logo
বুধবার ২১ আগস্ট, ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ১১ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০  

সংবাদ সংক্ষেপ

বয়স হারাক সঠিক যত্নে

য় রঙ বেরঙ ডেস্ক

একটা সময়ের পর সবারই কমবেশি ত্বকে বয়সের ছাপ পড়তে শুরু করে। কিন্তু নানা কারণে অনেকের ২৫ বছর বয়সের পর পরই বলিরেখা দেখা যায়। আর ৪০-এর পরে তো কথাই নেই! এটি নিয়ে দুশ্চিন্তার কিছু নেই। নিয়মিত যত্নের মাধ্যমে এগুলো দূর করা সম্ভব।

সাধারণত অতিরিক্ত মানসিক চাপ, সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি ত্বকে সরাসরি প্রবেশ, অতিরিক্ত রাগ ও ঘুমের সমস্যা হলে মধ্য বয়সের আগেই বলিরেখা ও ভাঁজ পড়ে থাকে। এ জন্য প্রতিদিনের অভ্যাস, এমনকি খাদ্যাভ্যাসেও পরিবর্তন আনতে হবে। সমস্যাকে মোকাবিলা করা শিখতে হবে। সবসময় হাসিখুশি থাকতে হবে। তাহলে মন ভালো থাকবে। ত্বকেও তার প্রভাব পড়বে। পাশাপাশি অ্যান্টি-অক্সিডেন্টযুক্ত খাবার খেতে হবে। শাক-সবজি, ফলমূল, বিশেষ করে গাজর, মিষ্টিকুমড়া, টমেটো ও ভিটামিন 'সি'যুক্ত সব খাবার খেতে হবে। তাহলে ত্বক প্রয়োজনীয় পুষ্টি পাবে। এ ছাড়া নানা কারণে দ্রম্নত রেগে যাই আমরা। সেটাকে নিয়ন্ত্রণ করলে ত্বকে ভাঁজ পড়বে না। আপনিও বয়সের ছাপ পড়া থেকে মুক্তি পেলেন। নিয়মিত ব্যায়াম ও যোগাসন মানুষের মন এবং শরীরকে তরুণ রাখে। ঘরে বসে সঠিক পদ্ধতিতে বজ্রাসন, ধনু আসন করতে পারেন। এতে শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকবে। রক্ত সঞ্চালন সঠিকভাবে হবে।

হঠাৎ ব্রণে

চিন্তা নেই

য় রঙ বেরঙ ডেস্ক

অনেকেই ভাবেন, ত্বকে ময়লা জমে ব্রণ হয়েছে তাই লোমকূপ খুলে দিতে হবে। এই ভেবে তারা নিয়মিত গরম ভাপ নেন। গরম পানির ভাপ নেয়া যাবে, কিন্তু তা মাসে সর্বোচ্চ একবার। নিয়মিত ভাপ নেয়া মোটেই ঠিক নয়। কারণ, নিয়মিত ভাপ নিলে লোমকূপের মুখ বড় হয়ে যায়। চেহারায় খাদ তৈরি হয়। চোখের চারপাশের কোষগুলোরও ক্ষতি হয়। তাই ব্রণ দেখা দিলেই অস্থির না হয়ে কিছুদিন অপেক্ষা করে দেখুন। একটু সময় নিলে অযাচিত ব্রণ এমনিতেই চলে যাবে।

রূপবিশেষজ্ঞ শাহানা আকতার বলেন, 'আমাদের মুখের ত্বকে স্বাভাবিকভাবেই তেলের উপস্থিতি থাকে। ত্বকের সুরক্ষা নিশ্চিত না করে বাইরের রোদ, ধুলাবালি, ময়লা, পানি ইত্যাদি মুখে লাগালে এবং নিয়মিত ত্বক পরিষ্কার না করলে ব্রণ হওয়া স্বাভাবিক। হঠাৎ ব্রণ হলে প্রথমে খুঁজে বের করতে হবে কেন ব্রণ হলো। মেয়েদের ঋতুস্রাব চলাকালেও ব্রণ হতে দেখা যায়। এ ছাড়া অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা, অনিদ্রা, অ্যালার্জি আছে এমন খাবার খেলে ব্রণ হতে দেখা যায়। এসব বিষয়ে সতর্ক থাকলে ব্রণের সমস্যা চলে যাবে। অধিকাংশ সময় দেখা যায়, হঠাৎ ওঠা ব্রণ হঠাৎই চলে যায়। এ নিয়ে চিন্তার কিছু নেই। তবে সতর্ক হতে হবে। নিয়মিত ক্লেনজার ও টোনার দিয়ে ঘুমানোর আগে ও পরে মুখ পরিষ্কার করতে হবে। তা ছাড়া বরফও ঘষতে পারেন মুখে। বরফ দিলে ব্রণ কমে। কোনো নিমন্ত্রণ বা খুব তাড়া থাকলে লবঙ্গ পেস্ট করে ব্রণের ওপর লাগিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ। দু-একদিনের মধ্যেই ব্রণ চলে যাবে।' শাহানা আরও বলেন, হঠাৎ ওঠা ব্রণের প্রতিকার করতে অনেকেই নখ বা সূক্ষ্ণ কিছু দিয়ে ব্রণের শাল বের করে দেন। এ অভ্যাসটাকে তুলনা করা যায় নিজেই নিজের পায়ে কুড়াল মারার সঙ্গে।

বড় চুলের যত্নে

য় রঙ বেরঙ ডেস্ক

শখের লম্বা চুল যাতে গরমে যন্ত্রণার কারণ না হয়, তাই নিয়মিত যত্ন নিতে পারেন। এখন বাইরে অনেক ধুলোবালু তাই নিয়মিত চুলে শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার দিয়ে পরিষ্কার রাখা উচিত। মাঝেমধ্যে চুলে হট অয়েল ট্রিটমেন্ট করা যেতে পারে। হালকা গরম তেল চুলে লাগিয়ে তোয়ালে পেঁচিয়ে রেখে মাথা ধুয়ে নিলে উপকার পাওয়া যাবে। এ ছাড়া ঘরে বসেই প্যাক তৈরি করে লাগাতে পারেন। ডিমের সাদা অংশের সঙ্গে অল্প পরিমাণে মধু আর জলপাই তেল মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে চুলে মেখে নিন। এরপর ২০ মিনিট রেখে গোসল করে চুল ধুয়ে ফেলুন। যাদের চুল ঝরে যাচ্ছে, তারা পেঁয়াজের রস লাগিয়ে নির্দিষ্ট সময় পর ধুয়ে ফেললে উপকার পাবেন।

বাইরে গেলে পোশাকের সঙ্গে মানিয়ে চুলটাকে বেঁধে নিতে পারেন ব্যান্ড দিয়ে। এতে চুল যেমন ভালো থাকবে, তেমনি স্টাইলও ঠিক থাকবে। হ্যাট ছাড়াও ব্যান্ড না পরে বাইরে গেলে ধুলোবালু থেকে চুল সুরক্ষিত থাকবে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে