logo
শনিবার ২০ জুলাই, ২০১৯, ৫ শ্রাবণ ১৪২৬

  যাযাদি রিপোর্ট   ২৭ জুন ২০১৯, ০০:০০  

ব্যাংক লুট করে জনগণের করের টাকায় তা পূরণ করা হচ্ছে: খসরু

ব্যাংক লুট করে জনগণের করের টাকায় তা পূরণ করা হচ্ছে: খসরু
বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত সভায় বক্তৃতা করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী -ফোকাস বাংলা

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, 'একদিকে ব্যাংক লুটপাট হচ্ছে, আর অন্যদিকে জনগণের দেওয়া করের টাকায় তা কাভার (পূরণ) করা হচ্ছে। দেশের টাকায় কুলাচ্ছে না, এখন ঋণ করতে হচ্ছে। সব জায়গায় ঋণ করতে করতে এমন অবস্থা এখন, ব্যাংকে টাকাই নেই। এই যে একটা অর্থনৈতিক কাঠামো দেশে সৃষ্টি করেছে, সাধারণ মানুষের অর্থ লুটপাট করে তাদের কিছু সীমিত দলীয় ব্যবসায়ী মিলে একটি চক্র সৃষ্টি হয়েছে। এটা হচ্ছে আজকে দেশের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। এখান থেকে বের হতে হলে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে।' বুধবার (২৬ জুন) জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। গরিবের টাকা লুট করে বড়লোকদের মধ্যে বিতরণ চলছে মন্তব্য করে আমির খসরু বলেন, 'রবিনহুড বড়লোকদের থেকে টাকা নিয়ে গরিবদের দিত। এখন বাংলাদেশে নতুন রূপ দেখা যাচ্ছে। একটা দেশের সম্পদের ওপর সব নাগরিকের অধিকার থাকে। সুশাসন থাকলে সম্পদের বন্টন গ্রহণযোগ্য পর্যায়ে করা যায়। কিন্তু বাংলাদেশে রবিনহুডের বিপরীত দিক দেখতে পাচ্ছি। এখানে গরিবের টাকা, কর্মজীবীদের টাকা লুটপাট করে বড়লোকদের মধ্যে বিতরণ করার একটা প্রক্রিয়া দেখছি। বড়লোক মানে আবার দলীয় বড়লোক হতে হবে, সাধারণ বড়লোক হলে চলবে না।' ভ্যাটের আওতা বাড়ানো প্রসঙ্গে তিনি বলেন, 'গরিব মানুষ, মধ্যবিত্ত মানুষ, নিম্ন মধ্যবিত্ত মানুষ যেসব জায়গায় তাদের টাকা খরচ করবে, সেসব জায়গায় ভ্যাট বসিয়ে দিয়েছে। তারা বলছে, ৭ শতাংশ। কিন্তু মূলত ২১ শতাংশ ভ্যাট বসানো হয়েছে। যে লোক কম আয়ের কারণে ট্যাক্সের আওতায় আসে না, তাকেও এই ভ্যাট দিতে হচ্ছে। এটা অনেক বড় একটি অন্যায়।' আমির খসরু বলেন, 'ভোটাধিকারের জন্য নির্বাচনে গিয়েছিলাম। কিন্তু মধ্যরাতের ভোটের মাধ্যমে জনগণের ভোটাধিকার হরণ করে ক্ষমতা দখল করা হয়েছে। এ বিপর্যয় দেশের মানুষের গণতন্ত্রের বিপর্যয়, বিএনপির নয়। নেতাকর্মীদের ইচ্ছের বিরুদ্ধে বিএনপি সংসদেও গিয়েছে গণতন্ত্রের স্বার্থে। গণতন্ত্রকে এগিয়ে নিতে এই মুহূর্তে খালেদা জিয়ার মুক্তি অপরিহার্য।'

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে