logo
শনিবার ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

ইতিহাসের পাতা

রোমঁ্যা রোলাঁ

রোমঁ্যা রোলাঁ
রোমঁ্যা রোলাঁ নোবেল বিজয়ী, নাট্যকার, ঔপন্যাসিক, প্রাবন্ধিক জন্ম : ২৯ জানুয়ারি, ১৮৬৬ মৃতু্য : ৩০ ডিসেম্বর, ১৯৪৪
শিক্ষা জগৎ ডেস্ক য়

রোমঁ্যা রোলাঁ বিশ্ববিখ্যাত ফরাসি নাট্যকার, ঔপন্যাসিক, প্রাবন্ধিক। ঊনবিংশ শতাব্দীর প্রগতিবাদী সাহিত্যিকদের মধ্যে রোমঁ্যা রোলাঁ ছিলেন অন্যতম। রোমঁ্যা রোলাঁ ১৮৬৬ সালের ২৯ জানুয়ারি ফ্রান্সের ক্ল্যামেসিতে এক অভিজাত পরিবারে জন্মেছিলেন। পড়াশুনা করেন প্রথমে প্যারিসে পরে রোমে। আজীবন যুদ্ধবিরোধী ও মানবতাবাদী ফ্রান্সের একজন মহামানব পরিচয়ে বিশ্বের অনেকেরই দৃষ্টি আকর্ষণকারী রোমঁ্যা রোলাঁ গণমানুষের মুক্তি সাধনের ব্রত নিয়েই বেড়ে উঠেন। রোলাঁর মা ছিলেন একজন দক্ষ পিয়ানো শিল্পী। রোমঁ্যা রোলাঁ ১৮৯৫ সালে প্যারিসে সারবোন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিশেষ সম্মানের সঙ্গে ডক্টরেট ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি পড়াশুনা করেছিলেন সংগীতের ওপর। রোমঁ্যা রোলাঁ ১৯০৩ সালে একই বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপক পদ লাভ করেন। এ সময় তার দুটি উলেস্নখযোগ্য গ্রন্থ প্রকাশিত হয়। এর একটি ছিল ট্রিলজি নাটক 'লা থিয়েটার ভিলা রেভোলিউশন' অপরটি ছিল বিখ্যাত সুরস্রষ্টা বিথোভেনের ওপর রচিত গ্রন্থ। ১৯০৩ সালে প্রকাশিত হয় রোলাঁর বিথোভেন। এরপর রচনা করেন 'মাইকেল এঞ্জেলা' (১৯০৮) সে সময়ের যুগকে ছবির মতো করেই ফুটিয়ে তুলেছেন রোলাঁ। 'মাইকেল এঞ্জেলো' সৃষ্টি তার কাছে এক অতি মানবীয় শক্তির প্রকাশ। এর কয়েক বৎসর পর রোলাঁ আরেকটি জীবনী গ্রন্থ রচনা করেন 'টলস্টয় (১৯১১)'। তার মনের ভাবনা আদর্শের প্রকাশ ঘটলো জগৎ বিখ্যাত উপন্যাস 'জাঁ ক্রিস্তফ'। ১০ বৎসর ধরে তিনি রচনা করেছেন তার মহাকাব্যিক উপন্যাস। প্রথম খন্ড পত্রিকায় প্রকাশিত হয় ১৯০২ সালে এবং শেষ খন্ড প্রকাশিত হয় ১৯১২ সালে। তিনি ১৯১৫ সালে সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন।

রোলাঁর সঙ্গে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সাক্ষাৎ হয় ১৯২১ সালে। তিনি তখন ভারতের শিল্প সাহিত্য সঙ্গীত নিয়ে পড়াশুনা করছিলেন। তিনি এ ব্যাপারে রবীন্দ্রনাথের সহযোগিতা গ্রহণ করেন এবং কবির সঙ্গে তার গভীর সম্পর্কও গড়ে ওঠে। পরবর্তী সময়ে রোলাঁ আকৃষ্ট হন রামকৃষ্ণ ও বিবেকানন্দের প্রতি। ১৯২৮ খ্রিস্টাব্দে প্রকাশিত হয় তার লেখা রামকৃষ্ণ ও বিবেকানন্দের জীবনী। দিলীপ কুমারের কাছে রোলাঁ প্রথম মহাত্মা গান্ধীর নাম শোনেন তারপর লিখেন গান্ধীর জীবনী যা ১৯২৩ খ্রিস্টাব্দে প্রকাশিত হয়। ১৯৩৬ খ্রিস্টাব্দে ৩ সেপ্টেম্বর ব্রাসেলসে বিশ্বশান্তি সম্মেলনে তিনি রবীন্দ্রনাথসহ ভারতীয় মনীষীদের বাণী সংবলিত একটি ইশতেহারও প্রকাশ করেন।

একদিকে রোলাঁ যখন প্রাচ্যের ধ্যানে মগ্ন ছিলেন, অন্যদিকে তিনি সৃষ্টি করে চলেন যুদ্ধোত্তর ইউরোপের এক জীবন্ত চিত্র। 'বিমুগ্ধ আত্মা' উপন্যাসের প্রথম দুই খন্ড প্রকাশিত হয় ১৯২৪ খ্রিস্টাব্দে, তৃতীয় খন্ড প্রকাশিত হয় ১৯২৬ খ্রিস্টাব্দে, চতুর্থ খন্ড ১৯৩৩ খ্রিস্টাব্দে। 'বিমুগ্ধ আত্মা' রোলাঁর অন্যতম শ্রেষ্ঠ রচনা। রোমঁ্যা রোলাঁ ১৯৪৪ সালের ৩০ ডিসেম্বর মৃতু্যবরণ করেন।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে