logo
বুধবার ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৮, ৫ পৌষ ১৪২৫

  সোনিয়া সুলতানা   ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০  

এই শরতের বিদায় বেলায়

এই শরতের বিদায় বেলায়
রঙের ক্ষেত্রে শরৎ মানেই হালকা কিছু মডেল : সোমা ভ‚মি
শরতের আছে নিজস্ব বণর্ আর গন্ধ। দেশীয় পোশাক নকশাকাররা তাই শরতের জন্য বেছে নেয়, সাদা, নীল, সবুজ আর সোনালি রং। শরৎ যেন আবার নানান রঙের ছড়াছড়ি। শরতের আবহাওয়ায় চলে লুকোচুরি খেলা। এই গরম, যে কোনো মুহূতের্ই শুরু হয় ঝমঝম বৃষ্টি। তাই পোশাকের রঙের ক্ষেত্রে নীল এবং সবুজ রঙের কম্বিনেশনও দারুণ মানাবে। পাশাপাশি লাল আর কমলার ব্যবহার তো সবর্ত্রই গ্রহণযোগ্য। অনেকের কাছেই, রঙের ক্ষেত্রে শরৎ মানেই হালকা কিছু। আর তাই শরতের নীল এবং বেগুনির পাশাপাশি সাদা, সবুজ, টিয়া, কমলা, হালকা কালো প্রভৃতি রঙের পোশাকও দারুণ মানানসই।

তাই তো যারা শাড়িকে পোশাক হিসেবে বেশি প্রাধান্য দেন, তারা বেছে নিতে পারেন হালকা রঙের শাড়িগুলো। ফিকে নীল শাড়িতে জরিপাড় দেয়া, চঁাপাফুল রং, ধানি রং, সাদা জমিনে বুটি তোলা জামদানি শাড়ি এবং এর সঙ্গে ম্যাচিং বøাউজ। বøাউজের হাতা থ্রি কোয়াটার্র হলে ভালো মানাবে। তার সঙ্গে চুলের ক্ষেত্রে হাতখেঁাপা আপনাকে দেবে স্নিগ্ধতার পরশ। চুলের সাজে শরতে জমকালো কোনো স্টাইল বেছে না নেয়াই ভালো। কারণ হালকা পোশাকের সঙ্গে জমকালো চুলের স্টাইল মানানসই নয়।

যারা সালোয়ার-কামিজ পরবেন তারাও এরকম হালকা রংগুলোই বেছে নিতে পারেন। একেক ঋতুতে একেক রঙের পোশাকের প্রাধান্য থাকে। শরৎকালের নীল রং তো রয়েছেই, এ ছাড়া দিনের বেলা সাদা, অফহোয়াইট, স্কাই, বøুু, পেস্ট কালারসহ অন্য উজ্জ্বল রঙের পোশাক পরলে দারুণ লাগবে। তবে রাতের পাটিের্ত যে কোনো রঙের পোশাক পরা যেতে পারে। তবে সালোয়ার-কামিজ যথাসম্ভব সুতি হলে ভালো হবে। সালোয়ার-কামিজের সঙ্গেও চুলের ক্ষেত্রে বেছে নিতে পারেন খেঁাপা বা বিভিন্ন স্টাইলের বেণি। এ ছাড়া চুলে গুঁজে দেয়া যেতে পারে যে কোনো শরতের ফুল। টিনএজাররা চুলগুলো একটু টেনে পনিটেল করে নিলে বেশ ভালো মানাবে। তার সঙ্গে সুতি ও অ্যান্ডি কাপড়ে তৈরি বøকপ্রিন্ট, স্ক্রিনপ্রিন্ট, হাতের কাজ ও অ্যামব্রয়ডারি করা ফতুয়া, স্কাটর্ দারুণ ফ্যাশনেবল।

শরতে পোশাকের রং বাছাই করার ক্ষেত্রে এই ঋতুর সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে চললেই দেখতে বেশ ভালো দেখাবে। শরতের কাশফুল আর নীল সাদা আকাশের সঙ্গে মিলিয়ে সাদা, ধূসর, নীল ইত্যাদি রং প্রাধান্য দেয়া যেতে পারে। এই ঋতুর সঙ্গে যে কোনো নীল রং বেশ মানিয়ে যায়। সাদা, ঘিয়ে, হালকা গোলাপি ইত্যাদি রং

বেছে নেয়া যেতে পারে।

যাদের গায়ের রং একটু চাপা তারা হালকা নীল এবং যাদের গায়ের রং উজ্জ্বল তারা গাঢ় নীল পোশাক বেছে নিতে পারেন। কিশোরী ও তরুণীরা যে কোনো রং বেছে নিতে পারেন পোশাকের ক্ষেত্রে। তবে একটু বয়স্করা সাদা, ধূসর অথবা হালকা নীল রং বেছে নিলে দেখতে ভালো লাগবে। যাদের গায়ের রং কিছুটা চাপা তাদের মধ্যে এক ধরনের ধারণা কাজ করে যে, সাদা রঙের পোশাকে দেখতে আরও কালো দেখাতে পারে। এ ক্ষেত্রে অফ হোয়াইট বা ক্রিম রং বেছে নেয়া যেতে পারে। সাদা রং হলো ক্যানভাসের মতো। এই রঙের সঙ্গে যে কোনো রং মানিয়ে যায়। তাই কেউ যদি শুধু সাদা পোশাক এড়িয়ে চলতে চান, তাহলে সাদার সঙ্গে অন্য রং নিয়ে খেলা করতে পারেন। সাদার প্রাধান্য ধরে রাখতে চাইলে সাদা পোশাকের ওপর সোনালি বা ব্রোঞ্জ রঙের সুতার কাজ বা বøক করা পোশাক পরা যেতে পারে। তা ছাড়া সাদা পোশাকের সঙ্গে অন্য রঙের ওড়না, সাদা শাড়ির সঙ্গে অন্য রঙের বøাউজ বেশ মানানসই।

সাদার সঙ্গে অন্য রঙের গহনা পরেও নতুনত্ব আনা যেতে পারে। তা ছাড়া অনুষ্ঠানে সাদা পরলে কিছুটা ভিন্নতা আনতে উজ্জ্বল রঙের জুতা বেছে নেয়া যেতে পারে। সে ক্ষেত্রে হাতের ব্যাগ বা পাসর্ও হতে হবে একই রঙের। অলঙ্কারের রংও মিলিয়ে নেয়া যেতে পারে।

তবে শুধু সাদাই নয়, এই সময় যে কোনো রংই বেছে নেয়া যায়। কেউ চাইলে উজ্জ্বল রঙের পোশাকও বেছে নিতে পারেন। তবে সে ক্ষেত্রে কোথায় যাচ্ছেন এবং উপলক্ষ কী; সে বিষয়ও মাথায় রাখতে হবে। এই সময়ে গরম পুরোপুরি যায় না, তাই সেদিক থেকে চিন্তা করলে হালকা রং বেছে নেয়াই বুদ্ধিমানের হবে।

প্রকৃতির ছেঁায়ায় নিজেকে সাজিয়ে তুলতে হতে হবে সামান্য বুদ্ধিমতী। প্রকৃতি আর পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে আপনিও দিতে পারেন শরতের পরিপাটি সাজ।

তবে রোদের তেজ আর গরমের তীব্রতা যেহেতু কমেনি আর বষার্র প্রভাব ও লক্ষ্য করা যাচ্ছে, তাই পোশাকের রং বাছাই ও মেকআপের ক্ষেত্রে হালকা মেকআপ বেছে নেয়া অত্যন্ত জরুরি। মেকআপের বেইজ যতটা সম্ভব স্বাভাবিক রাখা উচিত। কারণ এতে দেখতে ভালো ও স্নিগ্ধ লাগবে। চোখে সাদা আইশ্যাডো ব্যবহারে চেহারায় উজ্জ্বলভাব ফুটে ওঠে। তা ছাড়া সাদা বাদে রুপালি, হালকা গোলাপি, বেইজ বা ঘিয়ে, হালকা বাদামি ইত্যাদি রংও ভালো মানাবে।

এ সময় পরিবেশ খুবই স্নিগ্ধ থাকে। তাই হালকা রঙের লিপস্টিকগুলোই বেশি ভালো লাগে। তবে কেউ যদি গাঢ় রং বেছে নেন, সে ক্ষেত্রে চোখের মেকআপ এড়িয়ে চলতে হবে। শুধু মাশকারা বা হালকা কাজল পরতে পারেন চোখে। আর গাঢ় লিপস্টিকের ক্ষেত্রেও গোলাপি বা মৌভ রং বেছে নেয়া উচিত। ফলে দেখতে উগ্র লাগবে না।

এই মৌসুমে পোশাকের সঙ্গে রুপার গহনা বেশি ভালো লাগবে। তা ছাড়া কাঠের, সুতার বা অন্যান্য গহনাও পরা যেতে পারে। আর মুখের গড়ন হিসেবে এবং নিজের সঙ্গে মানানসই কপালে একটি টিপ এই সময়ের সাজে পূণর্তা এনে দেবে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
অাইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে