logo
শনিবার ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১ পৌষ ১৪২৫

  ডিএম কামরুল ইসলাম, সাতক্ষীরা   ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০  

আউশ ঘরে তুলতে ব্যস্ত চাষি

আউশ ঘরে তুলতে ব্যস্ত চাষি
জমিতে ধান কাটছেন কৃষক
সাতক্ষীরা জেলায় আউশ ধান ঘরে তুলতে শুরু করেছে চাষিরা। অন্য যেকোনো বছরের তুলনায় এ বছর জেলায় আউশের বাম্পার ফলন হয়েছে। কয়েক দিন তেমন বৃষ্টিপাত না হওয়ায় চাষিরা দ্রæত আউশ ধান কাটার পর মাড়াই করে তা বস্তায় সংরক্ষণের চেষ্টা করছেন। দামও ভালো পাওয়ায় বেশ খুশি চাষিরা।

চাষিদের অভিযোগ, প্রতি বছর আউশ ধান ঘরে তুলতে তাদের ব্যাপক বিড়ম্বনার শিকার হতে হয়। পানির মধ্য থেকে আউশ ধান কাটতে হয়। এতে খরচ হয় দ্বিগুণ। সরকারের দেয়া আউশের প্রণোদনা প্রান্তিক আউশচাষিদের মাঝে বিতরণ করা হয় না। যদি আউশের প্রণোদনা উপযুক্ত চাষিদের মাঝে বিতরণ করা হয় তাহলে উৎপাদন দ্বিগুণ বাড়বে বলে কৃষকদের অভিমত। কম খরচ, অল্প পরিচযার্, বিনামূল্যে কৃষি উপকরণ প্রদানসহ সীমিত সময়ে ধান তুলতে পারায় সাতক্ষীরায় দিন দিন আউশের আবাদ বাড়ছে। সরকারের পক্ষ থেকে প্রান্তিক পযাের্য়র কৃষকদের বিনামূল্যে বীজ, সার ও সেচ সহায়তা প্রদান করা হয়। একই জমিতে আবার আমনের চাষও করবে অনেক কৃষক। ফলে কমর্সংস্থানের সুযোগ সুষ্টি, খাদ্যঘাটতি হ্রাস এবং দারিদ্র্য হ্রাস পাচ্ছে জেলাতে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ জানায়, প্রান্তিক পযাের্য়র কৃষকরা সরকারিভাবে বীজ, সার ও নগদ টাকা দেয়ার কারণে জেলাতে আউশের আবাদ ও উৎপাদন বেড়েছে।

কৃষকেরা জানান, বোরোর তুলনায় আউশ চাষে খরচ অনেক কম। জমি চাষ, রোপণ, সেচ, সার ও কীটনাশক বাবদ বিঘাপ্রতি সবোর্চ্চ ছয় হাজার টাকা খরচ হয়। এ কারণে প্রান্তিক কৃষকরাও আউশ চাষে ঝুঁকছেন। তবে সরকারি প্রণোদনা পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ করেছেন একাধিক কৃষক।

সাতক্ষীরা জেলা কৃষি স¤প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক কৃষিবিদ কাজি আব্দুল মান্নান জানান, অন্যান্য বছরের তুলনায় চলতি মৌসুমে সাতক্ষীরায় আউশ ধানের ফলন ভালো হয়েছে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
অাইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে