logo
শনিবার ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬

  রঙ বেরঙ ডেস্ক   ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

শুভ্রতা থাক সাজে

শুভ্রতা থাক সাজে
প্রকৃতির রোদ-ছায়ার খেলা প্রভাব ফেলে আমাদের মনেও। আর তখন ইচ্ছা করে প্রকৃতির মতোই সাজ পোশাকে সেজে উঠতে। আর তাই তো এখনকার শরতের প্রকৃতির এই মনমাতানো সাজ কখনো উঠে আসে বাঙালি নারীর শাড়ির আঁচলে এক টুকরো নীল আকাশ হয়ে। কখনো বা সাদা পোশাকে। তবে পোশাকে সাদার ছোঁয়া আর সাজে চাই পরিপাটি ভাব। হালকা মেকআপের এই লুকে আপনি হয়ে উঠবেন অসাধারণ।

প্রকৃতির এ সময়ে সাজগোজে ব্যাপক পরিবর্তন হয়। তবে এ পরিবর্তন নির্ভর করে নিজস্ব রুচির ওপর। যারা একটু বেশি রঙিনভাবে সাজতে চান তারা পোশাকের রঙের বিপরীত রংও বেছে নিতে পারেন। এটি চোখের কাজল, শ্যাডো, লিপস্টিক সব ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য। দিনের বেলা বস্নাশন এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করুন। পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে কপালে টিপ দিতে পারেন। এরপর হালকা মেকআপ করে ডার্ক ব্রাউন আইব্রো শ্যাডো দিয়ে আইব্রো শেপ করে নিন। স্কিন কালার লিপলাইনার দিয়ে ঠোঁট ভালো করে একে নিন। এবার ঠোঁটে স্কিন কালার লিপস্টিক দিন। সবশেষে সামান্য সিমারি গোল্ডেন লিপগস্নস দিন। সামনের দিকে একপাশ সিঁথি করে চুল হালকা পাফ করে নিন। এবার পেছনের চুলগুলো চিকন বেণি করে পেঁচিয়ে খোঁপা করে নিন।

শরতের সাজে শাড়িই বেশ ভালো মানায়। একরঙা সাদা বা অফ-হোয়াইট শাড়ি বেছে নিতে পারেন। দেখতে মন্দ লাগবে না। তবে বস্নাউজটা হওয়া চাই একটু গর্জিয়াস। মনে রাখবেন, শাড়ির সৌন্দর্যটা পুরোপুরি নির্ভর করছে বস্নাউজের কাটিং এবং ডিজাইনের ওপর। ভারী কাজের একটি বস্নাউজ শাড়িকে আরও বেশি গর্জিয়াস করে তোলে। তবে আপনার শাড়ি যদি গর্জিয়াস হয় তাহলে সিম্পল বস্নাউজ পরলে বেশি ভালো লাগবে। চাইলে স্স্নিভলেস বস্নাউজ পরতে পারেন। মানাবে ভালো। যেহেতু সাজটা স্নিগ্ধ, তাই জমকালো গয়না না পরাই ভালো। কানে হালকা একটা দুল পরে নিন। তবে সাদা বা সিলভার রঙের দুল বেছে নিতে পারেন। আর হাতে ভারী একটা ব্রেসলেট পরুন। শাড়ির সঙ্গে এ ধরনের গয়না আপনাকে আরও বেশি স্নিগ্ধ করে তুলবে।

সকালে বা দিনের যে কোনো সময় আর রাতে ঘুমানোর আগে ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুতে হবে। যত নরম সাবানই হোক, তাতে ত্বকের জন্য ক্ষতিকর নানা উপাদান থাকে। নিয়মিত সাবান ব্যবহারে মুখের ত্বকে বলিরেখা পড়তে পারে। মুখের ত্বকে তাই সাবান ব্যবহার না করাই ভালো। সপ্তাহে একদিন যে কোনো স্ক্রাব দিয়ে মুখ পরিষ্কার করতে হবে। ত্বকে যাতে তেল না জমে থাকে, সেদিকে খেয়াল রাখুন। নইলে তেল আর ময়লা জমে ব্রণ হতে পারে। ত্বকের তেলতেলে ভাব কাটাতে কমপ্যাক্ট পাউডার ব্যবহার করুন। বরফ দিয়ে ম্যাসাজ করলেও উপকার পাবেন। রাতে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ঘরে ঘুমালে অবশ্যই ত্বকে ময়েশ্চারাইজার লাগাতে হবে। সব সময় নামি প্রতিষ্ঠানের তৈরি প্রসাধন সামগ্রী ব্যবহার করবেন।

এ সময় প্রতিদিন চুল ধুতে হবে। যারা বাইরে বেশি কাজ করেন, তারা সম্ভব হলে প্রতিদিনই চুল শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে কন্ডিশনার লাগান। সপ্তাহে অন্তত দুদিন মাথায় গরম তেল ম্যাসাজ করুন। নারিকেল তেলই চুলের জন্য সবচেয়ে ভালো। সারা রাত লাগিয়ে রেখে পরদিন শ্যাম্পু করুন। এতে ঘুমও ভালো হবে। তেলের সঙ্গে যে কোনো প্রোটিনসমৃদ্ধ প্যাকও লাগাতে পারেন। ডিম, আমলা, টকদই-এসব দিয়ে তৈরি প্যাক লাগালে ভালো। রাতে ঘুমানোর আগে চুল ভালো করে আঁচড়ে নিন। লম্বা চুল হলে পাতলা স্কার্ফ দিয়ে মুড়িয়ে ঘুমাতে পারেন। চুলের ডগা ফেটে যাওয়ার ভয় থাকবে না। দিনে চলাফেরার সময় চুল বেঁধে রাখলে কম ময়লা হবে। খুশকি থেকে বাঁচতে চুল সব সময় পরিষ্কার ও শুকনো রাখুন। এজন্য চুল ধুয়ে ফ্যানের বাতাসে শুকিয়ে নিন।

প্রথমে মুখ ভালো করে ধুয়ে এক টুকরা বরফ ঘষে নিন। এতে গরমে মুখ ঘামাবে না। এবার সামান্য লিকুইড ফাউন্ডেশন হাতে নিয়ে একটি বাফিং ব্রাশ দিয়ে বেইজ করে নিন। ব্রাশ দিয়ে এমনভাবে ফাউন্ডেশন বেস্নন্ড করে দিন যাতে ত্বকের সঙ্গে মিশে যায়। চোখের নিচের কালো দাগের জন্য সামান্য কনসিলার লাগাতে পারেন। পাফ ভিজিয়ে মুখে হালকাভাবে প্যানকেক দিয়ে বেইজটা ভারী করে নিন। এতে মেকআপটা ভালোভাবে সেট হবে। সবশেষে ফিনিশিং পাউডার দিয়ে পুরো মেকআপ সেট করে নিন। থিক একটি ব্রাশ দিয়ে মুখে ভালো করে পাউডার বেস্নন্ড করে দিন। ডার্ক ব্রাউন কালার কন্টোরিং পাউডার দিয়ে দুই পাশের গালে কন্টোরিং করে নিন। চিক ও কানের মাঝখান থেকে একটু নিচ পর্যন্ত টেনে কন্টোরিং করে নিন। এবার দুই চিকে ব্রাউন কালার বস্নাশন দিন। বস্নাশন ব্রাশ দিয়ে ভালোভাবে সমান পরিমাণ বস্নাশন ব্যবহার করুন। চোখে প্রথমে হালকা ব্রাউন কালার আইশ্যাডো দিন। এবার আইলিডের ওপর গোল্ডেন আইশ্যাডো ভালো করে বেস্নন্ড করে নিন। সবশেষে হাইলাইটে সিমারি হোয়াইট কালার আইশ্যাডো দিন। চোখকে প্রমিনেন্ট করতে টেনে আইলাইনার ব্যবহার করুন। আপনি চাইলে আইল্যাশ ব্যবহার করতে পারেন। এবার গাঢ় করে মাশকারা দিন।

ডার্ক ব্রাউন আইব্রো শ্যাডো বেছে নিন। চিকন ব্রাশের সাহায্যে এই আইব্রো শ্যাডো দিয়ে আইব্রো শেপ করে নিন। স্কিন কালার লিপলাইনার দিয়ে ঠোঁট ভালো করে একে নিন। এবার ঠোঁটে স্কিন কালার লিপস্টিক দিন। সবশেষে সামান্য সিমারি গোল্ডেন লিপগস্নস দিন। সামনের দিকে একপাশ সিঁথি করে চুল হালকা পাফ করে নিন। এবার পিছনের চুলগুলো চিকন বেণি করে পেঁচিয়ে খোঁপা করে নিন। দেখতে ভালো লাগবে।

জুতা ও ব্যাগ

শাড়ির সঙ্গে হাই হিল পরলে দেখতে ভালো লাগবে। তবে সেমি হাইহিলও পরা যায়। আর অবশ্যই একটি ক্লচ ব্যাগ। সবশেষে দেয়া চাই মিষ্টি ঘ্রাণের সুগন্ধি।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে