logo
  • Thu, 18 Oct, 2018

  তানভির তানিম   ০৮ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০  

ঢাকা কমাসর্ কলেজ

ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় অন্যতম সেরা

ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় অন্যতম সেরা
ঢাকা কমাসর্ কলেজ সব সময় উন্নত ফলাফল অজর্ন করে থাকে
২০১৮ সালের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় ঢাকা কমাসর্ কলেজ ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় সারাদেশের মধ্যে অন্যতম সেরা ফল অজর্ন করেছে। এ বছর ঢাকা কমাসর্ কলেজের মোট পরীক্ষাথীর্ ছিল ২২২১ জন। পাশের হার ৯৯.৭৭ ভাগ। জিপিএ ৫ পেয়েছে ১২৩ জন। এবারে ঢাকা কমাসর্ কলেজের ফলাফলের সবচেয়ে লক্ষণীয় বিষয়টি হলো, এসএসসিতে ৩.৬১ থেকে ৪.৮৮ জিপিএ পাওয়া ৭৩জন পরীক্ষাথীর্ এইচএসসিতে জিপিএ ৫ পেয়েছে।

প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই ঢাকা কমাসর্ কলেজ সব সময় উন্নত ফলাফল অজর্ন করে থাকে। ছাত্রছাত্রীরা মাধ্যমিক স্তরের যে ফলাফল নিয়ে এ কলেজে ভতির্ হয়ে থাকে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে তারা তার চেয়ে আরও অনেক উন্নত ফলাফল অজর্ন করে থাকে। ২০১৮ সালের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায়ও তার ব্যতিক্রম হয়নি। ঢাকা কমাসর্ কলেজ থেকে এ বছর ১২৩ জন ছাত্রছাত্রী জিপিএ-৫ পেয়েছে। তবে ভতির্র সময় তাদের মধ্যে মাত্র ১০৮ জনের মাধ্যমিক স্তরের ফলাফল ছিল জিপিএ-৫। রাজনীতি ও ধূমপানমুক্ত ঢাকা কমাসর্ কলেজে নিয়মিত ক্লাস হয়ে থাকে। যথা সময়ে পরীক্ষা গ্রহণের মাধ্যমে শিক্ষাথীের্দর পড়াশোনার ধারা উত্তরোত্তর শানিত করা হয়। তাদের ক্লাসে উপস্থিতি এবং পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার বিষয়ে যথাযথভাবে নিয়মানুবতির্তা পালন করতে হয়। ক্লাসে উপস্থিতি এবং পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার ক্ষেত্রে নিয়ম মেনে চলার মাধ্যমে শিক্ষাথীর্রা সময়মতো তাদের পাঠ্যসূচির কাজকমর্ শেষ করে ফেলতে পারে। তাছাড়া বোডর্ পরীক্ষায় অংশগ্রহণের প্রস্তুতি তারা সময়মতো ভালোভাবেই সম্পন্ন করতে পারে। তাদের মধ্যে আর পরীক্ষাভীতিও থাকে না।

ঢাকা কমাসর্ কলেজের ঈষর্ণীয় উত্তম ফলাফল অজের্নর উপায় সম্পকের্ জানতে চাইলে কলেজের উপাধ্যক্ষ (প্রশাসন) প্রফেসর মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘সবচেয়ে লক্ষণীয় বিষয় হলো ঢাকা কমাসর্ কলেজ আপসহীনভাবে নিয়মানুবতির্তা মেনে চলে। শিক্ষাথীের্দর নিয়মিত শ্রেণিকক্ষে উপস্থিত থাকা এবং পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার বিষয়ে কোনোরকম শিথিলতার সুযোগ নেই। তাছাড়া শিক্ষাথীের্দর পড়াশোনার সবের্শষ অবস্থা নিয়মিতই অভিভাবকদের অবহিত করা হয়।’ তিনি আরও বলেন, ‘ঢাকা কমাসর্ কলেজ সরকারি সকল নিয়মকানুনও সঠিকভাবে মেনে চলে। সরকারের নিয়ম মেনেই এ কলেজে শিক্ষকদের প্রাইভেট পড়ানো নিষেধ করা আছে। আর শিক্ষাথীের্দর বাইরে অনিভর্রযোগ্য টিউটরদের কাছে পড়ার ব্যাপারেও নিরুৎসাহিত করা হয়। কলেজের অভ্যন্তরীণ ব্যবস্থাপনায় শিক্ষাথীের্দর নিজস্ব প্রস্তুতিমূলক পাঠদান করা হয়।’

ঢাকা কমাসর্ কলেজে শিক্ষাথীের্দর পড়াশোনার বিষয়ে বিভিন্নভাবে নিবিড় পরিচযার্ করা হয়। তার একটি উদাহরণ হলো এখানে শিক্ষাথীের্দর সাবির্ক বিষয় পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে তদারকি করেন ছয়জন শিক্ষাথীর্ উপদেষ্টা। শিক্ষাথীের্দর প্রাত্যহিত কমর্কাÐ সম্পকের্ সবের্শষ তথ্য সংরক্ষণ এবং তদারকির দায়িত্ব পালন করেন উপদেষ্টারা। পড়াশোনার কাক্সিক্ষত গতি এবং উত্তম ফলাফল অজের্নর ক্ষেত্রে শিক্ষাথীর্ উপদেষ্টা পদ্ধতি সক্রিয় ভূমিকা পালন করে।

ঢাকা কমাসর্ কলেজ শিক্ষাথীের্দর শুধু পরীক্ষার বাধা পার হওয়ার জন্য তৈরি করে না, বরং তাদের সাবির্কভাবে সুস্থ ও সচেতন নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার সব চেষ্টা করে থাকে এ কলেজ। নিয়মিত খেলাধুলা এবং সাংস্কৃতিক কমর্কাÐ পরিচালনা করে থাকে ঢাকা কমাসর্ কলেজ। জাতীয় এবং আন্তজাির্তক পযাের্য় বিভিন্ন ক্রীড়ায় অংশ নিয়ে কলেজের মুখ উজ্জ্বল করে শিক্ষাথীর্রা। নিয়মিত সাংস্কৃতিক কমর্কাÐ পরিচালনা করে শিক্ষাথীের্দর মানসিক বিকাশের জন্য এ কলেজ গুরুত্বপূণর্ ভূমিকা পালন করে থাকে। ফলে ঢাকা কমাসর্ কলেজ থেকে পাশ করে যাওয়া শিক্ষাথীর্রা দেশ বিদেশে গুরুত্বপূণর্ দায়িত্ব পালনে সক্ষম হয়ে থাকে। এ প্রসঙ্গে ঢাকা কমাসর্ কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. আবু সাইদ বলেন, ‘আমাদের কলেজে শিক্ষাথীের্দর মানসিক বিকাশ সাধনের জন্য প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়ে থাকে। ফলে আমাদের কলেজ থেকে শিক্ষা সমাপ্ত করে যাওয়া শিক্ষাথীের্দর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভতির্র সুযোগ পাওয়ার হার অনেক ওপরে। তাদেরকে সঠিকভাবে গড়ে তোলার জন্য আমাদের কলেজে রয়েছেন যোগ্য শিক্ষকমÐলী।’
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
অাইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

উপরে