logo
বৃহস্পতিবার, ২৮ মে ২০২০, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

  শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা   ১১ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০  

শাহজাদপুরে ৪ মাস ধরে দলিল রেজিস্ট্রি বন্ধ স্থানীয়দের ভোগান্তি চরমে

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে সাব-রেজিস্ট্রার না থাকায় প্রায় ৪ মাস ধরে দলিল রেজিস্ট্রি বন্ধ রয়েছে। এতে করে জনগণের চরম ভোগান্তির সৃষ্টি হয়েছে। ফলে সরকার কয়েক কোটি টাকার রাজস্ব হারাচ্ছে।

জানা গেছে, শাহজাদপুর সাব-রেজিস্ট্রার সুব্রত কুমার দাস প্রায় ৪ মাস আগে ঘুষ গ্রহণের অভিযোগে বরখাস্ত হন। এরপর থেকেই পদটি শূন্য হয়ে আছে। এদিকে, জেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশি দলিল রেজিস্ট্রি হয় শাহজাদপুর উপজেলায়। এখানে নিয়মিত অফিস হলে প্রতিদিন ৭০ থেকে ৮০টি রেজিস্ট্রি হতো। অথচ প্রায় ৪ মাস ধরে সম্পূর্ণভাবে দলিল রেজিস্ট্রি বন্ধ হওয়ায় এ অফিস এখন রেজিস্ট্রিশূন্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। এতে প্রায় ২৫০ জনের মতো দলিল লেখক, নকলনবিশসহ অনেকেই বেকার হয়ে পড়েছেন। তাদের চোখেমুখে হতাশার চিহ্ন।

উপজেলা দলিল লেখক সমিতির সভাপতি আব্দুস সাত্তার, সাধারণ সম্পাদক মহির উদ্দিন, উপদেষ্টা আব্দুর রশিদ জানান, প্রায় ৪ মাস ধরে দলিল রেজিস্ট্রি না হওয়ায় জনগণ চরম বিপদের মুখে পড়েছে। বিশেষ করে অসুস্থ রোগী, বিদেশগামী অনেক পরিবার এবং গ্রামের অসহায় সাধারণ মানুষ ছাড়াও যারা হজ করতে যাবে তাদের জন্য বিশাল সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। তারা জমি বিক্রি করতে না পেরে ক্ষোভে-বিক্ষোভে ফেটে পড়ছে। এ সমস্যা কতদিন চলবে কেউ বলতে পারে না। অনেকে নকল তুলতে পারছে না। এ রকম অনেক সমস্যায় পড়ছে সাধারণ মানুষ। দলিল লেখক মানিক হোসেন, হাচেন আলী, শিমুল হোসেন, জাহিদ হোসেন, মোক্তার হোসেন, রফিকুল ইসলাম প্রমুখ জানান, এখানে নকলনবিশ রয়েছেন ৩৫ জন, লাইসেন্সধারী দলিল লেখক ৯০ এবং সহকারী দলিল লেখক ১০০ জন। তারা জীবন যাত্রা ও পরিবার পরিজন নিয়ে চরম বিপাকে পড়েছেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ মো. শামসুজ্জোহা জানান, এ বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ ও জেলা রেজিস্ট্রি অফিসারকে জানানো হয়েছে। এখানে দলিল রেজিস্ট্রি ও নামজারি বন্ধ হওয়ায় জনগণের চরম ভোগান্তি হচ্ছে। বিষয়টি দ্রম্নত সমাধান হওয়া প্রয়োজন নয়তো জনগণ আরও সমস্যায় পড়বে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে