logo
রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ৪ কার্তিক ১৪২৬

  বিনোদন রিপোর্ট   ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

তবুও চলছে বিদেশি সিরিয়াল

তবুও চলছে বিদেশি সিরিয়াল
তুর্কি সিরিয়াল 'জান্নাত'র একটি দৃশ্য
দেশীয় টিভি চ্যানেলে বিদেশি সিরিয়াল প্রচার বন্ধ করার দাবিতে দীর্ঘদিন ধরেই ক্ষোভ প্রকাশ করে আসছেন ছোট পর্দার অভিনয়শিল্পী, নির্মাতা ও কলাকুশলীরা। এ নিয়ে টিভি চ্যানেল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক হয়েছে তাদের। এমনকি বিদেশি সিরিয়াল প্রচার বন্ধের দাবিতে রাজপথেও আন্দোলন করেছে শিল্পী, পরিচালক ও প্রযোজকসহ বিভিন্ন সংগঠনের সংগঠনগুলো। কিন্তু তারপরও থেমে নেই বাংলায় ডাবিংকৃত তুর্কি তথা বিদেশি সিরিয়ালের সম্প্রচার। বরং সময়ের সঙ্গে সঙ্গে ক্রমশ বাড়ছে সিরিয়ালের সংখ্যা। যদিও এসব সিরিয়ালের বেশিরভাগই অভাবনীয় কোনো সাড়া ফেলতে পারছে না দর্শকের মাঝে, তবুও প্রায় প্রতিটি চ্যানেলেই দেখা মিলছে নিত্যনতুন বিদেশি সিরিয়ালের।

এ নিয়ে অনেকটা প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে গেছে বেসরকারি টিভি চ্যানেলগুলোর মাঝে। এর মধ্যে সবেচেয়ে এগিয়ে আছে দীপ্ত টেলিভিশন। বিটিভির পর বিদেশি সিরিয়াল প্রচার করে আলোচনায় আসে স্যাটেলাইট চ্যানেলটি। 'সুলতান সুলেমান' প্রচারের পরপরই দর্শকদের মধ্যে সারা ফেলে দেয় দীপ্ত টিভি। এরপর প্রচারে আসে 'সুলতান সুলেমান কোসেম'। এটিও সফলতার সঙ্গে সম্প্রচার শেষ হওয়ার পর দর্শকদের জন্য দীপ্ত টিভি নিয়ে আসে সম্পূর্ণ ভিন্নধারার একটি রোমাঞ্চকর ধারাবাহিক 'এইযেল'।

জনপ্রিয় টিভি সিরিজ 'হারকিউলিস'। দীর্ঘদিন বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রচারিত বাংলায় ডাবিং করা এই মার্কিন সিরিজে বুঁদ হয়ে থাকত দর্শক। দীর্ঘদিন পর গত ফেব্রম্নয়ারি থেকে 'হারকিউলিস' ফের প্রচারে আনে মাছরাঙা টেলিভিশন। গত বছরের নভেম্বর থেকে নাগরিক টিভিতে প্রচার শুরু হয় বাংলায়ডাবিংকরা বিদেশি ধারাবাহিক 'সম্রাট জাহাঙ্গীর: নূরজাহান'। এদিকে 'ইউসুফ জুলেখা' শেষ হতে না হতেই এস এ টিভিতে প্রচার হচ্ছে 'বিবি মরিয়ম ও ঈসা' সিরিয়াল। আবার সম্প্রতি এটিএন বাংলায় শুরু হয়েছে বাংলায় ডাবিংকৃত তুর্কি ধারাবাহিক 'জান্নাত'। রবি থেকে বৃহস্পতিবার রাত ৯টা ২০ মিনিটে প্রচারিত হচ্ছে। কোরীয় জনপ্রিয় ধারাবাহিক টিয়ার্স অব হ্যাভেন-এর কাহিনি অবলম্বনে জান্নাত পরিচালনা করেছেন তুর্কি নির্মাতা সাদুলস্নাহ জেলেন। ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর মাস থেকে ধারাবাহিকটি প্রচারিত হয়েছে তুরস্কের শীর্ষস্থানীয় চ্যানেল এটিভিতে। বাংলাদেশে সিরিয়ালটি প্রচারে আসার আগে রাজধানীজুড়ে ব্যাপক প্রচারণা চালানো হয়। গত জুন মাস থেকে দীপ্ত টিভিতে প্রচারিত হচ্ছে তুরস্কের 'ফাতমাগুল'। সপ্তাহের প্রতি শনি থেকে শুক্রবার রাত ৯টা ৩০ মিনিটে এটি প্রচারিত হচ্ছে।

দেখা যাচ্ছে বিদেশি সিরিয়ালের বেশিরভাগই তুর্কি সিরিয়াল। তুরস্কের আলোচিত নির্মাণ সুলতান সুলেমান-এর পর দেশটির বেশকিছু মেগা সিরিয়াল এদেশে এসেছে। এসব সিরিয়াল ততটা দর্শক সাড়া না পেলেও চ্যানেল কর্তৃপক্ষের ইচ্ছেমাফিক প্রচারিত হচ্ছে।

বিদেশি ভাষায় ডাবিং করা ধারাবাহিকগুলো বন্ধে আন্দোলন করেছিল ফেডারেশন অব টেলিভিশন প্রফেশনালস অর্গানাইজেশন (এফটিপিও)। তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে এফটিপিওর সদস্যসচিব গাজী রাকায়েত বলেন, 'আমরা একটা নীতিমালা তৈরি করে সরকারকে দিয়েছিলাম। কিন্তু দুঃখজনক, সেটা এখনো বাস্তবায়িত হয়নি।' টেলিভিশন নাট্যকার সংঘের সভাপতি ও নাট্যকার মাসুম রেজা বলেন, 'আমাদের দাবি ছিল টেলিভিশনে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা। আমাদের প্রধান দাবি, বিদেশি সিরিয়াল বন্ধ করা নয়, সরকারি নিয়ম মেনে যেন আনা হয়, তা দেখতে বলেছিলাম। ওই সময় নীতিমালা তৈরির জন্য কমিটিও করা হয়েছিল। কিন্তু দুঃখজনক, সেটা বাস্তবায়িত হয়নি।'

সম্প্রতি বাংলাদেশী টিভিতে বিদেশি চ্যানেলের অনুষ্ঠান, ডাবিংকৃত সিরিয়াল ও সেন্সরবিহীন চলচ্চিত্র অনুমতি ছাড়া প্রদর্শনে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। গত ১৪ আগস্ট এক সরকারি তথ্যবিবরণীতে এ কথা জানানো হয়। এতকিছুর পরও দেশীয় স্যাটেলাইট চ্যানেলগুলোতে প্রচারিত হচ্ছে বিদেশি সিরিয়াল।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে