logo
শনিবার ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬

  সাবরিনা অন্তরা   ২০ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০  

ডিজিটাল কমিউনিকেশনে বৈচিত্র্য

ডিজিটাল কমিউনিকেশনে বৈচিত্র্য
অ্যাপল, স্যামসাং, অপ্পো, ভিভো, শাওমি, হুয়াওয়েসহ বিভিন্ন স্মাটের্ফান প্রতিষ্ঠান প্রতিনিয়তই ডিজিটাল কমিউনিকেশনে আনছে বৈচিত্র্য। সময়ের সাথে সাথে নানারকম বৈচিত্র্য নিয়ে হাজির হচ্ছে স্মাটের্ফান নিমার্ণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো। পরিবতর্ন আসছে ডিজিটাল কমিউনিকেশনে। প্রথমেই জেনফোনের কথাই ধরা যাক।

স্মাটের্ফানের চাজির্ং সমস্যা সমাধানের জন্য দীঘর্স্থায়ী ব্যাটারি লাইফের স্মাটের্ফান নিয়ে আসছে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো। তেমনই একটি ফোন নিয়ে এসেছে তাইওয়ানের প্রতিষ্ঠান আসুস। নতুন এ স্মাটের্ফানের নাম ‘আসুস জেনফোন ম্যাক্স’।

জেনফোন ম্যাক্সে রয়েছে ৫০০০ এমএএইচের ব্যাটারি। শুধু স্মাটের্ফানের ব্যাটারি হিসেবেই নয়, অন্যান্য স্মাটের্ফানের পাওয়ার ব্যাংক হিসেবেও কাজ করবে এটি।

আসুসের জেনফোন ম্যাক্স স্মাটের্ফানটিতে রয়েছে ৫.৫ ইঞ্চির এইচডি (৭২০´১২৮০ পিক্সেলস) আইপিএস ডিসপ্লে। এটি চলবে জেনইউআই ২.০ ভিত্তিক অ্যানড্রয়েড ৫.০ ললিপপ অপারেটিং সিস্টেমে। এতে ২ জিবি র?্যামের সঙ্গে রয়েছে ১ গিগাহাজের্র কোয়াড-কোর স্ন্যাপড্রাগন ৪১০ প্রসেসর।

স্মাটের্ফানটির ইন্টারনাল স্টোরেজ ১৬ জিবি। মাইক্রোএসডি কাডের্র মাধ্যমে ৬৪ জিবি পযর্ন্ত বাড়ানো যাবে স্টোরেজ।

আসুস জেনফোন ম্যাক্স হ্যান্ডসেটে রয়েছে ডুয়েল এলইডি ফ্ল্যাশের ১৩ মেগাপিক্সেলের রিয়ার ক্যামেরা ও ৫ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা। কানেকটিভিটির জন্য রয়েছে থ্রিজি, জিপিআরএস/এজ, জিপিএস, গেøানাস, বøুটুথ এবং ওয়াই-ফাই। ভারতে আসুস জেনফোন ম্যাক্সের দাম রাখা হয়েছে ৯ হাজার ৯৯৯ রুপি।

আসুসের নতুন এ স্মাটের্ফানটি ছাড়াও দীঘর্স্থায়ী ব্যাটারি ব্যাকআপের বেশ কিছু স্মাটের্ফান রয়েছে বাজারে। কম দামে দীঘর্স্থায়ী ব্যাটারি ব্যাকআপের সেট আনার প্রচলন শুরু করেছিল স্মাটের্ফান নিমার্তা চীনা প্রতিষ্ঠান জিওনি।

দীঘর্স্থায়ী ব্যাটারি ব্যাকআপ দেয়া স্মাটের্ফানের মধ্যে রয়েছে জিওনি ‘ম্যারাথন এম৪’, যাতে রয়েছে ৫০০০ এমএএইচের ব্যাটারি। জিওনির আরেকটি স্মাটের্ফান ‘ম্যারাথন এম৫’-এও রয়েছে দুটি ৩০১০ এমএএইচের ব্যাটারি। সব মিলিয়ে এম৫-এর ব্যাটারি ব্যাকআপ ৬০২০ এমএএইচের।

স্মাটের্ফান নিমার্তা আরেক চীনা প্রতিষ্ঠান লেনোভোর রয়েছে ‘ভাইব পি১’। এ স্মাটের্ফানটিতে রয়েছে ৪৯০০ এমএএইচের ব্যাটারি।

ডিজিটাল কমিউনিকেশনে ফেসবুকের রয়েছে যুগান্তকারী অবদান। ফেসবুকের মালিকানাধীন ইন্সট্যান্ট মেসেজিং অ্যাপ্লিকেশন হোয়াটসঅ্যাপ। এর ব্যবহারকারীরা নিশ্চয়ই জানেন যে, হোয়াটসঅ্যাপ ডাউনলোড করার পর এক বছর তা বিনামূল্যে ব্যবহারের সুযোগ দেয়া হতো এতদিন। এক বছর পর অ্যাপটি ব্যবহার করতে ৯৯ সেন্ট পরিশোধ করতে হতো। তবে এখন থেকে বিনামূল্যেই অ্যাপটি ব্যবহার করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা।

ইন্সট্যান্ট মেসেজিং এ অ্যাপ মূলত বিজ্ঞাপনমুক্ত হওয়ায় আয়ের উৎস হিসেবে ব্যবহারকারীদের পকেট থেকে চাজর্ আদায় করত। যদিও এ চাজর্ ফঁাকি দেয়ারও বেশ কিছু উপায় ছিল। তবে এভাবেও লাভের মুখ না দেখায় শেষমেশ বিনামূল্যেই ব্যবহারকারীদের মেসেজিং সুবিধা দেবে হোয়াটসঅ্যাপ।

বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছ থেকে অথর্ আদায়ের জন্য নতুন এক পদ্ধতি চালু করতে যাচ্ছে তারা। প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট ম্যাশেবলের একটি প্রতিবেদনে এ ব্যাপারে জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সোমবার একটি বøগপোস্টে এ ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ। বøগপোস্টে হোয়াটসঅ্যাপের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ‘প্রথম বছর বিনামূল্যে ব্যবহারের পর আমরা আমাদের ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে নিদির্ষ্ট পরিমাণ অথর্ নিয়েছি এতদিন। কিন্তু আমরা বুঝতে পারছি এ পদ্ধতি ঠিকভাবে কাজ করছে না।’

বøগপোস্টে আরো জানানো হয়েছে, কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই হোয়াটসঅ্যাপের সব সংস্করণ থেকে সব ধরনের চাজর্ তুলে নেয়া হবে। এর বদলে তারা চাইছে বিজ্ঞাপন নয়, মেসেজিং অ্যাপের মাধ্যমেই বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে সাধারণ গ্রাহকদের যোগাযোগ করিয়ে দিতে।

হোয়াটসঅ্যাপের পক্ষ থেকে বøগপোস্টে লেখা হয়েছে, ‘এ বছরের প্রথম থেকে আমরা হোয়াটসঅ্যাপে কিছু অপশনের মাধ্যমে আপনাদের সঙ্গে বিভিন্ন ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের যোগাযোগ করিয়ে দেব। যেমনÑ আপনি চাইলে আপনার ব্যাংকের কাছ থেকে জানতে পারবেন আপনার সবের্শষ লেনদেন ঠিকঠাকভাবে হয়েছে কিনা কিংবা এয়ারলাইনস কোম্পানিকে নক করে জানতে পারবেন আপনার ফ্লাইটের সময়সূচি।’

বিশ্বজুড়ে ৯০ কোটির বেশি মানুষ বতর্মানে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করেন।

এদিকে মাইক্রোসফটের সবের্শষ অপারেটিং সিস্টেম ‘উইন্ডোজ ১০’। আপাতত ডেস্কটপ ও ট্যাবলেটের জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে এ অপারেটিং সিস্টেমটি। অন্যান্য ডিভাইসের জন্য উইন্ডোজ আপগ্রেডের কাজ চলছে।

এখন বাজারে রয়েছে ‘লুমিয়া ৯৫০’ ও ‘লুমিয়া ৯৫০ এক্সএল’। শুধু এ দুটি স্মাটের্ফান চলছে ইউন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেমে। এ বহরে যোগ হতে যাচ্ছে আরো একটি লুমিয়া স্মাটের্ফান।

‘লুমিয়া ৬৫০’ নামের এ স্মাটের্ফানটি আগামী মাসে বাজারে ছাড়া হতে পারে বলে জানিয়েছে উইন্ডোজ অপারেটিং-বিষয়ক ওয়েবসাইট উইন্ডোজ সেন্ট্রাল। যদিও এখন পযর্ন্ত এটা শুধু সম্ভাবনাই। এখনো কোনো নিশ্চিত খবর জানানো হয়নি মাইক্রোসফটের পক্ষ থেকে।

উইন্ডোজ সেন্ট্রালের খবরে আরো বলা হয়েছে, লুমিয়া ৬৫০ স্মাটের্ফানটিতে থাকবে ৭২০ পিক্সেলের ৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে। ১ জিবি র?্যামের সঙ্গে স্ন্যাপড্রাগন ২১০ অথবা ২১২ প্রসেসর থাকতে পারে। ইন্টারনাল স্টোরেজ থাকবে ৮ জিবির।

রিয়ার ক্যামেরা ৮ মেগাপিক্সেলের এবং ফ্রন্ট ক্যামেরা থাকতে পারে ৫ মেগাপিক্সেলের।

উইন্ডোজ সেন্ট্রালের খবরে আরো বলা হয়েছে, ‘লুমিয়া ৭৫০’ ও ‘লুমিয়া ৮৫০’ মডেলের সেট দুটি বাজারে না-ও ছাড়তে পারে মাইক্রোসফট। গত বছরের শেষ দিকে এ সেট দুটির ঘোষণা দেয়া হয়েছিল মাইক্রোসফটের পক্ষ থেকে।

বাংলাদেশের বাজারে অ্যান্ড্রয়েড ওয়ান সিরিজের স্মাটের্ফান ক্যানভাস এ১ নিয়ে এলো ভারতের শীষর্স্থানীয় স্মাটের্ফান নিমার্তা প্রতিষ্ঠান মাইক্রোম্যাক্স। মাইক্রোম্যাক্স জানিয়েছে, এটি ব্যবহারকারীদের দেবে উচ্চ মানসম্পন্ন মোবাইল ফোন সেট ব্যবহারের দুদার্ন্ত অভিজ্ঞতা।

স্মাটের্ফানটিতে অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে রয়েছে অ্যান্ড্রয়েড ৪.৪.৪ কিটক্যাট। ৫ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরার পাশাপাশি রয়েছে ২ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। মিডিয়াটেকের তৈরি ১.৩ গিগাহাজর্ কোয়াডকোর প্রসেসরের পাশাপাশি আছে ১ জিবি র?্যাম, ৪ জিবি রম, রয়েছে ৩২ জিবি পযর্ন্ত মেমোরি কাডর্ ব্যবহারের সুবিধা।

স্মাটের্ফানটিতে গুগলের নিউ ম্যাটেরাইল ডিজাইন, দীঘর্স্থায়ী ব্যাটারি, নিরাপত্তায় পযার্প্ত ব্যবস্থা ও অত্যাধুনিক নোটিফিকেশন সুবিধাসহ নানা আপডেট পাওয়া যাবে। মাইক্রোম্যাক্স জানিয়েছে, কেনার পর দুই বছর পযর্ন্ত এতে পাওয়া যাবে ফ্রি আপডেট।

মাইক্রোম্যাক্সের ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস হেড অমিত মাথুর বলেন, গ্রাহকরা এখন অধিকতর ও অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধা সংবলিত এবং নিয়মিতভাবে বিভিন্ন আপডেট পাওয়া যায় এমন স্মাটের্ফান ব্যবহারের অপেক্ষায় থাকেন। সেজন্য গুগলের সঙ্গে অংশীদারিত্বের মাধ্যমে বাংলাদেশের বাজারে ক্যানভাস এ১ হ্যান্ডসেট নিয়ে আসা হয়েছে। এই সেট ব্যবহারকারীদের জন্য পরবতীর্ দুই বছর গুগল থেকে সরাসরি সব আপডেট পাওয়ার নিশ্চয়তা রয়েছে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে