logo
মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ০৪ এপ্রিল ২০২০, ০০:০০  

গোবিন্দগঞ্জে বালু উত্তোলনে হুমকির মুখে তিন সেতু

গোবিন্দগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় অবৈধভাবে ভূগর্ভস্থ বালু উত্তোলন এবং নদীর চরের বালু চুরি করে বিক্রি করায় দেওয়ানতলা রেলসেতুসহ তিনটি বড় সেতু হুমকির সম্মুখীন হয়ে পড়েছে। উপজেলার মহিমাগঞ্জে সতীতলা মজিদেরঘাট, দেওয়ানতলা বাঁধ ও দেওয়ানতলা রেলসেতু এলাকা থেকে দীর্ঘদিন ধরে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে।

মহিমাগঞ্জ দেওয়ানতলা ও সতীতলা এলাকা ঘুরে জানা গেছে, উপজেলার সঙ্গে পার্শ্ববর্তী সাঘাটা, ফুলছড়ি এবং গাইবান্ধা সদরের যোগাযোগের মাধ্যম দেওয়ানতলা সড়ক সেতু এবং রেলসেতু এলাকায় একশ্রেণির স্বার্থন্বেষী বালু ব্যবসায়ী নদী থেকে শ্যালো মেশিন দিয়ে ভূগর্ভস্থ বালু উত্তোলন করছে। এতে ওই এলাকার রেলসেতু এবং দেওয়ানতলা সড়ক সেতুটি মারাত্মক হুমকির মুখে পড়েছে।

এ ছাড়াও একই এলাকায় সামান্য দূরে অবস্থিত মজিদেরঘাট এলাকায় ভূগর্ভস্থ ও নদীচরের মাটি চুরি করে অবাধে বিক্রি করছে স্থানীয় বালুদসু্যরা। এতে একদিকে যেমন গুরুত্বপূর্ণ সড়কসেতু ধসে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে অন্যদিকে এলাকার জনবসতি এবং আবাদি জমি ধ্বংস হওয়ার আশঙ্কা করছে স্থানীয়রা। ইতোমধ্যেই বেশকিছু আবাদি জমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এ ছাড়াও ট্রাক্টর বালুবোঝাই করে দিনরাত দাপিয়ে বেড়াচ্ছে বিভিন্ন সড়কে। এতে ঘটছে নানা ধরনের দুর্ঘটনা এবং নষ্ট হচ্ছে রাস্তাঘাট। ট্রাক্টরের বালু পড়ে বালুময় হয়ে পড়েছে বেশকিছু সড়ক। যানবাহন চলাচলের ফলে ধুলোয় অন্ধকার হয়ে পড়ছে গোটা এলাকা। ইতোমধ্যে প্রশাসনের উদ্যোগে দেওয়ানতলা এলাকায় অভিযান চালিয়ে বেশ কয়েকটি শ্যালো মেশিন ধ্বংস করা হলেও আবারও বালু উত্তোলনের মহোৎসব গুরু করেছে বালুদসু্যরা। অবিলম্বে স্থানীয় জনবসতি, আবাদি জমি এবং এলাকার গুরুত্বপূর্ণ একটি রেলসেতুসহ বৃহৎ তিনটি সেতু রক্ষায় প্রশাসনকে কঠোর ও কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণের আবেদন জানিয়েছে সচেতন মানুষ।

এ বিষয়ে মহিমাগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান রুবেল আমিন শিমুল জানান, দীর্ঘদিন ধরে বালু উত্তোলন করায় তিনটি গুরুত্বপূর্ণ সেতু হুমকির মুখে পড়েছে। তাই এসব বালুদসু্যর বিরুদ্ধে দ্রম্নত কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে