logo
বুধবার ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৮, ৫ পৌষ ১৪২৫

  অনলাইন ডেস্ক    ২১ জুলাই ২০১৮, ০০:০০  

সংবাদ সংক্ষেপ

চুল পড়া

রোধে রসুন

সুস্বাস্থ্য ডেস্ক

চুল পড়া রোধে রসুন গুরুত্বপূণর্ ভ‚মিকা রাখে। চুল পড়া প্রতিরোধে রসুন অনেকটা ম্যাজিকের মতো কাজ করে। এটি শুধু চুল পড়া ঠেকায় না সেই সঙ্গে মাথার ত্বকের ইনফেকশন ও খুশকি দূর করতে সহায়ক। শুধু তাই নয়, রসুন নতুন চুল গজাতেও সাহায্য করে বলে বিশেষজ্ঞদের অভিমত।

বিশেষজ্ঞদের মত, তেলের মতো করে চুলে ও মাথার ত্বকে রসুনের রস লাগালে অনেক দ্রæত নতুন চুল গজায়। রসুনের রসে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ এলিসিন যা রক্তে হিমোগেøাবিন সঞ্চালন বাড়িয়ে দিয়ে নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে। এ ছাড়া রসুনে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে কপার যা চুলকে ঘন ও স্বাস্থ্যোজ্জ্বল করে তোলে।

ব্যবহার পদ্ধতি

প্রথম ধাপ : প্রথমে রসুন পেস্ট করে এর রস বের করে নিতে হবে। এরপর একটি এয়ার টাইট বোতলে তা সংরক্ষণ করতে হবে। যাতে যখন প্রয়োজন তখন তেলের মতো করে এই রস চুলে ব্যবহার করা যায়।

দ্বিতীয় ধাপ : চুল শুষ্ক হলে গোলাপজলের পানিতে তা আধাঘণ্টা ভিজিয়ে রাখতে হবে। গোলাপজল চুলের ময়েশ্চারাইজার ধরে রাখে। এই আধাঘণ্টা পর ভালো করে চুলে ও মাথার তালুতে রসুনের রস লাগাতে হবে।

তৃতীয় ধাপ : চুলে রসুনের রস লাগিয়ে আধাঘণ্টা অপেক্ষা করতে হবে। এরপর চিরুনি দিয়ে তা অঁাচড়াতে হবে। তারপর হালকা গরম পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলতে হবে। এবার চুলে ভালো করে মাইল্ড শ্যাম্পু লাগিয়ে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। এর ১৫ মিনিট পর কন্ডিশনার লাগিয়ে ঠাÐা পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলতে হবে।

ইসবগুলের উপকারিতা

সুস্বাস্থ্য ডেস্ক

হজমের জন্য এক চমৎকার ভেষজ ইসবগুল। প্লান্টাগো ওভাটা নামের এক উদ্ভিদ থেকে এই দ্রবণীয় অঁাশ পাওয়া যায়। কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করার জন্য যুগ যুগ ধরেই ইসবগুল খেয়ে আসছে মানুষ। শুধু কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করাই নয়, ওজন কমানোসহ বেশকিছু শারীরিক উপকার করে ইসবগুল। এই গরমে শরীর ঠাÐা রাখতে ইফতারে নিয়মিত খেতে পারেন ইসবগুল।

ইসবগুলে আছে প্রচুর অঁাশ। কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে শুধু হজমের উন্নতি ঘটিয়ে শরীর সুস্থই রাখে না, ইসবগুল ওজন কমাতেও ভ‚মিকা রাখে। ইসবগুলে ক্যালোরির পরিমাণ কম। দুই টেবিল চামচ ইসবগুলে মাত্র ৩২ ক্যালরি থাকে। ক্ষুধা দূর করতে সাহায্য করে ইসবগুল। কারণ পানিতে যখন এটি গোলানো হয়, তখন তা প্রায় ১০ গুণ স্ফীত হয়। আসলে ঝটপট দূর হয় ক্ষুধা।

* ইসবগুল পেট পরিষ্কার রাখে।

* দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় ইসবগুল। এতে শরীর থাকে সুস্থ।

* অনেক ক্ষেত্রে ডায়রিয়া প্রতিরোধ করে ইসবগুল।

* রক্তে সুগারের মাত্রা কমাতেও সাহায্য করে এই ভেষজ।

* শরীর থেকে বাইল এসিড দূর করে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায় ইসবগুল।

* নিয়মিত ইসবগুল খেলে বøাড প্রেশার কমে। এতে হৃদরোগ থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।

কীভাবে খাবেন

কুসুম গরম পানির মধ্যে অল্প করে ইসবগুল মিশিয়ে তাতে কয়েক ফেঁাটা লেবুর রস মেশাতে পারেন। এরপর সেই দ্রবণ পান করুন খাওয়ার আগে। সকালে ঘুম থেকে উঠে ইসবগুল মেশানো পানি পান করলে বেশ উপকার পাওয়া যায়। ইসবগুলের পানি পান করার পর বেশি করে পানি পান করতে ভুলবেন না।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
অাইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে