উন্নত দেশ রচনা করতে চাই। ১০-১৫ বছর পর এ শিক্ষার্থীরা সিদ্ধান্ত নেবে। তাদের মূল্যবোধ ও দেশপ্রেমের বীজ বপন করতে হবে। সাড়ে সাত বছর বয়সে বাবা ওয়াদা করিয়েছিলেন, জীবনে সিগারেট না খাওয়ার। আমি সেই ওয়াদা রেখেছি। আমি জীবনে তাস খেলিনি। শিখিইনি। তোমরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আসক্ত হবে না। বিল গেটস তার সন্তানদের ১৬ বছরের আগে স্মার্টফোন দেননি। আমাদের অনেকে আইফোন কিনে দিই। সন্তানের বায়না পূরণ করি। শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, অনেক সময় শুনি ছেলেরা বড় ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, আইনজীবী হচ্ছে। কিন্তু মা বাবার খবর নিচ্ছে না। তোমরা মনে রাখবে, মা বাবা কোলে পিঠে মানুষ করেছে। তোমরা যখন বড় হবে তখন তারা তোমাদের সন্তানের মতো হয়ে যাবে। তাদের সেবা করবে। তিনি বলেন, আমি যখন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তাম তখন দেশে একটি টেলিভিশন ছিল। সেখানে বিতর্ক ছিল প্রেসট্রিজিয়াস। আমার হলের পক্ষ থেকে সেই প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলাম। অনেক বছর, দেড় দশক বন্ধ ছিল। আমাকে প্রধানমন্ত্রী তথ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেয়ার পর আবার চালু করেছি। বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রও বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করছে যাতে ঢাকারও কয়েকটি বিদ্যালয় অংশ নিচ্ছে। বিশেষ অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য ওয়াসিকা আয়েশা খান, তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. আজহারুল হক ও মো. নুরুল করিম। সভাপতিত্ব করেন বিটিভির মহাপরিচালক এসএম হারুনুর রশিদ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে