logo
শনিবার, ০৪ জুলাই ২০২০, ২০ আষাঢ় ১৪২৬

  বিনোদন রিপোর্ট   ০১ জুন ২০২০, ০০:০০  

দুই জোড়া শর্তে শোবিজে ফিরছে ছন্দ

দুই জোড়া শর্তে শোবিজে ফিরছে ছন্দ
নির্মাণাধীন একটি নাটকের দৃশ্যে নুসরাত ইমরোজ তিশা ও তাহাসান খান
করোনাভাইরাস প্রকোপে টানা আড়াই মাস সব ধরনের শুটিং বন্ধ থাকার পর ধীরে ধীরে ছন্দে ফিরতে শুরু করেছে শোবিজ অঙ্গন। আজ থেকে শুরু হচ্ছে টিভি নাটকের শুটিং। যদিও 'ঘনিষ্ঠ দৃশ্য' না রাখাসহ দুই জোড়া শর্ত মেনে শুটিং করতে পারবেন নির্মাতা ও অভিনয় শিল্পীরা। একইভাবে, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনও (বিএফডিসি) 'সাধারণ ছুটি' শেষে দাপ্তরিক কার্যক্রম ও শুটিংয়ে ফিরছে।

এদিকে এফডিসি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, দাপ্তরিক কাজের পাশাপাশি শুটিংয়ের জন্য এফডিসির ফ্লোরগুলোকে ইতোমধ্যেই প্রস্তুত করা হয়েছে। প্রযোজক ও পরিচালকরা চাইলে আজ থেকেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে ফ্লোরে শুটিং করতে পারবেন। ৩১ মে থেকে সরকারি অফিস-আদালত খুলে দেওয়ার ঘোষণা দেয় সরকার; তার সঙ্গে সমন্বয় রেখেই কাজে ফিরছে এফডিসিও। আড়াই মাস ধরে প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম বন্ধ থাকায় কোনো চলচ্চিত্রের শুটিংও হয়নি এফডিসিতে; বিরতি কাটিয়ে চলচ্চিত্রের এ প্রাণকেন্দ্র আবারও চেনা রূপে ফিরবে বলে আশা করছেন চলচ্চিত্রকর্মীরা।

এদিকে টেলিভিশন সংগঠনগুলোর সমন্বয়ক পস্নাটফর্ম এফটিপিও'র সভাপতি নাট্যজন মামুনুর রশীদ স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে বলা হয়, '১ জুন থেকে শুটিং শুরু করা যাবে। তবে পরিচালক, প্রযোজক, শিল্পী ও নাট্যকারদের কিছু শর্ত বেঁধে দেওয়া হয়েছে। যার মধ্যে অন্যতম শর্ত, ঘনিষ্ঠ দৃশ্য কোনোভাবেই গল্পে রাখা যাবে না। এছাড়াও বেঁধে দেওয়া শর্তগুলোর মধ্যে রয়েছে- জনসমাগম হয় এমন স্থানে শুটিং করা যাবে না। একটি দৃশ্যে তিনজনের বেশিসংখ্যক শিল্পীর সমাগম ঘটানো যাবে না।

অন্তত তিন ফুট দূরত্ব বজায় রেখে মাস্টার শট নিতে হবে এবং ঘনিষ্ঠ দৃশ্য কোনোভাবেই গল্পে রাখা যাবে না।

তবে এই শর্তগুলোর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় জুড়ে দেওয়া হয়েছে। সেটা হলো পান্ডুলিপিহীন কোনো নাটক নির্মাণ করা যাবে না। এ বিষয়টি ডিরেক্টরস গিল্ড ও অভিনয়শিল্পী সংঘ থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে।

অভিনয়শিল্পী সংঘের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব নাসিম বলেন, 'পাবলিক পেস্নসে শুটিং করা লাগবে এমন পান্ডুলিপি পরিহার করতে হবে। পাশাপাশি সংক্রমণ এড়াতে জীবাণুনাশক ব্যবহার ও গাড়ি ব্যবহারের সাবধান হতে হবে। বিশেষ করে শুটিং ইউনিটের প্রত্যেকের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য হ্যান্ড সেনিটাইজার, গস্নাভস, মাস্ক, আলাদা আলাদা খাবারের পেস্নট, মগ নিজেকেই বহন করতে হবে।'

তিনি আরও বলেন, 'শুটিংয়ে যাওয়ার আগে শিল্পীকে ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। এছাড়া অভিনয়শিল্পীদের নিজ দায়িত্বে মেকআপ করে আসতে হবে।' সরকারের দেওয়া নির্দেশের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে শুটিংয়ের সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছে সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। নাট্য সংগঠনগুলো বাড়তি সতর্কতা নিয়েছে বয়স্ক ও শিশু শিল্পীদের ক্ষেত্রেও। ষাটোর্ধ্ব শিল্পী কলাকুশলীদের অংশগ্রহণ করালে তাদের বিষয়ে অতিরিক্ত সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। এছাড়া শিশু ও কিশোর শিল্পীদের আপাতত কোনও নাটকে অংশগ্রহণ করানো যাবে না।

এর আগে ২২ মার্চ থেকে দেশের করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় টিভি নাটকের শুটিং বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয় টিভি নাটকের আন্তঃসংগঠনগুলো। এর মধ্যে একবার শুটিংয়ে ফেরার ঘোষণা দিয়েও নানা সমালোচনার চাপে সেটি কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে বাতিল করা হয়। তবে এবারের সিদ্ধান্ত আপাতত বাতিল হওয়ার কারণ নেই বলেও জানান সংশ্লিষ্টরা।

যদিও বেশ কয়েকজন সিনিয়র শিল্পী এই মুহূর্তে শুটিং করতে প্রস্তুত নন বলে জানিয়েছেন। তার মধ্যে চঞ্চল চৌধুরী, মেহজাবীন চৌধুরী, আফরান নিশো, তাহসান খান অন্যতম। তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জানিয়েছেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত শুটিংয়ে ফিরছেন না।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে