logo
বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬

  এস এন ইসলাম   ০৬ মার্চ ২০১৯, ০০:০০  

ঢাকা কমার্স কলেজ

তিন ক্যাটাগরিতেই দেশ সেরা

তিন ক্যাটাগরিতেই দেশ সেরা
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজর্ যাংকিং-২০১৭-তে ঢাকা কমার্স কলেজ এবারও জাতীয় পর্যায়ে সেরা বেসরকারি কলেজ নির্বাচিত হয়েছে। শুধু সেরা কলেজই নয়, ঢাকা অঞ্চলের সেরা ১০টি সরকারি-বেসরকারি কলেজের মধ্যে যেমনি ১ম, তেমনি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক-মডেল কলেজ প্রকল্পের ৫টি কলেজের মধ্যেও ১ম স্থান অর্জন করে এই কলেজ। ২ মার্চ, ২০১৯ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপির কাছ থেকে সেরা কলেজের পুরস্কার ও সম্মাননা সনদ গ্রহণ করেন ঢাকা কমার্স কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর মো. শফিকুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. সোহরাব হোসাইন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদ। উলেস্নখ্য, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের 'কলেজর্ যাংকিং-২০১৫ ও ২০১৬-তেও ঢাকা কমার্স কলেজ দেশের সেরা বেসরকারি কলেজ নির্বাচিত হয়।

উলেস্নখ্য, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় স্নাতক (সম্মান) ও মাস্টার্স পর্যায়ের কলেজগুলোর মধ্যে ইতিবাচক প্রতিযোগিতা তৈরির মাধ্যমে শিক্ষার সার্বিক মানোন্নয়নের লক্ষ্যে দুই হাজার দুইশত কলেজকে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে গ্রেডিং করে বছরান্তে সেরা কলেজ ঘোষণার উদ্যোগ নেয়। সরকারি পর্যায়ের সেরা ৫টি কলেজকে ১ থেকে ৫ এবং বেসরকারি একটি কলেজকে সেরা বেসরকারি কলেজ ও একটি মহিলা কলেজকে সেরা মহিলা কলেজ নির্বাচন করাসহ চলতি বছর থেকে প্রাক-মডেল কলেজ প্রকল্পের ৫টি কলেজের মধ্যেও গ্রেডিং প্রক্রিয়া সংযুক্ত করা হলো। কলেজের অবকাঠামো, শিক্ষার পরিবেশ, শিক্ষকদের মান, পরীক্ষার ফলাফল, গ্রন্থাগারের সংগ্রহ, আইসিটি সাপোর্ট, সহপাঠ কার্যক্রম' ইত্যাদি বিবেচনায় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ২০১৫ সাল থেকে এইর্ যাংকিং করে আসছে। সম্প্রতি 'কলেজর্ যাংকিং-২০১৭ ঘোষণা করা হয়।র্ যাংকিংয়ের জন্য মোট ৩১টি সূচকে ১০০ নম্বর বরাদ্দ করা হয়।

গত ২৫ ফেব্রম্নয়ারি ২০১৯ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের গাজীপুর ক্যাম্পাসে এক জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদ 'জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়েরর্ যাংকিং-২০১৭' ঘোষণা করেন।র্ যাংকিংয়ে দেশ সেরা ঢাকা কমার্স কলেজের অর্জিত স্কোর ৬১.৮৪।

উচ্চ মাধ্যমিকে ৯৯ ও স্নাতক কোর্সে মাত্র ৯৮ জন শিক্ষার্থী নিয়ে শ্রেণি কার্যক্রম শুরু করা এই কলেজের বর্তমান ছাত্রছাত্রী সংখ্যা ৭ হাজারেরও বেশি। ১৯৮৯ সালে প্রতিষ্ঠিত এই কলেজ প্রথম বছরেই ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের মেধাক্রমে শীর্ষস্থান অর্জন করে। বোর্ড ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধা তালিকায় এই কলেজের ছাত্রছাত্রী ১ম, ২য়, ৩য় স্থানসহ বিভিন্ন বছরে ১৩টি মেধাস্থান লাভ করে। গ্রেডিং পদ্ধতি চালু হওয়ার পর এই কলেজের পাসের হার ৯৯.৭১%। শুধু পুঁথিগত জ্ঞানার্জনই নয়, বাস্তবমুখী শিক্ষাপদ্ধতি, ভালো ফলাফল, সুষ্ঠু নিয়মশৃঙ্খলা ও সংস্কৃতি চর্চার জন্য এই কলেজ উত্তরোত্তর সাফল্য অর্জন করে চলেছে। সাফল্যের ধারাবাহিকতায় ১৯৯৬ সালে 'শ্রেষ্ঠ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান' হিসেবে পুরস্কৃত হয় ঢাকা কমার্স কলেজ এবং ২০০২ সালেও কলেজটি বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক শ্রেষ্ঠ কলেজ হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করে।

কলেজটির পরিচালনা পর্ষদের সভাপতির দায়িত্বে আছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের সাবেক অধ্যাপক ড. সফিক আহমেদ সিদ্দিক। ১৯৯৮ সাল থেকে তিনি এই দায়িত্ব পালন করছেন। তার যোগ্য নেতৃত্ব, দিকনির্দেশনা ও পরামর্শে অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর মো. শফিকুল ইসলাম শিক্ষকদের সমন্বয়ে কলেজেটিকে উত্তরোত্তর সাফল্যের সঙ্গে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। স্ব-অর্থায়নে পরিচালিত, ধূমপান ও রাজনীতিমুক্ত স্স্নোগানকে ব্রত হিসেবে ধারণ করে এই কলেজ আজও এগিয়ে চলছে সমান গতিতে। জন্মলগ্ন থেকেই এই কলেজ সৃষ্টি করে চলছে অনন্য ও ব্যতিক্রমী সব দৃষ্টান্ত। তাই ঢাকা কমার্স কলেজ আজ একটি সাফল্যের স্মারক, বিশেষ করে ব্যবসায় শিক্ষায় কলেজটি দেশব্যাপী অসামান্য অবদান রেখে চলেছে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে