logo
সোমবার, ২৫ মে ২০২০, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

  যাযাদি রিপোর্ট   ১১ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০  

সংবিধান লঙ্ঘন মানে বঙ্গবন্ধুকে অসম্মান করা : ড. কামাল

সংবিধান লঙ্ঘন মানে বঙ্গবন্ধুকে অসম্মান করা : ড. কামাল
ড. কামাল হোসেন
জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বাক্ষরিত দলিল সংবিধান বাংলাদেশের জাতীয় জাদুঘরে রাখা আছে। প্রত্যেক স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের এই দলিল দেখানো উচিত। এই স্বাধীন বাংলাদেশের জনগণ যদি গণতন্ত্র, ভোটাধিকার ও মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত হয় তাহলে বঙ্গবন্ধুকে অসম্মান করা হয়।

শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবে গণফোরাম আয়োজিত 'বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস ১০ জানুয়ারি ৭২, অকথিত ঘটনাবলি' শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্তির পর ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু করাচি থেকে লন্ডন ও দিলিস্ন হয়ে দেশে ফেরেন। সে সময় তার সঙ্গী ছিলেন তরুণ রাজনীতিবিদ ও আইনজীবী কামাল হোসেন।

সেদিনের কথা মনে করে ড. কামাল বলেন, 'এটা বিশেষ দিন। একসঙ্গে আমরা ফিরে এসেছি। আমার জন্য দিনটা আনন্দের।' তিনি স্মৃতিচারণা করে বলেন, 'আমরা অসাধারণ এক নেতৃত্ব পেয়েছিলাম। সেই নেতৃত্বের কারণেই আমাদের স্বাধীনতা সম্ভব হয়েছিল। বাংলাদেশ যত দিন থাকবে, ওনাকে (বঙ্গবন্ধু) সবাই শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে।'

১৯৭৫ সালে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করা হয়। সে প্রসঙ্গে কামাল হোসেন বলেন, 'দুঃখ লাগে, অন্যান্য দেশের জাতির জনক ২০-৩০ বছর সরকারপ্রধান হিসেবে থাকেন, আমাদের দুর্ভাগ্য যে ওনাকে খুব কম সময়ের মধ্যে হারিয়েছি। আমাদের সবচেয়ে বড় ব্যর্থতা হলো ওনাকে বাঁচিয়ে না রাখতে পারা। বঙ্গবন্ধুকে হারানো দেশের অপূরণীয় ক্ষতি।'

বঙ্গবন্ধু অন্যায়ের ব্যাপারে আপস করেননি উলেস্নখ করে ড. কামাল বলেন, কোনো অন্যায় দেখলে তার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। স্বাধীনতা মানে সব জনগণের, কোনো ব্যক্তির নয়। এখানে স্বৈরতন্ত্র থাকার কোনো অবকাশ নেই। নির্ভেজাল গণতন্ত্র থাকবে।

বিচার বিভাগের স্বাধীনতার গুরুত্ব উলেস্নখ করে ড. কামাল বলেন, বিচারকরা ঝুঁকি নিয়ে বিচার বিভাগের স্বাধীনতা রক্ষায় কাজ করে যাচ্ছেন। সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাকে লাঞ্ছিত, অপমানিত করা হয়েছিল। কিন্তু তিনি সত্য বলতে পিছপা হননি। তিনি দেশ ছেড়ে গেছেন। তার বিরুদ্ধে মামলা হওয়া লজ্জার। যারা এসব করেন তাদের বিবেকবোধ নেই, সংবিধানের প্রতি শ্রদ্ধা নেই।

আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি আবু সাইয়িদ ও সুব্রত চৌধুরী, সভাপতিমন্ডলীর সদস্য মোকাব্বির খান, মহসিন রশীদ ও জগলুল হায়দার, যুগ্ম সম্পাদক মোশতাক আহমেদ প্রমুখ।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে