logo
বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

  রংপুর প্রতিনিধি   ০১ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০  

রংপুরে ২৭ প্রাথীর্র জামানত বাতিল

রংপুরের ৬টি আসনে জাতীয় পাটির্সহ বিভিন্ন দলের ২৭ জন প্রাথীর্ জামানত হারিয়েছেন। প্রাপ্ত ভোটের ৮ ভাগের ১ ভাগ ভোট না পাওয়ায় তারা জামানত হারান।

নিবার্চন অফিস সূত্র জানায়, রংপুর-১ আসনে জামানত হারিয়েছেন স্বতন্ত্র প্রাথীর্ সিংহ প্রতীকে সিএম সাদিক। তার প্রাপ্ত ভোট ছিল ৩ হাজার ৬৩৭টি। এপিপি প্রাথীর্ ছিলেন আম প্রতীকে ইসা মোহাম্মদ সবুজ। তার প্রাপ্ত ভোট ৫৩২টি। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রাথীর্ ছিলেন হাতপাখা প্রতীকে মো. মোক্তার হোসেন। তার প্রাপ্ত ভোট ৭ হাজার ৫৭০টি।

রংপুর-২ আসনে বাতিল হয়েছে ছয়জন প্রাথীর্র জামানত। স্বতন্ত্র প্রাথীর্ ছিলেন সিংহ প্রতীকে আনিসুল হক মÐল। তার প্রাপ্ত ভোট ছিল ১৫ হাজার ৫৭৭টি। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রাথীর্ ছিলেন হাতপাখা প্রতীকে মো. আশরাফ আলী। তার প্রাপ্ত ভোট ছিল ৯ হাজার ১৮৫টি। জাকের পাটির্র প্রাথীর্ ছিলেন গোলাপ ফুল প্রতীকের মো. আশরাফুজ্জামান। তার প্রাপ্ত ভোট ৩ হাজার ২৯৫টি। এনপিপি প্রাথীর্ ছিলেন আম মাকার্র মো. ওয়াসিম আহমেদ। তার প্রাপ্ত ভোট ছিল ১৬৩টি। বিএনএফ প্রাথীর্ ছিলেন টেলিভিশন প্রতীকের মো. জিল্লুর রহমান। তার প্রাপ্ত ভোট ছিল ১১৫টি। বিকল্প ধারা বাংলাদেশ প্রাথীর্ ছিলেন কুলা প্রতীকের হারুন অর রশিদ। তার প্রাপ্ত ভোট ছিল ১৯৭টি।

রংপুর-৩ আসনে জামানত বাতিল হয়েছে ৬ প্রাথীর্র । বিপ্লবী ওয়াকার্সর্ পাটির্র প্রাথীর্ ছিলেন কোদাল প্রতীকের মাকর্সবাদী বাসদের আনোয়ার হোসেন বাবলু। তার প্রাপ্ত ভোট ৩ হাজার ২১৪টি। জাকের পাটির্র প্রাথীর্ ছিলেন গোলাপফুল প্রতীকের মো. আলমগীর হোসেন আলম। তার প্রাপ্ত ভোট ছিল তিন হাজার ৮৫টি। খেলাফত মজলিসের দেয়ালঘড়ি প্রতীকের প্রাথীর্ ছিলন মো. তৌহিদুর রহমান মÐল। তার প্রাপ্ত ভোট ছিল ৪৪৯টি। এনপিপি প্রাথীর্ ছিলেন আম প্রতীকের মো. শামসুল হক। তার প্রাপ্ত ভোট ছিল ৯২২টি। জাসদ (ইনু) মশাল প্রতীকের প্রাথীর্ ছিলেন সাখাওয়াত হোসেন রাঙ্গা। তার প্রাপ্ত ভোট ছিল ১ হাজার ৫৩২টি। পিডিপি প্রাথীর্ ছিলেন বাঘ প্রতীকের সাব্বির আহমেদ। তার প্রাপ্ত ভোট ছিল ২ হাজার ৬৬০টি।

রংপুর-৪ আসনে জামানত বাতিল হয়েছে ৫ প্রাথীর্র। ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন বাংলাদেশ প্রাথীর্ ছিলেন হাতপাখা প্রতীকের মো. বদিউজ্জামান। তার প্রাপ্ত ভোট ছিল ৬ হাজার ৬৩৯টি। বাসদ প্রাথীর্ ছিলেন মই প্রতীকের মো. সাদেক আলী। তার প্রাপ্ত ভোট ছিল ৫৬৯টি। জাতীয় পাটির্র প্রাথীর্ ছিলেন লাঙ্গল প্রতীকের সেলিম বেঙ্গল। তার প্রাপ্ত ভোট ছিল সাত হাজার ৩৪৩টি। জাকের পাটির্ও প্রাথীর্ ছিলেন গোলাপফুল প্রতীকের লায়লা আঞ্জুমান আরা বেগম। তার প্রাপ্ত ভোট ৯০৫টি।

রংপুর-৫ আসনে জামানত বাতিল হয়েছে ৪ প্রাথীর্র। জাতীয় পাটির্র প্রাথীর্ ছিলেন লাঙ্গল প্রতীকের এস এম ফকরুজ্জামান। তার প্রাপ্ত ভোট ১২ হাজার ৫০৯টি। বাসদের প্রাথীর্ ছিলেন মই প্রতীকের মো. মমিনুল ইসলাম। তার প্রাপ্ত ভোট ৭৫২টি। জাকের পাটির্র প্রাথীর্ ছিলেন গোলাপ ফুল প্রতীকের মো. শামীম মিয়া। প্রাপ্ত ভোট ২ হাজার ৮৫টি। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রাথীর্ ছিলেন হাতপাখা প্রতীকের মো. শফিউল আলম ভোলা মÐল। তার প্রাপ্ত ভোট ৩ হাজার ৩টি।

রংপুর-৬ আসনে জামানত বাতিল হয়েছে ৪ প্রাথীর্র। বিএনএফ প্রাথীর্ ছিলেন টেলিভিশন প্রতীকের এজিএম মাসুদ সরকার মজনু। তার প্রাপ্ত ভোট ১১২টি। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রাথীর্ ছিলেন হাতপাখা প্রতীকের প্রাথীর্ ছিলেন মো. বেলাল হোসেন। তার প্রাপ্ত ভোট ৩ হাজার ১৬৮টি। সিপিবি প্রাথীর্ ছিলেন কাস্তে প্রতীকের কামরুজ্জামান। তার প্রাপ্ত ভোট ছিল ৬২৬টি। এনপিপি প্রাথীর্ ছিলেন আম প্রতীকের মো. হুমায়ুন ইজাজ। তার প্রাপ্ত ভোট ২৭৮টি।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে