logo
রোববার ২৬ মে, ২০১৯, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

  যাযাদি ডেস্ক   ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০  

ব্রম্ননাইয়ে প্রধানমন্ত্রী

প্রবাসীদের সুখ-দুঃখ দেখা সরকারের দায়িত্ব

শেখ হাসিনা বলেন, 'যেখানে যেখানে প্রবাসী বাঙালি আছে, সেগুলো আমরা অগ্রাধিকার দিচ্ছি। প্রত্যেকটা জায়গায় আমাদের নিজস্ব ভবন হবে।'

প্রবাসীদের সুখ-দুঃখ দেখা সরকারের দায়িত্ব
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মঙ্গলবার ব্রম্ননাইয়ের রাজধানী বন্দর সেরি বেগওয়ানের কূটনৈতিক এলাকা জালান কেবাংসানে বাংলাদেশ হাই কমিশনের নতুন চ্যান্সেরি ভবনের ভিত্তিস্থাপন করেন -ফোকাস বাংলা
অর্থনীতিতে প্রবাসীদের অবদান স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তাদের সুখ-সুবিধা দেখার দায়িত্ব সরকারের।

মঙ্গলবার সকালে ব্রম্ননাইয়ের রাজধানী বন্দর সেরি বেগওয়ানের কূটনৈতিক এলাকা জালান কেবাংসানে বাংলাদেশ হাই কমিশনের নতুন চ্যান্সেরি ভবনের ভিত্তিস্থাপন করে একথা বলেন তিনি।

অর্থনীতিতে অবদানের জন্য প্রবাসীদের ধন্যবাদ জানান তিনি।

আগে বিভিন্ন সরকারের সময় প্রবাসীদের স্বার্থ সুরক্ষায় উদ্যোগ না নেয়ার সমালোচনার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী তার সরকারের সময় প্রবাসীদের সুযোগ-সুবিধা ও সেবা বাড়ানোর জন্য দূতাবাস, হাই কমিশনগুলোতে নিজস্ব ভবন বাড়ানো হচ্ছে বলে উলেস্নখ করেন।

শেখ হাসিনা বলেন, 'যেখানে যেখানে প্রবাসী বাঙালি আছে, সেগুলো আমরা অগ্রাধিকার দিচ্ছি। প্রত্যেকটা জায়গায় আমাদের নিজস্ব ভবন হবে।'

তিনি বলেন, তার সরকারের উদ্যোগে সৌদি আরবসহ কয়েকটি দেশে ইতোমধ্যেই নতুন নিজস্ব কমপেস্নক্স চালু হয়েছে।

ইতালিসহ আরও কয়েকটি দেশে অচিরেই নতুন চ্যান্সারি কমপেস্নক্স উদ্বোধন করা হবে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

এছাড়া যেখানে বেশি প্রবাসী আছে, সেখানে স্কুল তৈরি করে দেয়ার ওপর গুরুত্ব দেন তিনি।

'প্রবাসীরা যাতে সেবা পায় সে লক্ষ্য নিয়েই আমরা কাজ করে যাচ্ছি।'

এর আগে প্রধানমন্ত্রী দেশটির রাজধানীর কূটনৈতিক জোনে নতুন নির্মিতব্য কমপেস্নক্সের ভিত্তি ফলক উন্মোচন করেন।

এ বছরের জুন মাসে ৬ কোটি ৩৯ লাখ টাকায় বাংলাদেশ দূতাবাস ভবনের জন্য ০.৯৪ একর এবং ১.৬৯ একর জমি চ্যান্সেরি ভবনের জন্য কেনা হয়।

কমপেস্নক্স নির্মাণ কাজ শুরুর ১৮ মাসের মধ্যেই এটি শেষ হবে বলে অনুষ্ঠানে জানানো হয়।

নতুন চ্যান্সারি কমপেস্নক্স নির্মিত হলে সেখান থেকে ব্রম্ননাইতে বসবাসরত বাংলাদেশি নাগরিকদেরকে কনসু্যলেট সেবা দেয়ার সক্ষমতা বহুগুণে বেড়ে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেন জানান, গত ১০ বছরে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের সময় ১৫টি দেশে নিজস্ব ভবন করা হয়েছে।

ব্রম্ননাইতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাই কমিশনার এয়ার ভাইস মার্শাল মাহমুদ হোসেনও অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।

চ্যান্সেরি ভবনের ভিত্তি স্থাপনের পরে প্রধানমন্ত্রী রয়েল রেজালিয়া জাদুঘর পরিদর্শন করেন।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে