logo
রোববার ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৩১ ভাদ্র ১৪২৬

  বিনোদন রিপোর্ট   ২০ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০  

মোশাররফ করিমকেও ছাপিয়ে যাচ্ছেন আফরান নিশো

মোশাররফ করিমকেও ছাপিয়ে যাচ্ছেন আফরান নিশো
টিভি নাটকে বেশ কয়েক বছর ধরেই একক রাজত্ব করে আসছেন মোশাররফ করিম। রকমারি চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে দর্শকমহলে নিজের শক্ত একটা অবস্থান গড়ে তুলেছেন এই অভিনেতা। চাহিদা ও পারিশ্রমিকের দিক থেকেও শীর্ষে রয়েছেন তিনি। কিন্তু মোশাররফ করিমের সেই একক সাম্রাজ্য ভেঙে দিতে যাচ্ছেন তরুণ অভিনেতা আফরান নিশো। সাবলীল অভিনয় গুণে এরই মধ্যে নিজেকে অন্য এক উচ্চতায় নিয়ে গেছেন তিনি। পারিশ্রমিকের বিচারে এখনো মোশাররফকে টপকাতে না পারলেও চাহিদা ও সংখ্যার বিচারে সবাইকে ছাড়িয়ে গেছেন নিশো। নতুন কোনো নাটক নির্মাণের ক্ষেত্রে সবার আগে নিশোর কথাই চিন্তা করছেন নির্মাতারা। নির্মাতাদের এই আগ্রহের কারণে হেয়ালি ও খামখেয়ালিপনাসহ শিডিউল ফাঁসানোরও অভিযোগ উঠেছে নিশোর বিরুদ্ধে। যদিও বিষয়টি অস্বীকার করে অন্য রকম ব্যাখা দিয়েছেন এই তারকা।

এবারের ঈদের নাটকের ক্ষেত্রেও মোশাররফ করিমের চেয়ে আফরান নিশোর আধিক্য বেশি দেখা গেছে। জানা গেছে, এবারের ঈদে টেলিভিশন ও অনলাইন পস্নাটফর্ম মিলিয়ে সর্বমোট ৩৭টি নাটকে অভিনয় করেছেন অভিনেতা আফরান নিশো। সংখ্যার বিচারে এর চেয়ে বেশি সংখ্যক নাটক আর কোনো অভিনেতাই করেননি। নিশোর ঠিক পরের জায়গাটিই দখল করে রেখেছেন তৌসিফ মাহবুব। সব মিলিয়ে প্রায় ৩৪টি নাটকে দেখা গেছে তাকে। জিয়াউল ফারুক অপূর্ব রয়েছেন ২০টির মতো নাটকে।

এদিকে, মোশাররফ করিম অভিনয় করেছেন ১৯টি নাটকে। তার চেয়েও কম নাটকে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী ও জাহিদ হাসান। অথচ কয়েকদিন আগেও বাংলা নাটক বলতে ছিল মোশাররফ করিমের আধিপত্য। এ ছাড়াও চঞ্চল চৌধুরী, জাহিদ হাসানরা থাকতেন সংখ্যার বিচারে অনেক ওপরে। তবে সময়ের সঙ্গে তাদের চাহিদা ও নাটকের সংখ্যা দিনকে দিন কমে যাচ্ছে। মোশাররফ করিম, চঞ্চল চৌধুরীর ও জাহিদ হাসানের জায়গা দখল করে নিচ্ছেন আফরান নিশো, অপূর্ব ও তৌসিফের মতো এ প্রজন্মের অভিনয় শিল্পীরা। যদিও পারিশ্রমিকের দিক দিয়ে এখনো মোশাররফ করিমকে টপকাতে পারেননি কোনো অভিনেতা।

এ বিষয়ে নাট্যসংশ্লিষ্ট কারো কাছেই যুক্তিসংগত উত্তর মেলেনি। তবে বিগত বছরগুলোর পরিসংখ্যান বলছে, মোশাররফ করিমের মতো শক্তিশালী অভিনেতার নাটক খরার পেছনে দায়ী তিনি নিজেই। গত কয়েক ঈদে মোশাররফ করিম প্রচুর নাটকে অভিনয় করেছেন। একই ধরনের নাটকে কাজ করেছেন বার বার। ফলে দর্শক মনে মোশাররফ করিমের আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তা ধীরে ধীরে কমতে থাকে। বিষয়টি নিশ্চয় ভাবিয়েছে এ অভিনেতাকে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মোশাররফের বেশ কয়েকজন কাছের মানুষ বলেন, 'বিগত বছরগুলোর মতো এবার হয়তো তিনি অনেকগুলো নাটকে অভিনয় করেননি। ভালো গল্পের স্বল্পসংখ্যক নাটকে অভিনয় করে নিজের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার চেষ্টা করছেন এ অভিনেতা। তার মধ্যে 'আশ্রায়' নাটকটি দীর্ঘদিন দর্শক মনে দাগ কেটে রাখবে।'

অন্যদিকে আফরান নিশো এখন প্রচুর নাটকে কাজ করছেন। নাটক পাড়ায় কান পাতলেই শোনা যায়, মোশাররফ করিমের জায়গাটা পাকাপোক্তভাবেই আফরান নিশো দখল করে নিয়েছেন। অসাধারণ অভিনয় শৈলী দেখিয়ে তিনি দর্শক মনে নম্বর ওয়ান নাট্যাভিনেতা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়েছেন। যদিও নাট্যসংশ্লিষ্ট অনেকেই মনে করছেন, নিশো যদি এভাবে চলতে থাকে তবে একদিন মোশাররফের মতোই নাটক খরায় পড়বেন। সংখ্যা বাড়বে কিন্তু মান বাড়াবে না। এবারের ঈদে কেবল সংখ্যার বিচারেই নিশো এগিয়ে রয়েছেন এমনটি নয়, এগিয়ে আছেন মোট পারিশ্রমিকের দিক দিয়েও।

বাংলা নাটকের এমন সমীকরণ নিয়ে বিশ্লেষকরা বলছেন, 'মোশাররফ করিম, চঞ্চল চৌধুরী ও জাহিদ হাসানরা একসময় প্রচুর নাটকে কাজ করলেও এখন নাটকের মানের জন্য সংখ্যা কমিয়েছেন। ফলশ্রম্নতিতে নতুনরা এখন সেসব কাজ পাচ্ছেন। যার কারণে নতুনদের নাটকের সংখ্যাটা বেড়ে যাচ্ছে।'
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে