logo
  • Tue, 14 Aug, 2018

  মাহবুব এ রহমান   ০৮ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০  

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

শালবন বিহারে একদিন

শালবন বিহারে একদিন
শালবন বিহারে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাথীর্রা
টানা ক’দিন অসহ্য গরমের পর আবার দুদিন থেকে ঝুম বৃষ্টি। থামার কোনো ফুরসত নেই! সবার দুঃশ্চিতা বাড়ছে। আগামী কাল ডিপাটের্মন্টের সেই কাক্সিক্ষত ট্যুর। যদি কালও টানা বৃষ্টি থাকে, তখন? সে বিষয়টা মাথায় রেখে আগের দিনই জানানো হলো যে, সবাই ছাতা সঙ্গে নিয়ে আসতে। পরদিন ভোরে ঘুম ভাঙতেই মনটা অন্যরকম আনন্দিত হয়ে উঠল। বাহ! কী সুন্দর সূযর্ উদিত হয়েছে পুব আকাশজুড়ে। ঠিকঠাক মতো রেডি হয়ে শহরের ষোলশহর স্টেশনের পাশে চলে গেলাম। ক্যাম্পাস থেকে যারা আসবেন তাদের নিয়ে একসঙ্গে রওয়ানা দেব। গন্তব্য কুমিল্লায় অবস্থিত বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন একাডেমি (বাডর্) এবং শালবন বিহার!

ইতিমধ্যে ক্যাম্পাসের বাসগুলোও চলে আসায় ছেড়ে দিল গাড়ি। শিক্ষক-শিক্ষাথীর্ মিলে আমরা পঁাচটি বাসে প্রায় দুইশ’ পঞ্চাশ জনের বহর! ডিপাটের্মন্টের জনপ্রিয় সাখাওয়াত স্যার আমাদের বাসে, তাই একটু বাড়তি আনন্দ। কিন্তু গাড়ি চলা শুরু করতেই আকাশ যেন অভিমান করে বসল! আরও একটু যেতেই আকাশের এ অভিমান কান্নায় রূপ নিল। কিন্তু এদিকে যেন কারোরই ভ্রæক্ষেপ নেই। নাস্তার পবর্ শেষ করে সবাই মেতে ওঠে গানের তালে। সঙ্গে নাচ! কখনও বাস ঙ্গ্রেক কষতেই লুটোপুঁটি খাচ্ছে, আবার দঁাড়াচ্ছে আবার পড়ছে এরকম করতে করতে এক সময় আমরা পেঁৗছে যাই বাডের্। ততক্ষণে আকাশ একটু ধরেছে। সবার পরনে এক কালারের টি শাটর্ এবং ক্যাপ! গাড়ি থেকে নেমে যখন একসঙ্গে গেট দিয়ে ঢুকি সে এক অন্যরকম সুন্দর দৃশ্যের সৃষ্টি হয়েছিল। এইতো বৃষ্টি আবার এইত রোদ! এরকম রোদ আর বৃষ্টির লুকোচুরির মধ্যে কতক্ষণ ঘোরাঘুরি করে দুপুর ২টার দিকে সবাই আবার একত্রিত হই বাডের্র ক্যাফেটেরিয়ায় মধ্যাহ্ন ভোজের জন্য। খাবার দাবার শেষে আরো কতক্ষণ ঘোরাঘুরির পর বাডের্র অডিটোরিয়ামে নিয়ে যাওয়া হয়। কিছু ডকুমেন্টারি ও বাডের্র কাযর্ক্রম সম্পকের্ কথা বললেন ও এখানে ঘুরতে আসায় অভিনন্দন জানালেন বাডের্র সহকারী পরিচালক। এমনিতেই দুপুরের খাবারের পর স্বাভাবিক একটু ঘুম চোখে চুমু দিতে চায়! তাই শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত অডিটোরিয়ামের সিটে বসে কেউ কেউ বেড়িয়ে আসে ঘুমের রাজ্য থেকে। ওখান থেকে বের হয়ে এবার গন্তব্য শালবন বিহার! একটু সময়ের ভেতর পেঁৗছে যাই। আহ! কি দারুণ স্থাপনা। সবাই নিজের মতো করে ঘুরতে লাগল। ইতিহাসের ছাত্র হওয়ায় কমবেশি বিভিন্ন স্থাপনা সম্পকের্ ধারণা আছে সবার। এবার নিজের চোখে! সত্যি এক অন্যরকম অনুভূতি। হঠাৎ মাধুযর্ ভাইয়ার বঁাশির সুর! সবাই একত্রিত হওয়ার ইংগিত। একত্রিত হলে চলল ফটোসেশন। এবার র?্যাফেল ড্রর পালা। কিন্তু বাদ সাধল বৃষ্টি। কোথাও লুকানোরও পথ নেই! কেউ ছাতা মেলে আবার কেউ কেউ ভিজে এমন করে শেষ হলো র?্যাফেল ড্র। তখন বৃষ্টি থেমে আবারও রোদের ঝিলিক?কিন্তু এবার যে ফিরতে হবে!

ধীরে ধীরে সবাই হঁাটা ধরল গাড়ির দিকে। গাড়িতে বসে হালকা নাস্তা পরিবেশন শেষে ছেড়ে দেয় গাড়ি। ক্লান্ত শরীর কেউ এলিয়ে দেয় ঘুমের দেশে আবার কেউ কেউ সাউন্ড বক্সের গানের তালে গান ধরে। এক সময় পেঁৗছে যায় গাড়ি। সবাই ছোটে যার যার নীড়ে। সমাপ্ত হয় রোদ-বৃষ্টির খেলার ফঁাকে এক অসাধারণ আনন্দময় দিনের।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
অাইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

উপরে
Error!: SQLSTATE[42000]: Syntax error or access violation: 1064 You have an error in your SQL syntax; check the manual that corresponds to your MySQL server version for the right syntax to use near 'WHERE news_id=6975' at line 3