logo
মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ৩১ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০  

সংবাদ সংক্ষেপ

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের গেজেট প্রকাশ আজ

\হতারার মেলা রিপোর্ট

তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে প্রতি বছর চলচ্চিত্রের বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার দেয়া হয়। এবার একসঙ্গে ২০১৭ ও ২০১৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত দেশি চলচ্চিত্রের পুরস্কার দেওয়া। দুই বছর মিলিয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ে ৭৪টি সিনেমা জমা পড়ে ২৮টি শাখায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য। ইতোমধ্যে ছবিগুলো দেখে শেষ করেছেন জুরি বোর্ডের সদস্যরা। এবার পুরস্কৃত ছবি, শিল্পী, কলাকুশলীদের নাম ঘোষণা করার পালা। আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের গেজেট প্রকাশ করা হবে। তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান ও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জুরি বোর্ডের সদস্য নিজামুল কবীর। তিনি বলেন, 'গত ১০ দিন আগে জাতীয় পুরস্কার সম্পর্কিত বিষয়ে কেবিনেট মিটিং হয়েছে। আমাদের এ সপ্তাহের শুরুতে গেজেট ঘোষণা করতে চেয়েছি। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী দেশের বাইরে থাকায় সম্ভব হয়নি। আমরা আশা করছি, বৃহস্পতিবার গেজেট প্রকাশ করতে পারব। সেভাবেই আমরা প্রস্তুতি নিয়েছি।'

এদিকে ২০১৭ সালের জুরি বোর্ডের সদস্যরা হলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিপার্টমেন্ট অব টেলিভিশন ফিল্ম অ্যান্ড ফটোগ্রাফির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শফিউল আলম ভূঁইয়া, সাংবাদিক মনজুরুল আহসান বুলবুল, চলচ্চিত্র অভিনেত্রী কোহিনুর আক্তার সুচন্দা, চলচ্চিত্র অভিনেতা ও প্রযোজক এম এ আলমগীর, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার, চিত্রগ্রাহক পংকজ পালিত ও সংগীত পরিচালক সুজেয় শ্যাম।

হুমায়ূন আহমেদকে নিয়ে গান

তারার মেলা রিপোর্ট

আগামী ১০ নভেম্বর উপমহাদেশের প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক, চলচ্চিত্র পরিচালক হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিন উপলক্ষে তাকে নিয়ে গান গাইলেন এই প্রজন্মের শ্রোতাপ্রিয় দুই সংগীতশিল্পী ইউসুফ আহমেদ খান ও তাসনিম আনিকা। গানটি লিখেছেন নীল মাহবুব, সুর ও সংগীত করেছেন শরীফ সুমন ও অদিত। এরই মধ্যে গানটির রেকর্ডিং শেষে মিউজিক ভিডিও নির্মাণের কাজও শেষ হয়েছে। রাজধানীর পুরনো ঢাকার বিউটি বোর্ডিংয়ে গানটির দৃশ্যায়নের কাজ শেষ হয়েছে। গানটি প্রসঙ্গে ইউসুফ আহমেদ খান বলেন, 'শ্রদ্ধেয় হুমায়ূন আহমেদ স্যারের প্রতি সর্বোচ্চ শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা নিয়েই এই গানটিতে কণ্ঠ দেয়া। বলা যেতে পারে এটি একটি এক্সপেরিমেন্টাল কাজ। আমরা যারা এই গানটির সঙ্গে সম্পৃক্ত সবাই যার যার অবস্থানে থেকে মন দিয়ে কাজটি করার চেষ্টা করেছি। গানটিতে শাস্ত্রীয় ও ওয়েস্টার্ন মিউজিকের মেলবন্ধন আছে। যে কারণে গানটি এক অন্যরকম দ্যোতনার সৃষ্টি করবে শ্রোতা ও দর্শকের মধ্যে। আমি খুবই আশাবাদী গানটি নিয়ে। ধন্যবাদ সাউন্ড হ্যাকারকে এই ধরনের একটি গান সৃষ্টির জন্য।'

আনিকা বলেন, 'আমার জন্য এটা এক অন্যরকম ভালোলাগার কাজ। কারণ গানটি শ্রদ্ধেয় হুমায়ূন আহমেদ স্যারকে নিয়ে করা। আমি তার ভীষণ ভক্ত। যদিও বা গানটি অনেক কঠিন ছিল। তারপরও আমি চেষ্টা করেছি যতটা ভালোভাবে গানটি গাওয়া যায়। গানটি গাওয়ার সময় ইউসুফ ভাই আমাকে ভীষণ সহযোগিতা করেছেন। তার কারণেই মূলত বেশ স্বাচ্ছন্দ্যতা নিয়ে গাইতে পেরেছি। গানটির জন্য আমি ভীষণভাবে অপেক্ষা করছি। কারণ এই গানটি আমার জন্য এক অন্যরকম কিছু।' গানটিতে মডেল হিসেবে নাহিদ আফরোজ সুমী।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে