logo
শনিবার, ০৪ জুলাই ২০২০, ২০ আষাঢ় ১৪২৬

  সীতাকুন্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   ০৪ জুন ২০২০, ০০:০০  

সীতাকুন্ডে গণপরিবহণে স্বাস্থ্যবিধি অমান্য

সীতাকুন্ডে গণপরিবহণে স্বাস্থ্যবিধি অমান্য
চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডে গণপরিবহণে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে যাত্রী পরিবহণ করা হচ্ছে -যাযাদি
ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সীতাকুন্ড অংশে গণপরিবহণে নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি পুরোপুরি মানছেন না পরিবহণ শ্রমিক ও সাধারণ যাত্রীরা। তাদের কেউ কেউ মাস্কও ব্যবহার করছেন না। এতে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি আরও বাড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। এদিকে দ্বিগুণ ভাড়া নিয়েও চলছে তর্কবিতর্ক। বুধবার সরেজমিন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বিভিন্নস্থানে এমন চিত্রই দেখা যায়।

গণপরিবহণে ৬০ শতাংশ ভাড়া বর্ধিত করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হলেও অনেকেই তা মানছেন না। কোনো কোনো সময় যাত্রীদের কাছ থেকে ১০০ শতাংশ বেশি ভাড়া রাখা হচ্ছে। এর কোনো প্রতিকার পাওয়া যাচ্ছে না।

বাধ্য হয়ে যাত্রীদের বাড়তি ভাড়া দিয়েই গন্তব্যে যেতে হচ্ছে। অনেকেই আবার অতিরিক্ত ভাড়ার প্রতিবাদ করে পরিবহণ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েন। তবে বাস-মিনিবাস ও হিউম্যান হলার মালিক সমিতির নেতাদের দাবি, সরকার যে ৬০ শতাংশ ভাড়া বর্ধিত করেছে তা মেনেই তারা ভাড়া রাখছে।

সীতাকুন্ড-অলংকার রুটের পরিবহণের যাত্রী আনোয়ার হোসেন জানান, লকডাউন শেষে কর্মস্থলে যোগ দিতে ঢাকায় যাচ্ছেন। কিন্তু পরিবহণে দ্বিগুণ ভাড়া দাবি করছে। সমস্যাটি সমাধানে সরকারের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি। জেলা বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ হানিফ বলেন, অসচেতনতার কারণে যাত্রীরা স্বাস্থ্য সচেতনতা মানছেন না। বাস-মিনিবাস ও হিউম্যান হলার মালিক সমিতির সভাপতি মো. রফিক বলেন, সরকার যে ৬০ শতাংশ ভাড়া বর্ধিত করেছে তা মেনেই ভাড়া রাখছেন। স্বাস্থ্যবিধি মেনেই স্বল্পসংখ্যক যাত্রী নিয়ে মহাসড়কের গণপরিবহণ বিভিন্ন রুটে চলছে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে