logo
বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯, ২৯ কার্তিক ১৪২৬

  আইন ও বিচার ডেস্ক   ০৫ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

জেনে নিন

চার বছরেরও কম সময়ে স্বামীর হাতে খুন ৭৯৪ নারী, মামলা মাত্র ৩৪৭টি

চার বছরেরও কম সময়ে বাংলাদেশে প্রায় ৮০০ নারী স্বামীর হাতে খুন হয়েছেন। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই যৌতুকের জন্য তারা সহিংসতা বা হত্যার শিকার হন। অধিকাংশ ঘটনারই বিচার দূরের কথা, কোনো মামলাও হয় না।

চলতি বছরের প্রথম ৯ মাসে সারা দেশে ১৫২ জন নারী স্বামীর হাতে খুন হয়েছেন। আগের বছর ১২ মাসে এই সংখ্যা ছিল ১৯৩ জন। ২১৩ জন খুন হয়েছেন ২০১৭ সালে। আর ২০১৬ সালে ১৯১ জন নারী স্বামীর হাতে হত্যার শিকার হয়েছেন। সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে এই পরিসংখ্যান তৈরি করেছে আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক)। তারা বলছে বাস্তবে সংখ্যাটি আরও বেশি হতে পারে।

এ সব হত্যাকান্ডের ঘটনায় বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই কোনো মামলা করা হয় না। ২০১৬ সাল থেকে হিসাব করলে এখন পর্যন্ত ৭৯৪ জন নারী স্বামীর হাতে হত্যার শিকার হয়েছেন। কিন্তু এই সময়ে মামলা হয়েছে মাত্র ৩৪৭টি। অর্থাৎ ৪৪৭টি ঘটনার মামলাই হয়নি।

নারীরা সহিংসতা ও হত্যার শিকার হওয়ার ক্ষেত্রে স্বামীর পাশাপাশি তার পরিবারের অন্য সদস্যদেরও ভূমিকা থাকে। চলতি বছরের প্রথম ৯ মাসে হত্যাসহ পরিবারে সহিংসতার শিকার হয়েছেন ২৯৭ জন। স্বামীর হাতে ১৫২ জন নিহত হওয়ার ঘটনা বাদ দিলে ১৪৫ জন বিভিন্নভাবে নির্যাতিত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ১৫ জন খুন হয়েছেন স্বামীর পরিবারের সদস্যদের হাতে।

বাকিরা পরিবারের সদস্য এবং স্বামীর হাতে নানা ধরনের সহিংসতা শিকার হয়েছেন। নির্যাতনের কারণে আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছেন ৪২ জন। আগের বছরগুলোর হিসাব দেখলেও একই ধরনের চিত্র পাওয়া যায়।

স্ত্রী হত্যার ঘটনা সবচেয়ে বেশি ঘটছে যৌতুকের জন্য। চলতি বছর ৭০ জন নারী এই কারণে হত্যার শিকার হয়েছেন, নির্যাতিত হয়েছেন ৪৪ জন। তিনজন আত্মহত্যায় বাধ্য হয়েছেন। এর বাইরেও বনিবনা না হওয়া, পারস্পরিক সন্দেহ, অবিশ্বাস, বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের কারণেও হত্যাকান্ড ঘটছে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে