logo
শনিবার ২৪ আগস্ট, ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ০৩ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০  

চট্টগ্রামে হাটে আসছে কোরবানির পশু

চট্টগ্রামে হাটে আসছে কোরবানির পশু
ঈদুল আজহা উপলক্ষে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে চট্টগ্রাম বন্দরনগরের পশুর হাটগুলোতে ট্রাকে করে নেয়া হচ্ছে কোরবানির পশু -যাযাদি

যাযাদি ডেস্ক ঈদুল আজহা উপলক্ষে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে বন্দরনগরের পশুর হাটগুলোতে আসতে শুরু করেছে কোরবানির পশু। এখনো বেচাকেনা শুরু না হলেও লাভের আশায় বেপারিরা আগেভাগেই হাটে নিয়ে এসে গরু-মহিষের পরিচর্যা করছেন। কেউ খাওয়াচ্ছেন খড়, রং লাগাচ্ছেন শিংয়ে আর কেউবা পানিতে ধুয়ে দিচ্ছেন পশুর শরীর। নগরের সবচেয়ে বড় পশুর হাট সাগরিকা ও বিবিরহাটে ট্রাকে আসছে পশু। উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলা থেকে কোরবানির পশু নিয়ে আসা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বেপারিরা। এবারের ঈদুল আজহায় চট্টগ্রামে ৭ লাখ ২০ হাজার পশু কোরবানি হবে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন প্রাণিসম্পদ বিভাগের কর্মকর্তারা। চট্টগ্রামের দেশীয় গরু দিয়েই কোরবানির পশুর চাহিদা মেটানো সম্ভব বলে জানান তারা। দেশের অন্যান্য অঞ্চলের মতো চট্টগ্রামে খামারি ও পারিবারিকভাবে গরু উৎপাদন বেড়েছে। নগর ছাড়াও জেলার পটিয়া, চন্দনাইশ, আনোয়ারা, বাঁশখালী, লোহাগাড়া, সাতকানিয়া, মিরসরাই, সীতাকুন্ড, সন্দ্বীপ, হাটহাজারী, রাউজান, রাঙ্গুনিয়া, ফটিকছড়ি, বোয়ালখালীতে খামারি ও ব্যক্তি উদ্যোগে পশু পালন বেড়েছে। এই ধারা অব্যাহত থাকলে ভবিষ্যতে চট্টগ্রাম পশুপালনে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করবে। কোরবানির মৌসুমে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী কৃত্রিম উপায়ে পশু মোটাতাজা করেন। এসব পশুর মাংস মানবদেহের জন্য চরম ক্ষতিকর বলে জানান চট্টগ্রামের জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ রেয়াজুল হক তিনি বলেন, চট্টগ্রামে এবার ৭ লাখ ২০ হাজার ৯৫৭টি পশুর চাহিদা রয়েছে। গত বছর এ সংখ্যা ছিল ৬ লাখ ৫৫ হাজার ৪১৫টি। এ বছর চট্টগ্রাম জেলায় মোট গবাদিপশু (গরু) রয়েছে চার লাখ ১৪ হাজার ৩৮৭টি। চট্টগ্রামের বাইরে থেকে আরও ২ লাখ ৫০ হাজার পশু আসবে। সবমিলিয়ে চট্টগ্রামে চাহিদা অনুযায়ী আমরা পশু পাবো। দেশের বিভিন্ন স্থানে এবার বিপুলসংখ্যক কোরবানির পশু রয়েছে। এসব পশুর একটি বড় অংশ চট্টগ্রামের বাজারে চলে আসবে। যা দিয়ে ঘাটতি পূরণ হয়ে যাবে। ফলে এবার দেশের বাইরে থেকে কোরবানির পশু আনার প্রয়োজন নেই বলে জানান ডা. মোহাম্মদ রেয়াজুল হক। চট্টগ্রামের সবচেয়ে বড় পশুর বাজার সাগরিকা পশুর হাটে গিয়ে দেখা যায়, কুষ্টিয়া থেকে বড় ট্রাকে করে আনা গরুগুলো নামানো হচ্ছে। বেপারিরা জানান, বন্যায় পশুর খাদ্য সংকট দেখা দেয়ায় আগেভাগে গরু হাটে নিয়ে এসেছি। গত বছরের তুলনায় এ বছর গরুর দাম বেশি। কোরবানিতে সাগরিকা হাটে প্রতিবছর হাজার হাজার গরু-মহিষ ও ছাগল কেনাবেচা হয়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে