logo
রোববার ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮, ২ পৌষ ১৪২৫

  শামীমা জান্নাত   ০৮ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০  

আকষর্ণীয় ব্যক্তিত্বের মানুষ হতে

আকষর্ণীয় ব্যক্তিত্বের মানুষ হতে
প্রত্যেকেই চায় আকষর্ণীয় ব্যক্তিত্বের মানুষ হতে এবং প্রত্যেকেরই আকষর্ণীয় হওয়ার যোগ্যতা বা গুণ আছে। কিন্তু ইচ্ছা করেই, বা অজ্ঞাতসারেই অনেকে বিরক্তিকর হয়ে ওঠে বা বিরক্তিকর থেকে যায়। আপনি যদি সে ধরনের মানুষ হতে না চান তাহলে নিচের লক্ষণগুলো থেকে জেনে নিন, কোন অভ্যাসের কারণে একজন মানুষ আসলে খুবই বিরক্তিকর হিসেবে গণ্য হয়।

বিজনেস ইনসাইডার চরম বিরক্তিকর মানুষের কিছু বৈশিষ্ট্যের কথা বলেছে। সেগুলো মাথায় রাখতে পারেন যারা বিরক্তিকর মানুষ হতে না চান বা তাদের কাছ থেকে দূরে থাকতে চান। সেরকম সাতটি বৈশিষ্ট্য হচ্ছে :

ড্রিউ অস্টিন নামে এক মনোবিদ জানান, বিরক্তিকর ব্যক্তিরা কখনই কোনো কথোপকথনে বিপরীত পাশের ব্যক্তিটির কথা চিন্তা করেন না। অথার্ৎ অন্যরা কী ভাবতে পারে, তাদের মনোভাব কী সেটা নিয়ে ভাবেন না।

তিনি আরও বলেন, একজন ব্যক্তি যখন অন্য আরেকজনের অবস্থান বা পরিস্থিতি সম্পকের্ চিন্তাভাবনা করতে পারবে তখনি সে আকষর্ণীয় ও আলাপযোগ্য ব্যক্তি হয়ে উঠবে।

মানুষ তখনি বিরক্তিকর হয়ে ওঠে যখন সে তার কথোপকথনে অন্য কাউকে যোগ করে না। আর সেটি উপলব্ধি করা যায় তখনি যখন সেই বিরক্তিকর ব্যক্তিটি শুধু তার নিজের বক্তব্যকে অতিমাত্রায় ব্যাখা করতে চান। হোক সেটা প্রয়োজনীয় কিংবা অপ্রয়োজনীয়।

যদি আপনি বুঝতে না পারেন যে আপনার কথোপকথন থেকে কেউ নিজেকে সরিয়ে নিচ্ছে বা আপনার সঙ্গে বেশিক্ষণ আলাপ করতে চান না তাহলে বুঝতে হবে আপনি একজন বিরক্তিকর মানুষ।

বিরক্তিকর মানুষের দিকে খেয়াল করলে দেখা যাবে তাদের মধ্যে ইতিবাচক পরিবতর্ন নিয়ে আসতে তারা আন্তরিক ও আগ্রহী নয়। তারা হয়তো মনে করে সব শিখে ফেলেছে, সব অজর্ন হয়ে গিয়েছে। এজন্য নতুন কিছু আর শেখার তাড়না বা প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে না। এই গুণটি তাদের কেবল বিরক্তিরই রেখে দেয়। অথচ ইতিবাচক ও আকষর্ণীয় মানুষ নতুন নতুন জিনিস শেখে, নিজের মধ্যে প্রয়োজনীয় পরিবতর্ন নিয়ে এসে আকষর্ণীয় ব্যক্তিত্ব হয়ে ওঠেন।

বিরক্তিকর মানুষ যেহেতু কি বলবে বা কি করবে সে বিষয়ে সচেতন নয় এজন্য তারা যখন কথা বলে বেশির ভাগই বিরক্তিকর ও একঘেয়েমিপূণর্। তাদের হাসি-তামাশা দুঃখজনক আবার তাদের গম্ভীরতা হাস্যকর।

যেসব ব্যক্তি সবসময় নেতিবাচক ও হতাশাপূণর্ থাকে তারা বিরক্তিকর। তিনি নেতিবাচকতাকে তিন ভাগে ভাগ করেছেন।

কেন আমার সঙ্গেই এমন হচ্ছে? আমার প্রতিই কেন এসব অবিচার?

ওর জন্য আমি এই কাজটা করতে পারলাম না। নিজের ব্যথর্তার জন্য কোনো একটা ইস্যুকে দোষারোপ করা।

এর দায়ভার রাষ্ট্রের। এটা সমাজব্যবস্থার জন্য হলো। আমার পরিবার এর জন্য দায়ী।

বিরক্তিকর মানুষ বারবার একই কথার পুনরাবৃত্তি করে বিরক্তির মাত্রা বাড়িয়ে দেন।

নেলাক্যানভিচ নামে এক বিশেষজ্ঞ বলেন, ‘আমি সেই সব লোকের কথায় বিরক্ত, যারা কথায় কথায় বলে বসে তাদের কিছু ভালো লাগে না, সবসময় কেমন জানি উদাস উদাস লাগে।’

সব সময় যদি আপনি ভেবেই থাকেন আপনার কিছুই ভালো লাগছে না, সব কিছুই কেমন বিরক্তিকর তাহলে উদাসীনদের দলে আপনাকে স্বাগতম। যা কিছু ভালো লাগে সেই জিনিস নিয়ে আপনার মনের আনন্দ প্রকাশ করুন।

সবাইকে দেখিয়ে দিন যে আপনি বিরক্তিকর না। আপনার ইচ্ছাই আপনাকে উদাসীনতা থেকে মুক্ত করবে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
অাইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে