logo
মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬

  আলিজা ইভা   ০৪ মার্চ ২০১৯, ০০:০০  

হতাশ হওয়া ভালো নয়

হতাশ হওয়া ভালো নয়
হতাশা হচ্ছে এমন একটা বিষয় যা আপনার ভেতরে বাতাসের মতো হুট করে প্রবেশ করবে এবং আপনাকে নিজের ভেতর থেকে দূরে সরিয়ে রাখবে। যখন নিজের লক্ষ্য ও স্বপ্নপূরণের পথে কোনো বাধা আসে তখনই দেখা দেয় হতাশা। যখন আপনি কাজে যথাযথ মনোযোগ দিতে পারছেন না তখন বুঝবেন হতাশা কাজ করছে আপনার ভেতরে। হতাশার ফলে আপনি মানসিক শক্তি হারিয়ে ফেলবেন এবং এটা আপনার মূল্যবান সময়ও গোপনে চুরি করে নেবে।

তবে হতাশা যে শুধু আপনার জন্য নেতিবাচক হয়েই দেখা দেয় তা নয়। এর ইতিবাচক দিকও রয়েছে। হতাশা কখনো কখনো আপনাকে নতুন আইডিয়া বা নতুন কোনো কিছু করার পথ করে দিতে পারে। অথবা লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য আপনাকে নতুনভাবে উদ্দীপ্তও করতে পারে।

তাই হতাশা দেখা দিলেই ভেঙে পড়া ঠিক হবে না। হতাশাকে দূর করে নিজেকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। হতাশা দূর করার কিছু উপায় থাকল আপনাদের জন্য।

হতাশা দেখা দিলে প্রথমেই এর উৎস ভেবে বের করতে হবে। কাজটা খুব কঠিন নয়। আর সমস্যা চিহ্নিত করতে পারলে সমাধানও আসবে। কিন্তু সমস্যা যদি নিজের মধ্যেই হয় তবে তা খুঁজে বের করা কঠিন হয়ে পড়ে। তবে সমস্যা থাকলে সমাধানও আছে। অফিসের পরিবেশ পছন্দ হচ্ছে না বা প্রিয়জনের সঙ্গে মনোমালিন্য হচ্ছে, তাহলে তা সাময়িকভাবে বিষাদ করে দিতে পারে জীবনকে। কিন্তু মনে রাখবেন এ ছাড়া আপনার জীবনে আরও অনেক কাজ রয়েছে। অবসর সময়ে নতুন চাকরি খুঁজতে পারেন অথবা আপনার প্রিয় গানটি শুনেও দূর করে ফেলতে পারেন ভেতরের হতাশা।

আপনার দৈনন্দিন জীবনধারায়ও আনতে পারেন কিছু পরিবর্তন। যেসব কাজে আপনার মন আরও বেশি হতাশ হয় সেসব কাজ এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন। দেখবেন উদ্বেগ আর হতাশা অনেকটাই কেটে গেছে।

ব্যর্থতাই জীবনের শেষ কথা নয়। কাজে ব্যর্থতা আসতেই পারে। তা নিয়ে কিন্তু বসে থাকলে চলবে না। এ সময়ে কোনো সফল মানুষের পরামর্শ নিন অথবা সম্ভব হলে সফল মানুষের জীবনী পড়ুন। তা ছাড়া নিজের অতীতের কিছু ভালো সময়ের কথা ভাবলেও দেখবেন হতাশা কেটে গেছে।

নিজেকে তুচ্ছ ভাববেন না। কাজের জায়গায় নিজেকে গুরুত্বপূর্ণ করে তুলুন। অন্যকে কাজে সাহায্য করুন। দেখবেন আত্মবিশ্বাস বাড়ছে। হতাশাও কাটছে।

প্রয়জনকে জানিয়ে দিন আপনার মনের কথা। সেও হয়তো অপেক্ষা করছে, আপনার মুখে ভালোবাসার কথাটি শোনার জন্য।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে