logo
মঙ্গলবার ২১ মে, ২০১৯, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

  যাযাদি ডেস্ক   ১৫ মে ২০১৯, ০০:০০  

মারিয়ানা ট্রেঞ্চেও পস্নাস্টিক বর্জ্য!

প্রশান্ত মহাসাগরের গভীরতম অংশ মারিয়ানা ট্রেঞ্চের তলদেশেও মানুষের তৈরি আবর্জনা পেয়েছেন মার্কিন এক অভিযাত্রী। পানির প্রবল চাপ সহ্য করার ক্ষমতা সম্পন্ন একটি সাবমেরিনের ভেতরে বসে মারিয়ানা ট্রেঞ্চের প্রায় ১১ কিলোমিটার গভীরে গিয়েছিলেন অভিযাত্রী ভিক্টর ভেসকোভো, যা একটি নতুন রেকর্ড। কিন্তু ওই গভীরতায় গিয়ে পস্নাস্টিক বর্জ্য দেখতে পেয়েছেন তিনি। সংবাদসূত্র : বিবিসি, রয়টার্স

নিজের সাবমেরিনে বসে মারিয়ানা ট্রেঞ্চের তলদেশে চার ঘণ্টা ছিলেন টেক্সাসের বিনিয়োগকারী ভেসকোভো। সেখানে সামুদ্রিক প্রাণীর পাশাপাশি পস্নাস্টিকের ব্যাগ ও চকোলেটের প্যাকেট পেয়েছেন তিনি।

এই নিয়ে তৃতীয়বারের মতো মহাসাগরের গভীর তলদেশে পৌঁছল মানুষ। প্রথমবার ১৯৬০ সালে মার্কিন নৌবাহিনীর লেফটেন্যান্ট ডন ওয়ালশ এবং সুইস প্রকৌশলী জ্যাক পিকার্ড একটি বিশেষ যানে করে মারিয়ানা ট্রেঞ্চের তলদেশে গিয়েছিলেন।

ভেসকোভো বলেন, 'মহাসাগরের গভীরতম পয়েন্টে মানুষের সৃষ্ট দূষণের পরিষ্কার নমুনা দেখাটা অত্যন্ত হতাশাজনক।' এখন পর্যন্ত বিশ্বের সাগরগুলোতে ১০ কোটি টন পস্নাস্টিক বর্জ্য গিয়ে জমা হয়েছে বলে তথ্য জাতিসংঘের। মহাসাগরের গভীরে বিচরণকারী তিমির মতো স্তন্যপায়ীদের পেটে বিশাল পরিমাণ পস্নাস্টিক কণাও পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে