logo
শনিবার ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬

  যাযাদি ডেস্ক   ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

ধর্মীয় অনুভূতির এক মামলায় লতিফ সিদ্দিকী খালাস

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে মাগুরায় করা একটি মামলায় খালাস পেয়েছেন সাবেক ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী। বুধবার মাগুরার মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালত-২-এর বিচারক মাহবুবা শারমীন এ রায় দেন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী ওয়াশিকুর রহমান কলেস্নাল বলেন, 'এ রায়ে আমরা অসন্তষ্ট। কারণ মামলাটি দায়েরের পর আদালত লতিফ সিদ্দিকীকে সশরীরে মাগুরা আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন। কিন্তু লতিফ সিদ্দিকী এ পর্যন্ত আদালতে হাজির হননি। বাদী এ রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন।'

২০১৪ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক সিটির জ্যাকশন হাইটস হোটেলে এক অনুষ্ঠানে লতিফ সিদ্দিকী মহানবী হযরত মুহম্মদ (সা.), পবিত্র হজ, তাবলিগ জামাত সম্পর্কে অবমাননাকর ও বিতর্কিত মন্তব্য করেন বলে মামলায় অভিযোগ।

এ অভিযোগে ২০১৪ সালের ১৬ অক্টোবর মাগুরা সদরের বগিয়া গ্রামের বাসিন্দা সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি সৈয়দ রফিকুল ইসলাম তুষার তার বিরুদ্ধে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানার অভিযোগে আদালতে এ মামলাটি দায়ের করেন। ২০১৮ সালের ৭ মার্চ মামলায় অভিযোগ গঠন করা হয়।

২০১৪ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে টাঙ্গাইল সমিতির ওই অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের তৎকালীন সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিমন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী প্রধানমন্ত্রীর পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয়ের প্রসঙ্গেও বিরূপ মন্তব্য করেন।

এরপর তাকে দলের সভাপতিমন্ডলীর পদ ও মন্ত্রিত্ব থেকে অবসর দেয়া হয় এবং দল থেকে বহিষ্কার করা হয়।

টাঙ্গাইল-৪ আসনে চার বারের সংসদ সদস্য লতিফ সিদ্দিকী ২০০৯ সালে শেখ হাসিনার সরকারে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রীর দায়িত্ব নিয়ে পাঁচ বছর তা পালন করেন। ২০১৪ সালে আওয়ামী লীগ পের সরকার গঠন করলে তিনি দুই মন্ত্রণালয় ডাক ও টেলিযোগাযোগ এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির দায়িত্ব পান। কিন্তু তা পালনের এক বছর না পেরোতেই বিদায় নিতে হলো তাকে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে